দইয়ের স্যান্ডউইচ

উপকরণ: পাউরুটি ৬ টুকরো, টক দই ১ কাপ, গোলমরিচ গুঁড়ো ১ চা চামচ, চিনি এক চিমটি, পাতিলেবুর রস ১ চা চামচ, শসা অর্ধেক, ধনে পাতা কুচি ২ টেবিল চামচ, টম্যাটো কুচি ২ টেবিল চামচ, ক্যাপসিকাম কুচি ১ টেবিল চামচ, নুন স্বাদ মতো, মাখন প্রয়োজন মতো।

প্রণালী: পাউরুটির চার ধার কেটে নিন। একটি বাটিতে, জল ঝরানো টক দই, গোলমরিচ গুঁড়ো, নুন, চিনি, পাতিলেবুর রস, শসা কুচি, ধনে পাতা কুচি, টম্যাটো কুচি, ক্যাপসিকাম কুচি একসঙ্গে ভাল করে মিশিয়ে নিন। দুটো পাউরুটির মাঝে পুরু করে স্যান্ডউইচের পুর ভরুন। পাউরুটির বাকি দু’পাশে মাখন লাগিয়ে গ্রিল করুন। গরম গরম পরিবেশন করুন স্যান্ডউইচ।

কড়ি পকোড়া 

উপকরণ: পকোড়ার জন্য: বেসন ১ কাপ, পেঁয়াজ কুচি আধ কাপ, জোয়ান আধ চা চামচ, কাঁচা লঙ্কা কুচি ১ চা চামচ, আদা বাটা আধ চা চামচ, ধনে পাতা কুচি ২ টেবিল চামচ, নুন স্বাদ মতো, হলুদ গুঁডো় এক চিমটি, শুকনো লঙ্কা গুঁড়ো আধ চা চামচ, ঘি ১ টেবিল চামচ, সাদা তেল ভাজার জন্য। কড়ির জন্য: টক দই দেড় কাপ, বেসন ১ কাপ, হলুদ আধ চা চামচ, পাতিলেবু ১টি, শুকনো লঙ্কা গুঁড়ো আধ চা চামচ, ভাজা জিরে গুঁড়ো আধ চা চামচ, মেথি আধ চা চামচ, চেরা কাঁচা লঙ্কা ৩-৪টি, কারি পাতা ১০-১২টি, নুন স্বাদ মতো, সাদা তেল প্রয়োজন মতো। ফোড়নের জন্য: সরষের তেল ১ টেবিল চামচ, ঘি ১ চা চামচ, সরষে আধ চা চামচ, শুকনো লঙ্কা ২টি, হিং এক চিমটি, কারি পাতা ৫-৬টি।

প্রণালী: একটি বাটিতে বেসন, পেঁয়াজ কুচি, জোয়ান, কাঁচা লঙ্কা কুচি, ধনে পাতা কুচি, আদা, নুন, হলুদ, শুকনো লঙ্কা গুঁড়ো এবং ঘি একসঙ্গে মিশিয়ে নিন। তাতে সামান্য জল দিয়ে মেখে নিন। কড়াইয়ে তেল গরম করে মিশ্রণ থেকে অল্প অল্প করে নিয়ে পকোড়া ভেজে তুলে নিন। অন্য দিকে আর একটি ছোট বাটিতে দই, বেসন, দু’কাপ জল, হলুদ গুঁড়ো, নুন, চিনি, পাতিলেবুর রস, শুকনো লঙ্কা গুঁড়ো, ভাজা জিরে গুঁড়ো একসঙ্গে ফেটিয়ে নিন। ক়ড়াইয়ে তেল গরম করে মেথি, চেরা কাঁচা লঙ্কা এবং কারি পাতা ফোড়ন দিয়ে আঁচ কমিয়ে দিন। তাতে এ বার দইয়ের মিশ্রণ ঢেলে দিন। মিশ্রণ ফুটে উঠলে আদা ও রসুন বাটা দিন। ঘন ঘন নাড়তে থাকুন। অন্য দিকে আর একটি পাত্র আঁচে বসিয়ে সরষের তেল ও ঘি একসঙ্গে গরম করুন, তাতে সরষে, কারিপাতা, শুকনো লঙ্কা ও হিং ফোড়ন দিয়ে নামিয়ে নিন। দইয়ের গ্রেভিতে এ বার পকোড়া দিন। হালকা নেড়ে উপর থেকে তড়কা ছড়িয়ে নামিয়ে নিন।

