গত কয়েক দিন ধরে যাঁর উপর থেকে পাপারাৎজ়ি এক দণ্ড চোখ সরায়নি, তিনি সোনম কপূর। বিয়ে, হানিমুন, কান চলচ্চিত্র উৎসব, ছবির প্রচার... ফ্ল্যাশলাইটের কেন্দ্রে সোনম কপূর আহুজা।

স্বামী আনন্দের সঙ্গে দু’দণ্ড সময় কাটানোর উপায় নেই তাঁর। নবদম্পতিকে কখনও এয়ারপোর্টে, কখনও লন্ডনের রাস্তায়, কখনও বা দিল্লিতে দেখা যাচ্ছে। ‘বীরে দি ওয়েডিং’-এর প্রচারেও তাঁকে বিয়ে নিয়ে প্রশ্ন করা হচ্ছে। প্রথমে অনিচ্ছা প্রকাশ করলেও মন খুলেই জবাব দিচ্ছেন সোনম। বিয়ের পর স্বামী আর শ্বশুরবাড়ির জন্য নাকি সময়ই দিতে পারছেন না? ‘‘শ্বশুরবাড়ি শব্দটা আমার একদম পছন্দ নয়। আমি যখন থেকে আনন্দের সঙ্গে আছি, তখন থেকে ওর বাড়িটা আমার বাড়ি। শ্বশুরবাড়ি বলে কখনও ভাবিনি,’’ বললেন বরাবরের স্পষ্টবক্তা সোনম। ‘বীরে দি ওয়েডিং’-এর শুটিংয়ের ঠিক আগেই আনন্দের সঙ্গে তাঁর এনগেজমেন্ট হয়। আবার ছবি রিলিজ়ের ঠিক আগেই বিয়ে। সোনম অবশ্য বলছেন, ‘‘সবটাই কাকতালীয়। এগুলো পরিকল্পনা করে হয়নি। ঘটে গিয়েছে।’’ তবে তিনি আর আনন্দ দু’জনেই যে পরিকল্পনা করে একে অপরের সঙ্গে নাম-পদবি জুড়েছেন, তা বোঝাই যাচ্ছে। সোনম নামের সঙ্গে আহুজা লিখবেন, প্রত্যাশিত ছিল। কিন্তু আনন্দ তাঁর নামের সঙ্গে সোনমের আদ্যাক্ষর যোগ করে আনন্দ এস আহুজা হওয়ার পরেই সোশ্যাল মিডিয়া সরগরম হয়ে ওঠে। সোনম অবশ্য এ সবের কোনও কিছুতেই আমল দিতে নারাজ। তিনি আপন খেয়ালে মগ্ন!

সামনে তাঁর দুটো ছবি মুক্তি পাচ্ছে। ‘সঞ্জু’ এবং ‘বীরে...’। দ্বিতীয় ছবিটি তাঁর হোম প্রোডাকশনের। বোন রিয়া ছবির অন্যতম প্রযোজক। বোনের সঙ্গে কাজ করার কি আলাদা মজা? ‘‘মিউজ়িক নিয়ে রিয়ার জ্ঞান অপরিসীম। খেয়াল করে দেখবেন ‘আয়েশা’, ‘খুবসুরত’ বা ‘বীরে...’র গানগুলো খুব ভাল। আর হ্যাঁ, রিয়ার ছবির সেটে খাবারও খুব ভাল থাকে,’’ স্বভাবসিদ্ধ ঢঙে হাসতে হাসতে বললেন সোনম। একটু থেমে যোগ করলেন, ‘‘রিয়া আমার বোন বলে হয়তো একটু বেশিই বলছি। ও প্রযোজক হিসেবে খুব নিরপেক্ষ। অভিনেতা থেকে স্পটবয় সকলকে সমান দেখে। আর এর কৃতিত্ব আমার মা-বাবার। ছোটবেলা থেকেই আমাদের শেখানো হয়েছে, তোমার চেয়ে ভাল কেউ নয়, কিন্তু তোমার চেয়ে কমও কেউ নয়।’’

সোনম-আনন্দ

‘বীরে...’তে সোনমের সঙ্গে করিনা কপূর খান, স্বরা ভাস্করের মতো অভিনেত্রীরা রয়েছেন। ট্রেলার আর গানই বুঝিয়ে দিচ্ছে ছবির গ্র্যাঞ্জার। সোনম বলছিলেন, নারী স্বাধীনতা, আত্মনির্ভরতার মতো বিষয়গুলোকে খুব সহজে ছবির মধ্য দিয়ে বুঝিয়েছেন পরিচালক শশাঙ্ক ঘোষ। যাঁর সঙ্গে তিনি এর আগে ‘খুবসুরত’ করেছেন। সোনম নিজে এই ছবির মধ্য দিয়ে কী বার্তা দিতে চান? ‘‘নিজের ইচ্ছেমতো জীবন যাপন করো। বিয়ে করতে ইচ্ছা হলে করো। বিয়েতে আপস না করে বিবাহ বিচ্ছেদ করতে হলে তা-ও করো। মোদ্দা কথা হল, স্বাধীন ভাবে নিজের জীবন উপভোগ করো।’’

এই ছবিতে কাজ করতে করতে করিনা, স্বরা আর শিখা তালসানিয়ার সঙ্গে বেজায় বন্ধুত্ব হয়ে গিয়েছে সোনমের। কেউ কারও প্রশংসা করতে শুরু করলে থামছেনই না। তবে এঁদের মধ্যে স্বরার সঙ্গে সোনমের বন্ধুত্ব আরও গাঢ়। আর প্রিয় বন্ধুকে নিয়ে সোনম কী বলছেন? ‘‘স্বরা অত্যন্ত সাহসী এবং সংবেদনশীল। ইন্ডাস্ট্রিতে এ রকম কাউকে আমি পাইনি এত দিন। তাই ও আমার এত ভাল বন্ধু। স্বরা আর কিছু দিনের মধ্যেই রাজনীতিতে নামবে। তখন আমি ওকেই ভোট দেব। আমাকে অনুসরণ করে আপনারাও কিন্তু স্বরাকেই ভোট দেবেন,’’ সাক্ষাৎকারের শেষে সোনম কপূর আহুজার গুগলি!

,