• অপূর্ব চট্টোপাধ্যায়
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

মা তারার বিগ্রহে আলতা, সিঁদুর ঢালা নিষিদ্ধ 

Kali Idol
এত দিন এ ভাবেই বিগ্রহে দেওয়া হত সিঁদুর। নিজস্ব চিত্র

তারাপীঠে এ বার মা তারার গর্ভগৃহে মা তারার বিগ্রহে আলতা, সিঁদুর, অগুরু, নারকেল জল ঢালা নিষিদ্ধ করা হল। আজ, বুধবার থেকেই তা কার্যকর করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তারামাতা সেবাইত সমিতি। 

তারামাতা সেবাইত সমিতির সভাপতি তারাময় মুখোপাধ্যায় জানান, তারাপীঠ মন্দিরের মা তারার গর্ভগৃহের ভিতরে আলতা, সিঁদুর, অগুরু, নারকেল জল নিয়ে পুণ্যার্থীদের 

প্রবেশ অনেক দিন আগেই মন্দির কমিটি থেকে মানা করা হয়েছে। কিন্তু এখনও ওই নিষেধাজ্ঞা সম্পূর্ণভাবে কার্যকর হয়নি। তিনি বলেন, ‘‘অনেকেই এখনও মন্দিরের গর্ভগৃহে প্রবেশ করে তারামাতার বিগ্রহের গায়ে আলতা, সিঁদুর, নারকেল জল, অগুরু ঢালছেন। এর ফলে অনেক ক্ষেত্রে মায়ের শুচিতা যেমন নষ্ট হচ্ছে, তেমনই মন্দিরের ভিতরে অনেক পূণ্যার্থীদের অসুবিধার সৃষ্টি হচ্ছে।” তিনি জানান, পৌষ মাসে তারাপীঠে পুণ্যার্থীরা মা তারার পুজো দিতে ভিড় করেন। এর ফলে বছরের অন্য সময়ের থেকে তারাপীঠে সারা পৌষ মাস 

পুণ্যার্থীদের বেশি ভিড় থাকে। সেই কারণে আজ, বুধবার পৌষ মাসের প্রথম দিন থেকে গর্ভগৃহে মা তারার বিগ্রহের গায়ে আলতা, সিঁদুর, নারকেলের জল ঢালতে মানা করা হচ্ছে বলে তারাময় জানান। 

তারাপীঠ মন্দির কমিটির সম্পাদক ধ্রুব চট্টোপাধ্যায় জানান, মন্দিরের গর্ভগৃহের বাইরে মায়ের রুপোর চরণ রাখা আছে। পূণ্যার্থীদের ঐ চরণে আলতা, নারকেলের জল ঢালতে, সিঁদুর দিতে বলা হচ্ছে। তবে কোনও ভক্ত যদি মায়ের গর্ভগৃহে 

আলতা, নারকেল জল, অগুরু নিয়ে যান সেক্ষেত্রে মায়ের বিগ্রহে না ঢেলে স্পর্শ করে গর্ভগৃহের বাইরে নিয়ে যেতে পারেন। তাঁর কথায়, ‘‘এ ক্ষেত্রে মন্দিরের ভিতরে গর্ভগৃহের পবিত্রতা রক্ষা পাবে, আবার দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাঁড়িয়ে থাকা ভক্তদের পুজো দিতেও সুবিধে হবে।’’

মন্দির কমিটির দাবি, পুণ্যার্থীদের সচেতন করতে ইতিমধ্যে মন্দির কমিটির পক্ষ থেকে মন্দির চত্বরে একাধিকবার মাইকিং করা হচ্ছে। মন্দির চত্বরে পোস্টারিং করা হয়েছে। এ ছাড়া মন্দির কমিটির সেবাইতদের পুণ্যার্থীদের মধ্যে প্রচার করতে বলা হয়েছে। মন্দিরের গর্ভগৃহে সেবাইতরাও বিশেষ নজরদারি চালাবেন। কাউকে বিগ্রহের গায়ে আলতা, সিঁদুর, নারকেলের জল, অগুরু ঢালতে দেখলে সেবাইতরাও মানা করবেন। মন্দির কমিটির আশা, গর্ভগৃহের ভিতরে মা তারার বিগ্রহে আলতা, নারকেল জল, অগুরু, সিঁদুর ঢালা বন্ধ হলে মন্দিরের পবিত্রতা আরও বেশি বৃদ্ধি পাবে। এতে পুণ্যার্থীরাও মা তারা দর্শনে আরও আনন্দ পাবেন।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন