• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

করোনা-ত্রাণে শাসক বিধায়ক, বিশ্ববিদ্যালয়

TMC
প্রতীকী ছবি।

করোনা-যুদ্ধে সহায়তার জন্য দলীয় বিধায়কদের কাছে ১০ হাজার টাকা করে অনুদান চাইল তৃণমূল। দলের তহবিলে জমা পড়ার পরে ওই টাকা কাজে লাগানো হবে করোনা সহায়তায়। পরিষদীয় মন্ত্রী তথা তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় এই মর্মে নির্দেশ দিয়েছেন শাসক দলের বিধায়কদের।

দল নির্বিশেষে সব বিধায়কের কাছেই এক মাসের ভাতা মুখ্যমন্ত্রীর আপৎকালীন তহবিলে দেওয়ার আবেদন করেছেন স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়। তৃণমূলের বিধায়কদের বলা হয়েছে তাঁদের এক মাসের বেতনও মুখ্যমন্ত্রীর তহবিলে দিতে। তার পাশাপাশি ১০ হাজার টাকার চেক তাঁর কাছে পৌঁছে দেওয়ার জন্য বিধায়কদের বার্তা পাঠিয়েছেন পার্থবাবু। এর আগে যুব তৃণমূলের তরফে এক কোটি টাকা দেওয়া হয়েছে করোনা ত্রাণে। লোকসভায় তৃণমূলের ২২ জন সাংসদও তাঁদের এলাকা উন্নয়ন তহবিল থেকে মোট ১২ কোটি ৬০ লক্ষ টাকা বরাদ্দ করেছেন। বামফ্রন্ট এবং কংগ্রেস বিধায়কেরাও এলাকা উন্নয়ন তহবিল এবং বেতনের টাকা করোনার সহায়তায় দিচ্ছেন। একই পথে হাঁটছেন রাজ্যের বিজেপি সাংসদ ও বিধায়কেরাও।  

রোগ মোকাবিলায় তহবিল গড়ে তুলতে এগিয়ে আসছেন বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষও। কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় করোনা ত্রাণে দিয়েছে ১০ লক্ষ টাকা। উপাচার্য সোনালি চক্রবর্তী বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, শিক্ষক, আধিকারিক ও ছাত্রদের কাছেও সহায়তার জন্য তাঁরা আবেদন করেছেন এবং তাতে আশাব্যঞ্জক সাড়া মিলছে। সেন্ট জেভিয়ার্স স্কুল ও কলেজের প্রাক্তনী সংসদ মিলে দিচ্ছে ৪০ লক্ষ টাকা। যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সুরঞ্জন দাস এবং প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অনুরাধা লোহিয়া তাঁদের প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, শিক্ষাকর্মী-সহ সব ধরনের কর্মচারীর কাছে এক দিনের বেতন দেওয়ার আবেদন জানিয়েছেন। সিস্টার নিবেদিতা সরকারি কলেজের ২৬ জন-সহ বিভিন্ন সরকারি কলেজের শিক্ষকেরাও এক দিনের বেতন দিচ্ছেন।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন