রাজ্য সরকার থেকে সতর্কতা জারি করা হয়েছে। দেওয়া হয়েছে হেল্পলাইন নম্বরও। রাজ্য জুড়ে তবু ঘূর্ণিঝড় ফণীর তাণ্ডবে ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা প্রবল। তার মধ্যে টালিগঞ্জ ইন্ডাস্ট্রি কী করছে, সেটা একটা প্রশ্ন বটে। প্রচুর অঙ্কের টাকার প্রজেক্ট যেখানে হয়, সেখানে প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে কাজকর্ম কি একেবারে বন্ধ থাকতে পারে? তাই বেশির ভাগই সতর্কতা অবলম্বন করলেও অনেকেই আবার যথেষ্ট ব্যবস্থা নিয়ে চালিয়ে যাচ্ছেন শুটিং।

যেমন টেলিভিশন চ্যানেলের সমস্ত শুটিংই চলেছে শুক্রবার। ধারাবাহিকের শুটিং কেউই বন্ধ রাখেনি। চলেছে ‘ফাগুন বউ’, ‘রানি রাসমণি’, ‘মনসা’, ‘সীমানা পেরিয়ে’ সব চ্যানেলেরই জনপ্রিয় ধারাবাহিকের শুটিং। তবে মিলিত সিদ্ধান্ত নিয়ে, আউটডোর শুটিংয়ের পরিকল্পনা রাখেনি কেউ। যা হয়েছে, সবই ইনডোরে। অর্থাৎ চরিত্ররা বাড়ির ভিতরে কে কী করছে, তা নিয়েই এগিয়েছে সিরিয়ালগুলোর গল্প। তবে ফণীর রেশ যদি বাড়ে, সে ক্ষেত্রে ইনডোরে থাকলেও আটকে পড়ার সম্ভাবনা থাকায় বেশ কিছু চ্যানেল অতিরিক্ত জেনারেটর, গাড়ি, খাবার মজুত রেখেছে নিজেদের সঙ্গে। শনিবার পরিস্থিতি কেমন থাকে, সেই বুঝে পরবর্তী পদক্ষেপ করা হবে। 

তবে বাতিল হয়েছে বেশ কিছু সিনেমার শুটিং। যেমন নন্দিতা রায়-শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের নতুন ছবির শুটিং বন্ধ রাখা হয়েছে। এমনিতেই শুক্রবার সকাল থেকে বৃষ্টি পড়ায় শুটিং বাতিল করতে হয়। শিবপ্রসাদ জানান, পরে পরিস্থিতি দেখে তাঁরা সিদ্ধান্ত নেবেন। এই মুহূর্তে ভেঙ্কটেশ বা সুরিন্দরের কোনও ছবি ফ্লোরে নেই। তবে ভেঙ্কটেশের ওয়েব এবং ধারাবাহিকের কাজ শনিবার বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে সংস্থা। শুক্রবার বন্ধ ছিল ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তের নতুন ছবি ‘লাইমলাইট’-এর আউটডোর শুটিংও। 

এর মধ্যে দুবাইয়ে শোয়ের জন্য গিয়েছিলেন রাজ চক্রবর্তী এবং শুভশ্রী। তাঁদের ফিরে আসার কথা আজ সন্ধে ৭টায়। কিন্তু ঘূর্ণিঝড়ের পরিস্থিতিতে বন্ধ রাখা হয়েছে কলকাতা বিমানবন্দর। সে ক্ষেত্রে তাঁদের ফেরা নিয়ে একটা অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে। তবে এয়ারলাইন্সের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন তাঁরা। আশা করা যায়, নিরাপদে ফিরে আসার একটা বন্দোবস্ত হয়ে যাবে।