তোলাবাজি, কাটমানি-সহ যাবতীয় অভিযোগ জানাতে সাধারণ নাগরিকদের জন্য বিশেষ পোর্টাল চালু করেছে রাজ্য সরকার। এ বার চিকিৎসক এবং চিকিৎসাকর্মীদের অভিযোগ জানানোর মাধ্যম হিসেবে নতুন পোর্টাল চালু করতে চলেছে তারা। রাজ্যের স্বরাষ্ট্র দফতরের অধীনে পোর্টালে অভিযোগ জানাতে পারবেন শুধু চিকিৎসক ও চিকিৎসাকর্মীরাই।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গত ১৭ জুন আন্দোলনরত জুনিয়র ডাক্তারদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন। ডাক্তার-নিগ্রহের কোনও ঘটনারই মীমাংসা হচ্ছে না বলে নবান্নের সেই বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রীকে জানিয়েছিলেন আন্দোলনকারীরা। তাঁদের অভিযোগ, নিগ্রহের সময় পুলিশও কার্যত চোখ বন্ধ করে। সে-দিনই জুনিয়র ডাক্তারদের এই অভিযোগের সুরাহা করার আশ্বাস দিয়েছিলেন মমতা। এ বার তাঁদের জন্য পৃথক পোর্টাল এবং একটি অ্যাপ চালু করার জন্য স্বরাষ্ট্র দফতরকে নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। প্রশাসনের শীর্ষ মহলের ব্যাখ্যা, কর্তব্যরত কোনও চিকিৎসক বা চিকিৎসাকর্মীর সঙ্গে রোগী বা রোগীর আত্মীয়স্বজন অবাঞ্ছিত ব্যবহার করলে সংশ্লিষ্ট মাধ্যমে অভিযোগ জানানো যাবে। চিকিৎসক ও চিকিৎসাকর্মীদের সেই অভিযোগের ভিত্তিতে আইনি পথে হাঁটতে পারে সরকার।

চিকিৎসক-নিগ্রহ রুখতে কলকাতা ও জেলা পুলিশের উদ্দেশে মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ ছিল, হাসপাতালগুলির নজরদারিতে এক জন করে নোডাল পুলিশ অফিসার দায়িত্বে থাকবেন। তার পরেও এমন পোর্টালের প্রয়োজন হচ্ছে কেন? পুলিশ মহলের একাংশের ধারণা, সম্ভবত সমান্তরাল নজরদারি চালাতেই পোর্টাল চালু করতে চলেছে স্বরাষ্ট্র দফতর। অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ যথাযথ পদক্ষেপ করছে কি না, তা-ও খতিয়ে দেখতে পারে নবান্ন।

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও।সাবস্ক্রাইব করুনআমাদেরYouTube Channel - এ।