আম্রখণ্ড

উপকরণ: জল ঝরানো টক দই ১ কাপ, পাকা আমের শাঁস বা পাল্প ১ কাপ, এলাচ গুঁড়ো এক চিমটি, চিনি আধ কাপ, আমের টুকরো অল্প, বাদামকুচি সাজানোর জন্য, খোয়া ক্ষীর সামান্য।

প্রণালী: আমের শাঁস বার করে ভাল করে ছেঁকে নিন। চিনি গুঁড়ো করে রাখুন। একটি বড় বাটিতে জল ঝরানো টক দই, আমের শাঁস, চিনি গুঁড়ো ও এলাচ একসঙ্গে মিশিয়ে নিন। পরিবেশন করার পাত্রে আম-দই রেখে উপর থেকে আমের টুকরো, বাদামকুচি এবং খোয়া ক্ষীর ছড়িয়ে দিন। ফ্রিজে রেখে ঠান্ডা করে পরিবেশন করুন আম্রখণ্ড।

দই বেগুন

উপকরণ: বেগুন ৪টি, টক দই ১ কাপ, জিরে ১ চা চামচ, হিং এক চিমটি, পেঁয়াজ ১টি, আদা-রসুন বাটা ১ চা চামচ, বেসন ২ টেবিল চামচ, হলুদ ১ চিমটি, লঙ্কা গুঁড়ো আধ চা চামচ, ধনে গুঁড়ো আধ চা চামচ, গরমমশলা গুঁড়ো আধ চা চামচ, কসুরি মেথি আধ চা চামচ, সাদা তেল প্রয়োজন মতো, চিনি অল্প, নুন স্বাদ মতো।

প্রণালী: বোঁটা-সহ বেগুন চার টুকরো করে কেটে নুন-হলুদ মাখিয়ে ভেজে নিন। কড়াইয়ে তেল গরম করে হিং ফোড়ন দিন। তাতে একে একে পেঁয়াজ কুচি, আদা-রসুন বাটা, হলুদ, ধনে, লঙ্কা গুঁড়ো, নুন ও চিনি দিন। বেসন ও দই ফেটিয়ে দিয়ে দিন। প্রয়োজনে অল্প জল দিতে পারেন। গ্রেভি ফুটে উঠলে বেগুন, গরমমশলা গুঁড়ো, কসুরি মেথি দিন। পাঁচ মিনিট পর নামিয়ে নিন।

 

দইয়ের শাহী কাবাব

উপকরণ: জল ঝরানো টক দই আধ কিলো, বেসন ১ কাপ, পেঁয়াজ কুচি আধ কাপ, ধনে পাতা কুচি ৪ টেবিল চামচ, কাঁচা লঙ্কা কুচি ১ টেবিল চামচ, আদা এক টুকরো, গরমমশলা গুঁড়ো ১ চা চামচ, ভাজা মশলা (ধনে ও জিরে) গুঁড়ো ১ চা চামচ, চাটমশলা ১ চা চামচ, নুন স্বাদ মতো, চিনি এক চিমটি, আমন্ড-কাজু বাদাম-পেস্তা কুচি ৩ টেবিল চামচ, ময়দা সামান্য, সাদা তেল ভাজার জন্য।

প্রণালী: একটি বাটিতে সারা রাত ধরে জল ঝরিয়ে রাখা টক দইয়ের সঙ্গে একে একে বেসন, পেঁয়াজ কুচি, ধনে পাতা কুচি, কাঁচা লঙ্কা কুচি, আদা বাটা, গরমমশলা গুঁড়ো, ভাজা জিরে গুঁড়ো, চাটমশলা, নুন, চিনি এবং আমন্ড-কাজু বাদাম-পেস্তা কুচি একসঙ্গে ভাল করে মেখে মণ্ড তৈরি করুন। দু’হাতে সামান্য ময়দা নিয়ে মণ্ড থেকে ছোট ছোট লেচি কেটে কাবাবের আকারে গ়ড়ে নিন। ননস্টিক পাত্রে তেল গরম করে কাবাবের দু’পিঠ লালচে করে ভেজে তুলে নিন। কাবাবের উপর সামান্য চাট মশলা ছড়িয়ে দিন। গরম গরম পরিবেশন করুন দইয়ের শাহী কাবাব।

ছবি: শুভেন্দু চাকী

আপনি কি নিজের অভিনব রান্নার রেসিপি পত্রিকায় প্রকাশ করতে চান? তবে সেই রান্নার ছবি তুলে নাম, ঠিকানা ও ফোন নম্বর-সহ মেল করুন এই মেল আইডিতে patrika@abp.in