‘বাজিরাও মাস্তানি’তে তাঁর অভিনয় মুগ্ধ করেছিল ফ্যানদের। কিন্তু রণবীর সিংহ মনে করছেন অভিনয় জীবনে তাঁর অন্যতম চ্যালেঞ্জ হল ‘পদ্মাবতী’ ছবিতে আলাউদ্দিন খিলজির চরিত্র। রণবীর বলছেন ‘‘এই চরিত্রে অভিনয় করাটা সব দিক থেকে কঠিন। শারীরিক হোক কী মানসিক। একজন অভিনেতা হিসেবে এটাই আমার সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। প্রায় একমাস কঠোর অনুশীলনের মাধ্যমে নিজেকে তৈরি করেছি। শ্যুটিংয়ে সব দেখেশুনে বনশালিজি খুশি।’’

‘বাজিরাও মাস্তানি’-তে শ্যুটিংয়ের সময় হোটেলের ঘরে আঠারো দিন ছিলেন তিনি। তবে এ বার আর হোটেল নয়। থাকছেন ফ্ল্যাটে। রণবীরের সাফাই ‘পদ্মাবতী’র শ্যুটিং শিডিউল আরও লম্বা। টানা ২১ দিন।

কিন্তু বি-টাউনে গুঞ্জন শ্যুটিংয়ের ফাঁকে দীপিকার সঙ্গে একান্তে সময় কাটানোর জন্যই নাকি স্পেশাল বন্দোবস্ত রণবীরের!

মেয়ের জন্য

প্রথম সিনেমা

সিনেমা তিনি অনেক করেছেন। সুপারহিরো মুভি হয়ে গেল বেশ কয়েকটা। তবু নিজের অভিনীত কোনও সিনেমা মেয়েকে দেখানোর সাহস পাননি স্কারলেট জোহানসন। ‘ক্যাপ্টেন আমেরিকা’, ‘লুসি’ বা ‘অ্যাভেঞ্জার’ — সবই নাকি মেয়ের জন্য বড্ড বেশি ‘ভায়োলেন্ট’। তবে তাঁর নতুন সিনেমা ‘সিং’ দেখাতে প্রিমিয়ারেই নিয়ে যাবেন রোজকে। ‘‘শজারু গান গাইছে দেখে নিশ্চয়ই বেশ মজা পাবে,’’ বলছিলেন ‘ম্যাচ পয়েন্ট’‌য়ের নায়িকা। তাঁর থ্রি-ডি অ্যানিমেটেড ছবি ‘সিং’য়ে এক ‘রক’ গায়িকা শজারুর চরিত্রে আছেন বত্রিশ বছরের স্কারলেট।

হৃতিক-দীপিকা জুটি?

একজন বলিউডের হার্টথ্রব। আরেক জন বলিউড নয়, সাড়া ফেলেছেন হলিউডেও।  কর্ণ জোহরের ধর্ম প্রো়ডাকশনসের ব্যানারে এই দু’ জন এবার নাকি একসঙ্গে রুপোলি পর্দায় আসতে চলেছেন। হ্যাঁ, জুটি বাঁধছেন হৃতিক রোশন ও দীপিকা পাড়ুকোন। হৃতিকের সঙ্গে ডেট নিয়ে কথাও হয়ে গেছে। মার্চ মাস থেকেই
শ্যুটিং শুরু করতে পারবেন বলে জানিয়েছেন তিনি। দীপিকাও ছবিটি করতে রাজি বলে শোনা যাচ্ছে। ছবির স্ক্রিপ্ট তাঁর বেশ মনে ধরেছে। সঞ্জয় লীলা বনশালির ‘পদ্মাবতী’র শ্যুটিং শেষ হলেই তাঁকে এই ছবির সেট-য়ে দেখা যাবে। তবে ছবিটির পরিচালক কে এখনও জানা যায়নি।

আবার হ্যারিসন ফোর্ড

বয়স চুয়াত্তর। তাতে কী! পর্দায় দেখলে বোঝা মুশকিল, তাঁর বয়স সত্তর না সতেরো! হ্যারিসন ফোর্ড। চৌত্রিশ বছর পর ‘ব্লেড রানার’‌য়ের সিকুয়েল নিয়ে আবার হাজির পর্দায়। ‘ব্লেড রানার ২০৪৯’। ইউটিউবে আসতে না আসতেই ভাইরাল হয়ে গেছে ছবির ট্রেলার। এই সিকুয়েলের পরিচালক রিডলি স্কট নন। তবে বড় পর্দায় ফোর্ডকে দেখতে পরের বছর পুজো পর্যন্ত অপেক্ষা করা ছাড়া উপায় নেই।