• নিজস্ব সংবাদদাতা 
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

কৌশিকী অমাবস্যায় বন্ধ তারাপীঠ মন্দির

tarapith temple
ছবি: সংগৃহীত।

কৌশিকী অমাবস্যায় দর্শনার্থীদের জন্য বন্ধ থাকবে তারাপীঠ মন্দির। সোমবার রামপুরহাটে মহকুমাশাসকের সভাকক্ষে জেলাশাসক, পুলিশ সুপার ও মন্দির কমিটির প্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে এ সংক্রান্ত বৈঠক হয়। বৈঠকের শেষে ১২ অগস্ট থেকে ২০ অগস্ট পর্যন্ত তারাপীঠ মন্দির দর্শনার্থীদের জন্য বন্ধ রাখার কথা ঘোষণা করেন তারাপীঠ রামপুরহাট উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যান, মন্ত্রী আশিস বন্দ্যোপাধ্যায়।

লকডাউন পর্বে প্রায় তিন মাসের বেশি সময় বন্ধ থাকার পরে কিছুদিন আগে দর্শনার্থীদের উদ্দেশ্যে মন্দিরের গর্ভগৃহের দরজা খুলেছিল। স্বাস্থ্যবিধি মেনে ভিড় নিয়ন্ত্রণে নেওয়া হয়েছিল নানা ব্যবস্থা। তবে কৌশিকী অমাবস্যায় তারাপীঠে প্রতিবছর কয়েক লক্ষাধিক লোকের ভিড় হয়। সংক্রমণ ঠেকাতে সেই ভিড় এড়াতেই কৌশিকী অমাবস্যার আগেই মন্দির দর্শনার্থীদের জন্য বন্ধ রাখার জানিয়ে দেওয়া হল বলে মন্দির কমিটি সূত্রে খবর। 

মন্ত্রী ঘোষণা করার আগে সভাকক্ষে তারাপীঠে এ বছরের কৌশিকী অমাবস্যা নিয়ে প্রায় ঘণ্টাখানেক বৈঠক হয়। মন্দির কমিটির সম্পাদক ধ্রুব চট্টোপাধ্যায় ও মন্দির কমিটির সভাপতি তারাময় মুখোপাধ্যায় জানান, দর্শনার্থীদের জন্য মন্দির বন্ধ থাকলেও ১৭ ও ১৮ অগস্ট কৌশিকী অমাবস্যার দিন মন্দিরে নিত্য পুজোর সঙ্গে অমাবস্যার পুজো উপাচার হবে।

কৌশিকী অমাবস্যা ঘিরে লক্ষ লক্ষ মানুষের সমাগম সামাল দিতে এবং বিষয়টি সুষ্ঠু ভাবে সম্পন্ন করার জন্য তারাপীঠ রামপুরহাট উন্নয়ন পর্ষদ বড় ভূমিকা পালন করে থাকে। এ বার করোনা আবহে কৌশিকী অমাবস্যার আয়োজন হবে কি না সেই সিদ্ধান্ত নিতে পারছিল না পর্ষদ। তাই সকল বিভাগকে নিয়ে বৈঠক করার সিদ্ধান্ত হয়। আশিসবাবু বলেন, ‘‘কৌশিকী অমাবস্যায় সারা দেশ থেকে তারাপীঠে লক্ষ লক্ষ লোকের সমাগম ঘটে। তাই ভিড় এড়াতে ও সংক্রমণ ঠেকাতে এ বার মন্দির বন্ধ রাখার প্রস্তাব এসেছিল মন্দির কমিটি ও বিভিন্ন দফতর থেকে। জেলা পুলিশ প্রশাসনের সঙ্গে সেই প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা করার পরে বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।”

মন্ত্রী জানান, লজ মালিকেরাও ১২ অগস্ট থেকে ২০ অগস্ট পর্যন্ত লজে সমস্ত বুকিং বন্ধ রাখবেন বলে জানিয়েছে। শ্মশান কমিটিও শ্মশানে ওই ক’দিন হোম যজ্ঞাদি-সহ ভাণ্ডারা বন্ধ থাকবে। তারাপীঠ সংলগ্ন আটলা, উদয়পুর, দেখুড়িয়া এলাকাতেও মন্দির দর্শনার্থীদের জন্য বন্ধ থাকবে। ভিআইপিদের প্রবেশও নিষিদ্ধ করা হয়েছে বলে মন্ত্রী জানান। ওই ক’দিন মল্লারপুর, চাকপাড়া, আটলা-সহ যে সমস্ত এলাকা দিয়ে তারাপীঠ আসা যায় সেই সমস্ত পথও বন্ধ থাকবে। জেলা পুলিশ সুপার শ্যাম সিংহ বলেন, ‘‘পার্শ্ববর্তী রাজ্য ঝাড়খণ্ড, বিহার পুলিশ প্রশাসনকেও এ ব্যাপারে জানানো হবে।’’ 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন