সোনির চ্যানেলের এই ধারাবাহিকে একটি ন’বছর বয়সি ছেলের সঙ্গে ১৯ বছর বয়সি যুবতীর বিয়ে ও তার চিত্রনাট্য, দৃশ্যায়ন ঘিরে বিতর্ক উঠেছে। সম্প্রতি এই অসম জুটির মধুচন্দ্রিমায় যাওয়া, এক বালকের নিজের প্রায় দ্বিগুণ বয়সি মেয়ের পিছু নেওয়া ইত্যাদি ঘিরে রীতিমতো ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেছেন দর্শক। ধারাবাহিকটি বন্ধ করার দাবিতে কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী স্মৃতি ইরানিকে উদ্দেশ্য করে একটি অনলাইন সাইটে পিটিশন শুরু হয়। পিটিশনে সই প্রায় ৬৭ হাজারেরও বেশি ছাড়িয়ে গিয়েছে।

সেখানে জানানো হয়েছে, প্রাইম টাইম অর্থাৎ রাত সাড়ে আটটার সময় যে কোনও সিরিয়ালকেই পারিবারিক ধারাবাহিক বলা হয়। এখানে একটি ৯ বছরের ছেলের ১৯ বছরের স্ত্রীকে সিঁদুর পরিয়ে দেওয়া, নানা অন্তরঙ্গ দৃশ্য দেখানো হয়েছে। ফলে তা দর্শক ও শিশুদের মনে কুপ্রভাব ফেলতে পারে। তাই অবিলম্বে ধারাবাহিকটি দেখানো বন্ধ করা উচিত।

ধারাবাহিকে বালকটির স্ত্রীয়ের ভূমিকাভিনেত্রী তেজস্বী প্রকাশ অবশ্য বলেন, ‘‘গল্পটি ‘প্রোগ্রেসিভ’। বইয়ের প্রচ্ছদ দেখে অনেকেই যেমন গল্পের মান বিচার করেন, তেমনই এ ক্ষেত্রে দর্শকেরা নিজেরা বিচারকের ভূমিকায় বসে অন্যের কাজ বিচার করছেন। আমার আর কী বা বলার থাকতে পারে?’’ তিনি ধারাবাহিকটিকে মেগাহিট সিরিজ ‘গেম অব থ্রোনস’-এর সঙ্গে তুলনা করে বলেন, ‘গেম...’-এ এটা দেখানো হলে দর্শকদের ভাল লাগে। অথচ ‘পেহেরদর...’-এ দেখানো হলেই তা নিয়ে বিতর্ক তৈরি হয়। প্রসঙ্গত, ‘গেম...’-এ সার্সি ল্যানিস্টারের সঙ্গে প্রায় ছেলের বয়সি লোরাস টাইরেলের বিয়ে ঠিক হলেও, তা আদতে পরিণতি পায়নি।

বাল্যবিবাহ নিয়ে ধারাবাহিক আগেও হয়েছে। উঠে এসেছে সামাজিক সমস্যা ও তা নিয়ে সচেতনতার গল্প। কিন্তু এ ক্ষেত্রে বাল্যবিবাহের সমস্যা নয়, তুলে ধরা হয়েছে অসম প্রেমের গল্প। মাত্র দু’সপ্তাহ ধরে চলা ‘পেহেরদর...’ বন্ধের যে রব উঠেছে গোটা ভারত জুড়ে, তাতে ধারাবাহিকের পরিণতি এখন কী হয়, সেটাই দেখার।