মুখের সৌন্দর্যের অনেকটাই নির্ভর করে চোখের উপরে। কিন্তু চোখের ভারী মেকআপ এখন অতটাও হিট নয়। বরং ঠোঁটে গাঢ় রং ও চোখের হালকা মেকআপই ফ্যাশন জগতে নতুন সংজ্ঞা তৈরি করছে। এই ধরনের লুক তৈরি করা সম্ভব মাসকারা দিয়েই। 

 

মাসকারার আশকারায়

ফ্ল্যাটারি ফ্রিঞ্জ: ভলিউমাইজ়িং মাসকারা ওয়ান্ড দিয়ে কালো মাসকারা চোখের পাতায় লাগিয়ে নিন। শুকিয়ে গেলে আর এক বার মাসকারা লাগান। চোখের পল্লব খুব ঘন না হলে ফল্‌স আই ল্যাশও ব্যবহার করতে পারেন।

পয়েন্টেড লুক: পুরো চোখে না লাগিয়ে চোখের মাঝ বরাবর ল্যাশে মাসকারা লাগিয়ে দেখুন। এতে চোখের মাঝের আই ল্যাশ একটু উঠে থাকবে। ছোট চোখে এই লুক বেশ ভাল লাগে। বড় চোখে এই পয়েন্টেড লুক করতে পারেন চোখের বাইরের দিকের কোণে।

রঙিন: বৈদ্যুতিক নীল, পান্নারঙা সবুজ বা কমলা মাসকারা চোখের পাতায় লাগিয়ে নিলেই হল। অন্য মেকআপের দরকার পড়বে না।

গ্লিটারিং: সোনালি, রুপোলি বা তামাটে... ধাতব রঙের চমক থাকুক চোখে। চোখের পাতায় উজ্জ্বল রং ধরে রাখতে পারে পুরো লুক।

লোয়ার ল্যাশ: চোখের উপরে নয়, বরং নীচের ল্যাশে মাসকারা লাগাতে হবে। চোখের উপরে হালকা শ্যাডো ছাড়া কিছু লাগাবেন না। এই লুকে চোখের উপরের পাতায় বেশি মেকআপ না করাই ভাল।

 

মাসকারা ব্রাশ

যে ধরনের লুকই ট্রাই করুন না কেন, তার জন্য মাসকারার ব্রাশ ঠিকঠাক হওয়া জরুরি।  

ক্লাসিক ওয়ান্ড: এই ব্রাশ বাজারে সবচেয়ে সহজে পাওয়া যায়। এর ব্রিস্‌ল সোজা ও মাঝারি ঘনত্বের হয়ে থাকে।

ট্যাপার্‌ড কুম্ব: এই ধরনের মাসকারার ব্রিস্‌ল ক্রমশ সরু হয়ে আসে মুখের কাছে। ফলে চোখের কোণেও ভাল করে মাসকারা লাগানো যায়।

কার্ভড কুম্ব: একটু বাঁকানো এই মাসকারা চোখের পাতা কার্ল করতে সাহায্য করে। মাসকারা লাগানোর সময়ে এক জায়গায় জমেও যায় না।

বল মাসকারা: এই ধরনের মাসকারার ব্রিস্‌ল গোল বলের মতো হয়। ফলে একসঙ্গে পুরো চোখের পাতা কভার না করে অল্প অল্প করে মাসকারা লাগানো যায়। এতে চোখের পল্লবে সমান ভাবে মাসকারা ছড়িয়ে পড়ে।

 

মাসকারার রকমফের

পাউডার মাসকারা: এই ধরনের মাসকারার ব্যবহারবিধি একটু অন্য রকম। কয়েক ফোঁটা জল দিয়ে এই মাসকারা ব্যবহার করতে হয়। 

ক্রিম মাসকারা: এই মাসকারায় ভলিউম পাওয়া যায় সহজেই। তবে এই মাসকারা স্মাজ করেও বেশি।

লিকুইড মাসকারা: এটি সব দোকানেই পেয়ে যাবেন। বহুল ব্যবহৃত মাসকারা। এই মাসকারা ওয়াটার রেজ়িস্ট্যান্ট ও সলিউব্‌ল এই দুই রকমের পাওয়া যায়।

লেংদেনিং মাসকারা: এই ধরনের মাসকারার ব্রিস্‌ল অনেক ঘন হয়। ফলে আই ল্যাশ ঘন না হলে এই মাসকারা ব্যবহার করা ভাল।

ভলিউমাইজ়িং মাসকারা: ওয়্যাক্স ও সিলিকন পলিমার ব্যবহার করা হয় বলে এই ধরনের মাসকারায় চোখের পাতা বেশ ঘন দেখায়। 

নন ক্লাম্পিং মাসকারা: অনেক সময়েই চোখের পাতায় মাসকারা জমে গিয়ে খুব বাজে দেখায়। তা ঠিক করতে গেলে আরও ঘেঁটে যায়। সে ক্ষেত্রে ব্যবহার করতে পারেন এই মাসকারা। এতে গ্লিসারিন ও সিল্ক এক্সট্র্যাক্ট থাকায় খুব ভাল ফিনিশ দেয়। আর জমাটও বাঁধে না।

 

মাসকারা লাগাবেন কী ভাবে?

• প্রথমেই চোখের বেসিক মেকআপ করে নিতে হবে। প্রাইমার, ফাউন্ডেশন, আইশ্যাডো, আই লাইনার ব্যবহার করে নিন। সব শেষে আসে মাসকারার পালা।

• এ বার ল্যাশ কার্লার দিয়ে ল্যাশ কার্ল করে নিন।

• রং বাছুন কমপ্লেকশন অনুযায়ী। এখন নীল, সবুজ, কমলার মতো উজ্জ্বল রং ও গ্লিটার মাসকারা বেশ ইন। অনুষ্ঠান বা পার্টির থিম অনুযায়ী বেছে নিন মাসকারা।

• প্রথমে এক কোট মাসকারা লাগিয়ে সেটা শুকিয়ে যেতে দিন। পরে আর এক কোট লাগিয়ে নিন।

• চোখের নীচের পাতায় মাসকারা লাগানোর সময়ে একটা চামচ ধরে তার উপরে মাসকারা লাগান। এতে গালে দাগ লাগার ভয় থাকবে না। 

• মাসকারা তুলতে নারকেল তেল বা অলিভ অয়েল ব্যবহার করুন। 

• মাসকারা লাগানোর সময়ে চোখে তা জমে গেলে টুথব্রাশ দিয়ে ছাড়িয়ে নিতে পারেন।

পছন্দসই মাসকারা বাছার আগে কিন্তু ব্যবহারবিধি মাথায় রাখা জরুরি।

মডেল: বিবৃতি; 

মেকআপ: কাজু গুহ; 

ছবি: দেবর্ষি সরকার লোকেশন: ভর্দে ভিস্তা ক্লাব, চকগড়িয়া