ফুটন্ত কড়াই, গরম তেলে ছাড়া হচ্ছে এক একটি চিংড়ি আর পাশেই কোটা হচ্ছে লাউ। অন্য দিকে মিক্সিতে নারকেল পেষাইয়ের ভোঁ ভোঁ আওয়াজ... পাওলি দামের লেক গার্ডেন্সের ফ্ল্যাটের রান্নাঘরে জামাইষষ্ঠীর সকালের ছবিটা এমনই। তিন-তিন রকম চিংড়ির পদ থাকছে জামাইষষ্ঠীর ভোজে। সকাল সকালই সেখানে পৌঁছে যাওয়ার কথা পাওলি আর অর্জুনের। অনুষ্ঠানের শুরুতেই পাঁচ রকম মিষ্টি, ফল সহযোগে অর্জুনকে বরণ করা হবে। তার পরে জামাইয়ের পছন্দ মতো কুচো চিংড়ি দিয়ে লাউ, সর্ষে চিংড়ি, চিংড়ি মাছের মালাইকারি রান্না করবেন পাওলির মা। রান্নাঘরে জোগাড়ের কাজে হাত লাগাবেন নায়িকাও। তাঁর নিজের অবশ্য ইলিশ পছন্দ হওয়ায় কালো জিরে দিয়ে ইলিশও থাকবে মেনুতে।
এ ছাড়া ভাত, শুক্তো, ডাল, পাঁচ রকম ভাজার সঙ্গে এঁচোড়ের ডালনা, হাঁসের ডিমের ঝোল, আলু দিয়ে কচি পাঁঠার ঝোল... মেয়ে-জামাইয়ের জন্য এলাহি আয়োজন।

অন্য দিকে রিয়া সেন ও শিবম তিওয়ারিরও এটা প্রথম জামাইষষ্ঠী। রিয়া কলকাতায় চলে এসেছেন। কিন্তু শিবম দিল্লিতে কাজে ব্যস্ত থাকায় জামাইষষ্ঠীর অনুষ্ঠান শুক্রবার পালন করবে সেন পরিবার। সে দিন শিবমের পছন্দের খাবারই রান্না হবে। তবে জামাইয়ের জন্য বাঙালি নয়, বার্মিজ় পদের আয়োজন হচ্ছে। খাও সুয়ে শিবমের খুব পছন্দ। সঙ্গে বার্মিজ় পদ্ধতিতে তৈরি মিক্সড নুডলস। চিকেন, মাটন পছন্দ বলে জামাইষষ্ঠীতে শিবমকে নানা ধরনের নন ভেজ বার্মিজ় পদ খাওয়ানোর কথা ভাবা হয়েছে বলে জানালেন রিয়া। জামাইয়ের পছন্দ না হলেও মেয়ে মাছ খেতে ভালবাসে বলে থাকবে ইলিশ মাছের পাতুরিও। 

কখনও কি ভেবেছেন জামাইষষ্ঠীর মেনুতে রাখবেন মাগুর মাছের ঝোল!  কিন্তু তথাগত মাগুর মাছ খেতে ভালবাসেন বলেই ইলিশ–চিংড়ির পাশাপাশি মাগুরও থাকবে পাতে, জানালেন দেবলীনা দত্ত মুখোপাধ্যায়। বাকি মেনুতে থাকছে পার্শে মাছ ভাজা, মৌরলা মাছ ভাজা, ইলিশ-বেগুনের ঝোল, সর্ষে বাগদা চিংড়ি, গলদা চিংড়ির মালাইকারি, দই মুরগি, আলু দিয়ে পাঁঠার মাংস। তবে ভোজের চেয়েও এ দিনের সাজের প্রতিই বেশি উৎসাহী দেবলীনা। বিয়েতে বাপের বাড়ি থেকে উত্তরাধিকার সূত্রে একটি সোনার নথ পেয়েছিলেন। বাঙালি সাবেক সাজের সঙ্গে সেটিই পরবেন। গলফ ক্লাব রোডের ফ্ল্যাটে দেবলীনা ও তথাগতর সঙ্গেই থাকেন দেবলীনার মা। মেয়ে-জামাইয়ের জন্য ধুতি-পাঞ্জাবি, শাড়ি কিনেছেন তিনি। আর তাঁর পাওনা উপহার অসম সিল্ক।

বিয়ের আগে হবু শাশুড়ি-জামাইয়ের সম্পর্কের তিক্ততা কেটে গিয়ে কখন যে মা-ছেলের সম্পর্ক তৈরি হয়ে গিয়েছে নিজেও জানেন না সৌরভ চক্রবর্তী। দু’বছরের বিবাহিত জীবনে এই প্রথম বার জামাইষষ্ঠীর দিনেই অনুষ্ঠান করতে পেরে খুশি শাশুড়ি-জামাই দু’জনেই। ‘‘মায়ের হাতের কষা মাংস আর আমের চাটনি জিভে জল আনে,’’ বলছেন মধুমিতা। এর সঙ্গে ডিমভরা সর্ষে ইলিশ, ভেটকি মাছের পাতুরি, চিংড়ি মাছের মালাইকারি। রান্নায় সাহায্য করবেন মধুমিতাও। প্রথম বছর জিন্স, টি শার্টের সঙ্গে আংটি দেওয়ার প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছিলেন সৌরভ। তাই এ বছর জামাইয়ের পছন্দের পোশাকই উপহার দেবেন শাশুড়ি-শ্বশুর। সৌরভও শাড়ি কিনেছেন তাঁর শাশুড়ি মায়ের জন্য।

সোশ্যাল মিডিয়ায় সদ্য বিবাহিত রাজ-শুভশ্রীর পিডিএ হরদমই দেখা যায়। কিন্তু জামাইষষ্ঠীর আয়োজন নিয়ে রহস্য জিইয়ে রাখতে চান তাঁরা। অরুণাচল থেকে শুটিং সেরে ফিরে এসেছেন রাজ। বোঝাই যাচ্ছে, আয়োজন হতে চলেছে এলাহি।