আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে সল্টলেকের ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অব ফ্যাশন টেকনোলজির ক্যাম্পাসে ভিড় অন্য দিনের চেয়ে বেশি। ক্যাম্পাসের ভিতরে হলুদ ট্যাক্সি, ক্যামেরা, রিফ্লেক্টর... না, ভাষা দিবস উপলক্ষে কোনও অনুষ্ঠান নয়, চলছিল রাজা চন্দের নতুন ছবি ‘সুলতান দ্য সেভিয়ার’-এর শুটিং।  

 একটা হলুদ ট্যাক্সির চালকের সিটে বসেছিলেন জিৎ। পরনে চালকের ইউনিফর্ম। ‘কাট’ বলতেই স্পট বয় এসে ছাতা ধরলেন জিতের মাথায়, এগিয়ে দিলেন রোদচশমা। মেকআপ ভ্যানে উঠে ডেকে নিলেন প্রতিবেদককে। প্রশ্ন-উত্তর পর্ব শুরু করার আগেই তিনি বললেন, ‘‘আজ আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। আমি খুব খুশি, একটা গুরুত্বপূর্ণ দিনে শুটিং শুরু করতে পেরে।’’ আগের ছবিতে (‘ইন্সপেক্টর নটি কে’) পুলিশ অফিসার ছিলেন, এই ছবিতে কি তা হলে ট্যাক্সি ড্রাইভার? ‘‘এই ছবিটায় আমার চরিত্রটিতে অন্তত তিনটে লেয়ার আছে। বেশ চ্যালেঞ্জিং। এই রকম কাজ আগে কখনও করিনি।’’ একাধিক স্তর যখন, তখন নিশ্চয়ই লুকেও বদল আসবে? ‘‘অবশ্যই। এখন আমাকে যেমন দেখছেন, তেমন থাকব না গোটা ছবিতে। যে লুকে আসব, সে ভাবে আমাকে আগে দেখেননি দর্শক। কিন্তু এখনই এই নিয়ে বিস্তারিত কিছু বলতে পারব না। তবে এটা ঠিক যে, সুলতানের চরিত্রটা নিয়ে আমি এতটাই ভাবছি যে, এখন স্বপ্নের মধ্যেও চলে আসছে সুলতান!’’ হেসে বললেন জিৎ। 

শুটিং স্পটে পাওয়া গেল নায়িকা প্রিয়ঙ্কাকেও। জিতের সঙ্গে সে অর্থে এটাই তাঁর প্রথম ছবি। এর আগে ‘রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার’-এ অভিনয় করলেও প্রিয়ঙ্কা ছিলেন আবির চট্টোপাধ্যায়ের বিপরীতে। অভিনেত্রী বললেন, ‘‘জিৎদার সঙ্গে আলাপ ‘চিরদিনই তুমি যে আমার’ ছবির সময় থেকেই। কিন্তু ওই ছবির পর তো আমি অভিনয় থেকে সরে গেলাম। জিৎদা অনেক বারই বলেছেন, আমাদের একসঙ্গে কাজ করার কথা। এই জন্য ‘রয়্যাল বেঙ্গল...’-এর সুযোগটা এসেছিল। প্রেগন্যান্সি, ছেলে সহজের জন্ম ইত্যাদির পর এখন আমি আবার ছবিতে পুরোপুরি কামব্যাক করেছি। তাই এখন জিৎদার সঙ্গে কাজ করাটা আমার জন্য বেশ গুরুত্বপূর্ণ।’’ ওজন অনেকটাই কমিয়ে ফেলেছেন তিনি। সেটা কি এই ছবির জন্যই? ‘‘একজন অভিনেত্রীর চেহারা ঠিকঠাক রাখা জরুরি। এই জন্য রোজ দু’ঘণ্টা জিমের জন্য বরাদ্দ। জানেন, অনেক দিন পর আজ জিম মিস হল!’’ হেসে বললেন তিনি।

প্রিয়ঙ্কা, জিৎ ও রাজা চন্দ

‘সুলতান...’-এ তাঁর চরিত্র প্রসঙ্গে জানালেন, ‘‘সহজ-সরল, হইচই পছন্দ করা একটা মেয়ের চরিত্রে অভিনয় করছি। যে নিজের চেয়েও চারপাশের ব্যাপার নিয়ে বেশি চিন্তা করে এবং তাতে জড়িয়ে পড়ে।’’ এই ছবির পর স্মরণজিৎ চক্রবর্তীর ‘ক্রিসক্রস’ গল্প অবলম্বনে বিরসা দাশগুপ্তের ছবিতে দেখা যাবে প্রিয়ঙ্কাকে। আজই মুক্তি পেয়েছে তাঁর নতুন ছবি ‘কায়া’।

‘সুলতান দ্য সেভিয়ার’ নিশ্চয়ই রিমেক নয়? ‘‘না... রিমেক নয়। আমাদের একটা থিংক ট্যাঙ্ক আছে। সেই ট্যাঙ্কের সদস্যদের মধ্যে বিভিন্ন প্লট নিয়ে তুমুল তর্ক-বিতর্ক হয়। আর এই ঝগড়া করতে করতেই তৈরি হয়ে যায় ছবির গল্প। এটাও তাই। ফাইনাল স্ক্রিপ্টটা লিখেছেন এই টিমের অংশুমান, প্রত্যুষ ও প্রমিত তিন জন মিলে। ‘সুলতান...’ পুরোদস্তুর কমার্শিয়াল ছবি। ছবিতে যেমন অ্যাকশন আছে, তেমন ইমোশনও আছে। বয়স্ক মানুষদের বেশি ভাল লাগবে। ‘সুলতান’-এ জিতের চরিত্রে যেমন কালার শেড আছে, তেমন পাবেন গ্রে শেডও। প্রিয়ঙ্কা যে চরিত্রে অভিনয় করছে, তাতে ওকে দর্শক আগে কখনও দেখেননি। জিৎ ভীষণ ভাল হোমওয়ার্ক করেছে,’’ বললেন পরিচালক রাজা চন্দ।

ট্যাক্সি চালক জিৎ

বাংলাদেশের অভিনেতা মিম-ও এই ছবিতে আছেন। তা হলে এটাও কি বাংলাদেশের সঙ্গে যৌথ ভাবে... ‘‘এখনই এ নিয়ে কিছু বলতে চাই না। তবে এটা ঠিক যে, বাংলাদেশে জিতের প্রচুর ভক্ত রয়েছেন। তাঁদের কথা তো মাথায় রাখতেই হবে,’’ বললেন পরিচালক।

আরও পড়ুন: নচিকেতার নীলাঞ্জনা এ বার বড় পরদায়

 বাংলাদেশের ভক্তদের কথা মাথায় রেখেই সামনের ইদে মুক্তি পাবে ‘সুলতান দ্য সেভিয়ার’। এ বার দেখার, পরদায় সুলতান কতটা রাজত্ব করতে পারেন!