• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

যুব সিপিএমের পথে এ বার যুব কংগ্রেসও

Youth Congress
নেতাজি জন্ম দিবসে সূচনা হলো যুব কংগ্রেস এর 'জাতীয় বেকারপঞ্জি' কর্মসূচি।—নিজস্ব চিত্র।

Advertisement

নেতাজি বলেছিলেন, স্বাধীনতা কেউ কাউকে দেয় না। স্বাধীনতা ছিনিয়ে নিতে হয়। সেই কথা মাথায় রেখে নেতাজির জন্মদিবসেই দাবি আদায়ের জন্য রাস্তায় নেমে লড়াইয়ের ঘোষণা করল যুব কংগ্রেস। নেতাজিকে স্মরণ করেই বাংলায় সূচনা হল জাতীয় বেকারপঞ্জির (এনআরইউ)।

মধ্য কলকাতার এজরা স্ট্রিটের কাচ্চি জৈন ভবনে বৃহস্পতিবার নেতাজিকে স্মরণ করতে জড়ো হয়েছিলেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা আব্দুল মান্নান, প্রদেশ কংগ্রেস নেতা সন্তোষ পাঠক, মধ্য কলকাতা জেলা কংগ্রেসের সভাপতি মহেশ শর্মা, প্রদেশ যুব কংগ্রেস সভাপতি শাদাব খান, হবিবুর রহমান-সহ অন্যেরা। মান্নান বলেন, স্বাধীনতার লড়াইয়ে আরএসএসের ভূমিকা ছিল আপস এবং ক্ষমাপ্রার্থনার। এখন সেই সঙ্ঘ এবং বিজেপি নেতারা দেশপ্রেম শেখাতে চাইছেন। দাবি আদায়ের লড়াইয়ে ধর্মনিরপেক্ষ নীতি নিয়ে কী ভাবে চলতে হয়, তার আদর্শ হিসেবে বাংলায় নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু আছেন। নেতাজিকে স্মরণ করেই এনআরইউ-এর সূচনা করেছে যুব কংগ্রেস। সারা দেশের মতো এ রাজ্যেও যুব কংগ্রেস একটি ফোন নম্বর দিয়ে সেখানে বেকার যুবক-যুবতীদের নাম নথিভুক্ত করাতে বলছে। বিজেপির এনআরসি এবং এনপিআর মোকাবিলায় এটাই যুব কংগ্রেসের পাল্টা পরিকল্পনা। ইতিমধ্যে সিপিএমের যুব সংগঠন ডিওয়াইএফআই বাংলায় একই ভাবে এনআরবি (ন্যাশনাল রেজিস্টার অফ বেরোজগার) চালু করেছে। বেকারত্ব নিবারণ আইন (বিএএ) প্রণয়নের দাবিতে আগামী ১২ ফেব্রুয়ারি দিল্লির যন্তর মন্তরে ধর্না-অবস্থানেরও ডাক দিয়েছে বাংলার ডিওয়াইএফআই।  

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন