ফের এক স্বতন্ত্র কনসেপ্ট পরদায় তুলে ধরতে চলেছেন কমলেশ্বর মুখোপাধ্যায়। ছবির নাম ‘গুডনাইট সিটি’। একটি রাতের ঘটনা নিয়েই এই ছবির গল্প। আমাদের চার পাশে ঘটে যাওয়া বিভিন্ন অপরাধের কারণ অনুসন্ধান করতে গিয়ে পরিচালক দেখেছেন সাইকোলজিক্যাল ডিজঅর্ডারই যত নষ্টের মূল। ছবিতেও সেই আঙ্গিকটাকেই তুলে ধরতে চেয়েছেন কমলেশ্বর। আইন, সায়কায়াট্রি এবং ক্রাইমের ত্রিভুজই উঠে আসবে সেখানে।

তা, ছবির জন্য এমন অদ্ভুত বিষয় বাছলেন কেন? কমলেশ্বর জানালেন, ‘‘খবরের কাগজে রোজই বিভিন্ন ক্রাইম রিপোর্ট দেখতে পাই। সেখান থেকেই বিষয়টা মাথায় আসে।’’ ছবির কেন্দ্রে রয়েছে এক দুষ্কৃতী। তার পাশে থাকছে একজন পুলিশ অফিসার ও এক মনোবিদ। পুরো গল্পটাই উঠে আসে তিন জনের টেলিফোনে কথোপকথনের মাধ্যমে। কমলেশ্বরের মতে, ‘‘আমরা একটা মানুষকে তার সোশিয়ো বায়োগ্রাফির ভিত্তিতে বিচার করি।

কিন্তু সাইকো বায়োগ্রাফির কথা কেউ ভাবি না। সেই মানুষটার ছোটবেলা, পরিবারের ধরন, তার বেড়ে ওঠা, বর্তমান দিনযাপন... এই ভাবে কেউ ভাবে না। প্রশাসন বিচার করে কেবল মাত্র মানুষের অপরাধের উপর। কেন তার মধ্যে অপরাধমনস্কতা দানা বাঁধল, সেটা কেউ বিচার করে না। এই বিষয়টাই তুলে ধরে মনোবিদ।’’

শ্যুটিং‌য়ের একটি দৃশ্য

ছবির মুখ্য চরিত্র এক অপরাধীর ভূমিকায় রয়েছেন ঋত্বিক চক্রবর্তী। এই ছবিতে সম্ভবত চারটি লুকে দেখা যাবে তাঁকে। পুলিশ অফিসার এবং মনোবিদের ভূমিকায় যথাক্রমে শাশ্বত চট্টোপাধ্যায় ও ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। ঋত্বিকের ভাইয়ের চরিত্রে সৌরভ দাস অভিনয় করছেন। এ ছাড়া থাকছেন পায়েল সরকার, অরুণিমা ঘোষ, সুদীপ মুখোপাধ্যায়, মিশকা হালিম, সৌরভ চক্রবর্তী, সায়নী ঘোষ, কৌশিক কর প্রমুখ। ইতিমধ্যেই বেশ ক’দিনের শ্যুটিংও হয়ে গিয়েছে।

কলকাতার পাশাপাশি মাসাঞ্জোরেও শ্যুটিংয়ের কাজ হয়ে গিয়েছে। সূত্রের খবর, এখনও সতেরো দিনের মতো শ্যুটিং করা বাকি। সেই অংশের শ্যুট হবে বোলপুরে।