অযোধ্যা মামলায় সুপ্রিম কোর্টের রায় যা-ই হোক, তাতে যেন কোথাও শান্তিভঙ্গ না হয়— দেশ জুড়ে সবাই এ ব্যাপারে সতর্ক থাকতে বলছেন।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বৃহস্পতিবার দলীয় বৈঠকের পরে সাংবাদিক সম্মেলনে বলেন, ‘‘রায় কী হবে না হবে, জানি না। কিন্তু রায় বেরোলে যাতে কোনও অপ্রীতিকর পরিস্থিতি না হয়, সে জন্য দলের সকলকে সতর্ক থাকতে বলেছি। শান্তি বজায় রাখতে বলেছি। আর সংবাদমাধ্যমকে এ বিষয়ে যা বলার, তা শুধু আমি বলব। আর কেউ বলবেন না। দলের সকলকে তা জানিয়ে দিয়েছি।’’

কেন্দ্রীয় সরকারের কাছ থেকে রাজ্যের কাছে যে বার্তা এসেছে, সেখানেও অযোধ্যা মামলার রায়ের আগে থেকেই প্রশাসনকে সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে। ওই বার্তার নির্যাস— ওই মামলার রায়ের পর আইনশৃঙ্খলার যাতে অবনতি না হয়, তার জন্য রাজ্য পুলিশকে নজরদারি চালিয়ে সক্রিয় পদক্ষেপ করতে হবে। বিশেষত, সংবেদশীল এলাকাগুলিতে শান্তিরক্ষা কমিটিগুলিকে সক্রিয় করে তোলার কথাও বলা হয়েছে। নজর রাখতে বলা হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ার দিকেও, যাতে প্ররোচনামূলক কোনও কিছু ছড়িয়ে না পড়ে।

পাশাপাশি, বিজেপি সূত্রের খবর, অযোধ্যা মামলার আসন্ন রায়ের কথা মাথায় রেখে অতি সম্প্রতি আরএসএসের শীর্ষ মহল থেকেও সঙ্ঘ পরিবারের অন্দরে সতর্কতা জারি করা হয়েছে। বলা হয়েছে, ওই মামলার রায় যা-ই হোক, সঙ্ঘ পরিবারের কোনও সংগঠন এবং সদস্য যেন রাস্তায় নেমে বা সোশ্যাল মিডিয়ায় কোনও ভাবাবেগ বা মত প্রকাশ না করেন। কারও কিছু বলার থাকলে, তা তাঁকে বলতে হবে নিজের বাড়িতে। বস্তুত, আইনশৃঙ্খলার কোনও অবনতি হলে তার দায় যাতে সঙ্ঘ পরিবারের উপরে না আসে, তার জন্যই বাড়তি সতর্ক হয়েছে আরএসএস। আপাতত, বিশ্ব হিন্দু পরিষদের প্রকাশ্য সব কর্মসূচিও স্থগিত রাখতে বলা হয়েছে।