নামেই উত্তর শহরতলির তিন রাস্তার গুরুত্বপূর্ণ মোড়। রাস্তা সঙ্কীর্ণ হওয়ায় যানজট এখানে নিত্যসঙ্গী। যানবাহন আর পথচারীদের ভিড় সামলাতে নাজেহাল অবস্থা পুলিশেরও।

বিটি রোডের ডানলপ মোড়ের এই চেনা ছবি বদলাতেই এ বার উদ্যোগী রাজ্য সরকার। কয়েক কোটি টাকা খরচ করে ডানলপ সেতুর নীচে তৈরি হচ্ছে ভূগর্ভস্থ পথ। পূর্ত দফতরের কর্তারা জানান, কিছু দিনের মধ্যেই ওই রাস্তা খুলে দেওয়া হবে। আর তাতেই সারবে যানজটের ‘রোগ’।

ডানলপ মোড়ের জট কাটাতে গত ডিসেম্বরে বিটি রোডকে আরও চওড়া করে ছয় লেন করতে দরপত্র ডাকে পূর্ত দফতর। ওই কাজের জন্য ১৩ কোটি ৮০ লক্ষ টাকা মঞ্জুর হয়। কিন্তু কিছু পরীক্ষানিরীক্ষার পরে ওই প্রকল্প বাতিল করে দেন পূর্ত কর্তারা। তার বদলে নবান্নের সিদ্ধান্ত মেনে বিটি রোডের ডানলপ রেল সেতুর নীচে প্রায় ২৭ মিটার লম্বা ভূগর্ভস্থ পথ (বক্স আন্ডারপাস) তৈরির কাজ চলছে।

কিন্তু ছয় লেনের প্রকল্পটি বাতিল হল কেন? নবান্নের এক পূর্ত কর্তা বলেন, ‘‘রাস্তা চওড়া করেও সমস্যা থেকে যেতে পারে, এমন তথ্য সামনে আসার পরেই আরও সমীক্ষা করতে গিয়ে ওই ভূগর্ভস্থ পথের পরিকল্পনা হয়।’’ দফতরের কর্তারা দেখেন, বরাহনগর স্টেশন থেকে ডানলপ মোড় পর্যন্ত বিটি রোডের অংশটি খুবই সঙ্কীর্ণ। বিশেষত ডানলপ রেল সেতুর নীচ দিয়ে ভারী গাড়ি, বাস, ছোট গাড়ি একসঙ্গে যেতে গিয়েই জট তৈরি হয়। তা ছড়িয়ে পড়ে উভয় দিকেই। এক কর্তা জানান, ওই অংশ দিয়ে গাড়ি যাওয়ার জায়গা ভাগাভাগি করে দিলে সমস্যা মিটবে বলে সমীক্ষায় দেখা যায়। তখনই সিদ্ধান্ত হয়, ওই বিশেষ ভূগর্ভস্থ পথ তৈরি করা হবে।

পূর্ত দফতর সূত্রের খবর, বিটি রোডের উত্তরে বরাহনগর স্টেশনের টিকিট কাউন্টারের সামনে থেকে ওই ভূগর্ভস্থ পথে ঢোকার রাস্তা শুরু হয়েছে। ডানকুনি-শিয়ালদহ শাখার বরাহনগর স্টেশন এবং বেলঘরিয়া এক্সপ্রেসওয়ের সেতুর নীচ দিয়ে গিয়ে ওই পথ ডানলপ বাজারের সামনে শেষ হয়েছে। স্থানীয় প্রশাসন সূত্রের খবর, এত দিন ডানলপ বাজারের সামনে বিটি রোডের অংশ দিয়ে অটো, রিকশা, ছো‌ট গাড়ি যাতায়াত করত। রাস্তার পাশেই ছিল দোকান, ট্যাক্সি, অটো স্ট্যান্ড। বরাহনগর পুরসভা ও স্থানীয় প্রশাসনের তরফে সেই দখলদারদের সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। প্রথম দিকে দোকান, গাড়ির স্ট্যান্ড সরাতে কিছুটা সমস্যা হলেও পরে তা মিটে যায়।

দফতর সূত্রের খবর, কামারহাটির দিক থেকে আসা শ্যামবাজারমুখী বাস ও ছোট গাড়ি ওই ভূগর্ভস্থ পথ দিয়ে ডানলপ মোড়ের কাছে এসে ফের মূল বিটি রোডে উঠবে। ভারী গাড়িগুলি অবশ্য ডানলপ রেল সেতুর নীচ দিয়ে সোজা বিটি রোড ধরে ডানলপ মোড় পেরিয়ে শ্যামবাজারের দিকে যাবে। এক পূর্ত কর্তা জানান, ডানলপ মোড়ে যে উড়ালপুল রয়েছে, তার নীচে ট্যাক্সি, বাস এবং অটোর জন্য ‘বে’ বানিয়ে দেওয়া হয়েছে। পুরসভার তরফে পুনর্বাসন দেওয়া হয়েছে দোকানদারদেরও।