বাড়িতে ভাত রান্নার আগে মায়েরা বারবার চাল ধুয়ে জলটা ফেলে দেন। অথচ এই জলই আপনার ত্বককে করে তুলতে পারে আরও সুন্দর।

•চালধোয়া জলে প্রয়োজনীয় ভিটামিন, মিনারেল, অ্যামিনো অ্যাসিড থাকে এবং এটি ভাল অ্যান্টি-অক্সিডেন্টও।

•তুলোয় করে চালধোয়া জলটা নিয়ে সারা মুখে নিয়মিত লাগাতে পারেন। কয়েক মিনিট পর শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা জলে মুখ ধুয়ে নিন। এতে ত্বক হবে নরম, উজ্জ্বল। এই চাল কাজ করে ক্লিনজার হিসেবেও।

•এই জলের রোজকার ব্যবহার কমিয়ে দেয় অ্যাকনের সমস্যা।

•সানবার্নের সমস্যা থেকে রেহাই পেতে চালধোয়া ঠান্ডা জল মুখে লাগাতে পারেন।

•চুলের জন্যও চালধোয়া জল উপকারী। শ্যাম্পু করার পর ওই জল দিয়ে চুল ভিজিয়ে ভাল করে মাসাজ করুন। তার পর আবার পরিষ্কার জলে চুল ধুয়ে নিন। এটা সপ্তাহে এক বা দু’দিন করলে চুল হবে নরম, ফুরফুরে আর তরতাজা।

•আবার চুলের কন্ডিশনিং করতেও এই জলের জুড়ি মেলা ভার। চালধোয়া জলে কয়েক ফোঁটা ল্যাভেন্ডার, রোজমেরি, জেরানিয়াম এসেনশিয়াল অয়েল মিশিয়ে মাসাজ করে চুল ধুয়ে ফেলুন।

•অতিরিক্ত গরমে, প্রচণ্ড রোদে ত্বকে দেখা দেয় র‌্যাশের সমস্যা। অনেক সময় মুখে ফোলা ভাবও দেখা যায়। তা দূর করতে হাতিয়ার করতে পারেন চালধোয়া জলকে। এই জলে তুলো ভিজিয়ে তা আলতো করে মুখে লাগান। বেশ কিছুক্ষণ সে ভাবে রাখুন। জল শুকিয়ে গেলে আর এক বার মুখ ধুয়ে ফেলুন।

তাই চুল হোক বা ত্বক— রূপের বাহার আনতে সঙ্গী করতেই পারেন চালধোয়া জল।