• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

বসু-স্মরণে যুক্ত ফ্রন্ট টেনে বার্তা ইয়েচুরির

Abdul Mannan
বিধানসভায় জ্যোতি বসু কে শ্রদ্ধা জানাচ্ছেন বিরোধী দলনেতা আব্দুল মান্নান।—নিজস্ব চিত্র।

ধর্ম নিয়ে রাজনীতির বিপরীত মেরুতে ছিলেন তিনি। কিন্তু জোট-ধর্ম পালনে তাঁর কৃতিত্বের কথা বিশেষ ভাবে স্মরণীয়। ছয়ের দশকে বাংলা কংগ্রেসের সঙ্গে যুক্ত ফ্রন্টের উদাহরণ টেনে জ্যোতি বসুর জন্মদিনে এমন কথাই বললেন সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি। বাংলায় বিধানসভা নির্বাতন আসন্ন। বাম ও কংগ্রেস জোট বেঁধেই ভোটের পথে এগোচ্ছে। এই সময়ে যুক্ত ফ্রন্ট ও জ্যোতিবাবুর সূত্রে ইয়েচুরির এই বার্তাকে তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করছে রাজনৈতিক শিবির।

জ্যোতিবাবুর জন্মদিন এ বার একটু অন্য রকম ভাবেই পালন করেছে বাম শিবির। প্রয়াত প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে সম্পর্কিত ছবি, গ্রাফিক্স, পোস্টার আম জনতার কাছ থেকে সংগ্রহ করে সামাজিক মাধ্যমে প্রদর্শনী চলেছে দিনভর। সিপিএমের কেন্দ্রীয় ও রাজ্য নেতারা জ্যোতিবাবুকে স্মরণ করেই নানা ধরনের টুইট-বার্তা দিয়েছেন। জ্যোতি বসু সেন্টার ফর সোশ্যাল স্টাডিজ অ্যান্ড রিসার্চ-এর আয়োজনে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর নামে বুধবার ‘ভার্চুয়াল’ স্মারক বক্তৃতা দিয়েছেন ইয়েচুরি। সেখানেই তিনি বলেন, ‘‘জ্যোতিবাবু জোট রাজনীতি বুঝতেন। বড় দল বা ছোট দল, এই শক্তির বাছবিচারে না গিয়ে প্রয়োজনীয় সিদ্ধান্ত নিতে জানতেন। সেই জন্যই প্রয়োজনে ত্যাগ স্বীকার করেও বাংলা কংগ্রেসের সঙ্গে যুক্ত ফ্রন্ট গড়েছিলেন, অজয় মুখোপাধ্যায়কে মুখ্যমন্ত্রিত্বে এগিয়ে দিয়েছিলেন।’’ সাম্প্রদায়িক রাজনীতির বিরুদ্ধে জ্যোতিবাবুর দৃঢ় অবস্থানের উল্লেখ করে তৃণমূলের বিকল্প কোনও ভাবেই বিজেপি নয়, বাংলায় এই প্রচারের উপরেও জোর দিয়েছেন সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক।

যৌথ কর্মসূচির বাতাবরণে প্রদেশ কংগ্রেস নেতারাও এ দিন চোখ রেখেছিলেন ইয়েচুরির বক্তব্যের দিকে। বামফ্রন্ট সরকারের নানা কৃতিত্বের যে সব কথা সিপিএম নেতারা বলে থাকেন, তার চেয়েও বেশি যুক্ত ফ্রন্টের প্রসঙ্গই কংগ্রেস নেতাদের নজর কেড়েছে। প্রদেশ কংগ্রেসের এক নেতার কথায়, ‘‘খাদ্য আন্দোলন বা জরুরি অবস্থার প্রসঙ্গে জ্যোতিবাবুকে নিয়ে কংগ্রেসের বিরুদ্ধে বলার মতো উপকরণ সিপিএমের কাছে আছে। কিন্তু ইয়েচুরি সে দিকে যাননি। জোটের ভবিষ্যতের কথা ভেবেই তাঁর এই বার্তা বলেই মনে করছি।’’ এখনও কংগ্রেসকে সঙ্গে নিয়ে যৌথ মঞ্চ বা কমিটি গড়ার প্রস্তাব বামফ্রন্টে দিয়ে রেখেছে ফরওয়ার্ড ব্লকের মতো শরিক দল, সিপিএমের একাংশের মতও তা-ই। ফ ব-র রাজ্য দফতরেও এ দিন জ্যোতিবাবুর জন্মদিন পালন হয়েছে।

বিধানসভায় জ্যোতিবাবুর ছবিতে শ্রদ্ধা জানাতে এ দিন স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশাপাশি ছিলেন বিরোধী দলনেতা আব্দুল মান্নান, বাম পরিষদীয় নেতা সুজন চক্রবর্তী এবং বাম ও কংগ্রেসের একাধিক বিধায়ক। তবে শাসক দলের কাউকে সেখানে দেখা যায়নি। প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্রও ‘বাঙালি আইকন’ হিসেবে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানানোর পাশাপাশি বসু-স্মরণ করেছেন।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন