বাংলা

১) যথাযথ বক্সে উত্তরটা অর্থাৎ ‘ক’, ‘খ’, ‘গ’ বা ‘ঘ’ লিখবে। ভুল হলে কেটে পাশে লেখো; ২) সংক্ষিপ্ত প্রশ্নের উত্তর নির্দিষ্ট স্থানে নির্দিষ্ট শব্দ সংখ্যায় দাও; ৩) পূর্ণমান ৫-এর প্রশ্ন প্রায়ই বিভাজিত থাকে। যেমন, ১+৪=৫, ১+১+৩=৫, এ ভাবে। প্রতিটি বিভাজিত প্রশ্নের উত্তরের জন্য আলাদা অনুচ্ছেদ করো। এখানেও প্রদত্ত মান সম্পর্কে সচেতন থাকতে হবে। এই প্রশ্নগুলো বেশির ভাগ ইদানীং তথ্যকেন্দ্রিক। তাই টেক্সটনির্ভর ও প্রশ্নানুযায়ী উত্তর লিখবে; ৪) নির্মিতি অংশে চারটি বিকল্প থাকে। অনেকেই জীবনীমূলক প্রবন্ধ রচনায় জোর দেয়। দেখা যায় প্রশ্নপত্রে দেওয়া তথ্যগুলো বাক্য বানিয়ে লিখে দেয়। কিন্তু বিতর্ক বা মানসচিত্র অনুযায়ী প্রবন্ধ লিখলে তাৎক্ষণিক ও ভাল লেখা যায়।  ৫) ভাষা সংস্কৃতির ইতিহাস থেকে বিগত বছরগুলোর প্রশ্ন ও নানা স্কুলের টেস্ট পরীক্ষার প্রশ্ন সাজিয়ে সাজেশন বানাও। ৬) ভুল বানান লিখো না। বাক্যগঠন ও যতিচিহ্নের ব্যবহারেও নির্ভুল থাকো।

গৌতম অধিকারী

হিন্দু স্কুল (কলকাতা) 

ইংরেজি

Part B-এর এমসিকিউতে অনেক সময় ঠিক উত্তরের সঙ্গে সামান্য পরিবর্তন করে বাকি অপশনগুলি দেওয়া হয়। তাই টেক্সট খুব খুঁটিয়ে পড়ো। বানানের উপরে নজর দিও। সাহিত্যধর্মী প্রশ্নের উত্তরে ছাত্রছাত্রীরা অনেক সময় সামারি লিখে দেয়। এটা ঠিক নয়। যেমন, use of personification in ‘The Poetry of Earth’ লিখতে দিলে প্রথমে personification বলতে কী বোঝায় সেটি লিখে তার পর Keats কী ভাবে Grasshopper, Cricket এবং Nature's Song-কে personify করেছেন, তা লিখতে হবে। Article-Preposition লেখার সময় শুধুমাত্র নম্বর লিখে ঠিক উত্তর লিখতে গিয়ে ছাত্রছাত্রীরা প্রশ্নের নম্বর উল্টোপাল্টা লেখে; বিষয়টা লক্ষ রাখতে হবে। Comprehension-এর উত্তর লেখার সময় যতটুকু প্রয়োজন, ততটুকুই লিখবে। Writing Skill-এ format ঠিক করে লেখা জরুরি। ছাত্রছাত্রীরা অনেক সময় প্রদত্ত hintগুলো ব্যবহার করে না। কিন্তু প্রতিটা hint-এর জন্য নম্বর নির্ধারিত রয়েছে। hint-গুলো লেখায় বাদ দিয়ে নয়। অনেক সময় ছাত্রছাত্রীরা writing অংশে যে বিষয়ে লিখতে দেওয়া হয়েছে, তা থেকে সরে গিয়ে যেটা তৈরি করে এসেছে সেগুলিই লিখে দেয়। ফলে নম্বর কাটা যায়। 

অদিতি রায় সান্যাল

কালিকাপুর রামকমল বিদ্যাপীঠ, সোনারপুর

পদার্থবিদ্যা

১) প্রশ্নে ‘সংজ্ঞা দাও’ না ‘বুঝিয়ে লেখো’ বলছে, ভাল করে পড়বে। ‘সংজ্ঞা দাও’ ধরনের প্রশ্নে বইয়ের ভাষায় উত্তর লিখতে হবে। ২) অঙ্কের ক্ষেত্রে ব্যবহার্য সূত্রটি লিখে, চিহ্নের অর্থ লিখে, অঙ্ক শুরু করবে। শেষে ঠিক একক-সহ উত্তর লিখতে হবে। ভুল একক লিখলে নম্বর কাটা যাবে। ৩) বহু প্রশ্নের উত্তরের সঙ্গে উপযুক্ত লেখচিত্র উত্তরের মান বাড়ায়। যেমন, আইনস্টাইনের আলোকতড়িৎ ক্রিয়ার ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ গতিশক্তি বনাম কম্পাঙ্কের লেখচিত্রের নতি (প্ল্যাঙ্কের ধ্রুবক) এবং ছেদকের (কার্য অপেক্ষক) ব্যাখ্যা দিতে পারলে ভাল। ৪) প্রয়োগমূলক প্রশ্নের ঝোঁক বাড়ছে। প্রয়োগগুলি প্রযুক্তিগত হলেও পদার্থবিদ্যার মূল নীতিটি লিখতে হবে। উদাহরণ: চুম্বক ব্রেকের ক্রিয়া, আলোকডায়োড, আলোক নিঃসারক ডায়োড ইত্যাদি। ৫) আলোকবিদ্যার অঙ্ক করার সময় একটি রশ্মিচিত্র এঁকে দিতে পারলে ভাল। না আঁকতে পারলে উত্তরে চিহ্নের ব্যাখ্যা লিখে দিতে হবে। ৬) তড়িৎচুম্বককত্ব থেকে সর্বাধিক সংখ্যক প্রশ্ন আসে। উত্তরে এককগুলি যত্ন সহকারে লিখবে। এই অংশে বিভিন্ন ভেক্টরের ভিতরের মধ্যবর্তী কোণগুলি সম্পর্কে ওয়াকিবহাল থাকবে। 

শোভনলাল চক্রবর্তী

পিএইচএসপিএস (যোধপুর পার্ক)

রসায়ন

ভৌত রসায়নে গাণিতিক বিষয়ে জোর দিতে হবে, নিউমেরিক্যালস-এ কার্যকরী সূত্র থাকলে লিখতে হবে। একক রূপান্তরে খেয়াল রাখতে হবে; পার্থক্য লেখার সময় মুখ্য বিষয়গুলি উল্লেখ করতে হবে। উপযুক্ত উদাহরণ থাকলে দিতে পারো। নির্দিষ্ট বিষয়ের ক্ষেত্রে লেখচিত্রের সাহায্যে ব্যাখ্যা দিলে ভাল। যেমন, অনাদর্শ দ্রবণের ধনাত্মক বিচ্যুতি এবং ঋণাত্মক বিচ্যুতি, এই পার্থক্যটা লেখার সময় লেখচিত্র অবশ্যই দেবে। কোনও সূত্র লেখার সময় নিজের শব্দবন্ধ ব্যবহার না করাই ভাল। পারলে সূত্রের সঙ্গে গাণিতিক রূপ দিতে পারো। গাণিতিক রূপ লেখার সময় প্রচলিত চিহ্ন ব্যবহার করবে। অজৈব রসায়নে সাধারণত রিজ়নিং, হোয়াট হ্যাপেনস— এই ধরনের প্রশ্ন থাকে। ব্যাখ্যা করার সঙ্গে সমীকরণ থাকলে অবশ্যই দিতে হবে; রাসায়নিক বিক্রিয়া লেখার সময় কোনও বিক্রিয়াজাত পদার্থের বিশেষ ধর্ম বা গন্ধ, এ রকম কোনও বৈশিষ্ট্য থাকলে তা উল্লেখ করতে পারো। জৈব রসায়নে ব্যাখ্যামূলক উত্তর লেখার সময় কোনও ইলেকট্রনিক প্রভাব যেমন, Inductive, Resonance ইত্যাদি যুক্ত থাকলে তা উল্লেখ করতে হবে। রূপান্তরের ক্ষেত্রে সাধারণ পদ্ধতি অবলম্বন করা ভাল। Name reaction লেখার সময় বিক্রিয়ার শর্ত, অনুঘটক, দ্রবণ, বিকারক ইত্যাদি ঠিক ভাবে উল্লেখ করতে হবে।

তুষার কান্তি হাজরা

পিএইচএসপিএস (যোধপুর পার্ক) 

জীববিদ্যা

জীববিদ্যায় ‘বংশগতি ও বিবর্তন’ অধ্যায় থেকে DNA বংশগত বস্তুর প্রমাণ, ইউক্রোমাটিন ও হেটারো ক্রোমাটিনের পার্থক্য, উদাহরণ-সহ জেনেটিক কোডের বৈশিষ্ট্য, ট্রান্সক্রিপশনের প্রারম্ভিক ও অন্তিম পর্যায়, ট্রান্সলেশন পদ্ধতিতে t-RNA-এর ভূমিকা-সহ গঠন থেকে প্রশ্ন আসে। মানুষের বিবর্তনের পর্যায়গুলিতে দেহ ভঙ্গিমা, করোটির আয়তন ও দেহ উচ্চতার পরিবর্তন; প্রাকৃতিক নির্বাচনের প্রকারভেদ ও জেনেটিক ড্রিফট থেকে প্রশ্ন আসে। ‘জনন’ অধ্যায়ে পরাগযোগের অভিযোজনগত বৈশিষ্ট্য, পুং ও স্ত্রী লিঙ্গধর উদ্ভিদের উৎপত্তি ও গঠন; মানুষের ডিম্বাশয়ের কলাসংস্থানিক গঠন ছবি-সহ দেখে রাখবে। রজঃচক্রের পরিবর্তনসমূহ গুরুত্বপূর্ণ। ‘জীববিদ্যা ও মানবকল্যাণ’ অধ্যায় থেকে পয়ঃপ্রণালীর আবর্জনা দূরীকরণ এবং বায়োগ্যাস তৈরিতে অণুজীবের ভূমিকা ভাল করে দেখা দরকার। প্রাণীর কৃত্রিম প্রজননকৌশল; উদ্ভিদ প্রজননে প্রবর্তন, নির্বাচন ও সংকরায়ন; ম্যালেরিয়া ও অ্যাসকারিয়াসিসের সংক্রমণ ও লক্ষণ অংশগুলি গুরুত্বপূর্ণ। ‘জৈবপ্রযুক্তি ও তার প্রয়োগ’ অধ্যায় থেকে ভেক্টরের প্রকারভেদ ও গঠন (চিত্র-সহ), ট্রান্সজেনেসিস, বায়োপেটেন্ট, জিনথেরাপি ও PCR পদ্ধতি দেখে রাখবে। ‘বাস্তুবিদ্যা ও পরিবেশ’ থেকে জীবগোষ্ঠীর আন্তঃক্রিয়া, বাস্তুতান্ত্রিক পর্যায়ক্রম, বায়ু ও জলদূষণ, ওজোন স্তরে ছিদ্রের কুপ্রভাব ইত্যাদি অংশ থেকে প্রশ্ন তৈরি করে রাখতে হবে।  

আশিস ভৌমিক

হুগলি ব্রাঞ্চ (গভর্নমেন্ট) স্কুল 

স্ট্যাটিসটিক্স

পরীক্ষার সময় Probability Density Function এবং Probability Mass Function ঠিক ভাবে চিহ্নিত করে তার পর অঙ্ক শুরু করবে (Function-এর Domain-এর দিকে খেয়াল রাখবে)। Nornal Distribution Curve-এর Point of inflection বার করতে দিলে তার x এবং y coordinate দুটোই লিখবে। Distribution Function আর Probability Function ঠিক ভাবে চিহ্নিত করবে। খেয়াল রাখবে Discrete Distribution Function-এর graph ‘Step Diagram’ হবে। Unbiased Test আর Unbiased Statistics-এর সংজ্ঞা মিশিয়ে ফেলবে না। Time Series অঙ্কের ক্ষেত্রে ‘Origin’ এব‌ং ‘Unit’ খেয়াল রাখবে। ‘Σ’ বা ‘∏’ (Sum বা Product) চিহ্ন ব্যবহার করার সময় সীমা সব সময় লিখবে। Testing of Hypothesis-এর ক্ষেত্রে Type I Error-এর সঙ্গে Level of Significance এবং Type II Error-এর সঙ্গে Power of the Test-এর সম্পর্ক খেয়াল রাখবে।

দেবজ্যোতি দত্ত

বিধাননগর গভর্নমেন্ট হাইস্কুল

অঙ্ক

Inverse-এর কোনও সমাধানের অঙ্কে দুটি সমাধান পাওয়া গেল। কিন্তু এদের মধ্যে একটি সমাধান মূল সমীকরণকে সিদ্ধ করে না। অপরটি করে। তখন দুটি উত্তর হিসেবে লিখলে কিন্তু নম্বর কাটা যাবে। Determinant-এর প্রমাণের অঙ্কে প্রতিটি ধাপে ডান দিকে পরিবর্তনগুলি অবশ্যই লিখবে। Indefinite-এ সামান্য একটা ‘C’ না লিখলে ১ নম্বর কাটা যাবে। অন্য দিকে, Definite-এর অঙ্কে একটি মাত্র ‘C’ দিয়ে পুরো অঙ্কটা করলে কিন্তু কোনও নম্বরই পাবে না। Integration-এর limit-এর অঙ্কে বাড়তি এবং ঘাটতি পদগুলি ঠিকঠাক লিখতে হবে। Area-র অঙ্কে ঠিকঠাক ছবি ছাড়া উত্তর মিললেও কোনও নম্বর পাওয়া যাবে না এবং একক না দিলে নম্বর কাটা যাবে। Maxima-Minima-র প্রুফ-এর অঙ্কে dy/dx = 0 করলেই উত্তরটা চলে আসে, কিন্তু মনে রাখবে হবে যত ক্ষণ না d2y/dx2 > 0 বা <0 অথবা Lf' বা Rf' পরীক্ষা করে Maxima বা Minima নিশ্চিত করা হচ্ছে, তত ক্ষণ প্রায় কিছুই হল না। চোঙ, গোলক, শঙ্কু ইত্যাদি অঙ্কে অবশ্যই চিত্র দিতে হবে। LPP-র অঙ্কে 5 নম্বর আছে এটা মাথায় রেখে ধাপগুলো আলাদা আলাদা করে লিখে পরে একসঙ্গে সাজাতে হবে। এর Graph-এর অঙ্কে common region-এ অবশ্যই shade দিতে হবে। 

বৃন্দাবন মণ্ডল

নারিকেলডাঙা হাইস্কুল (উ. মা.) 

বাণিজ্য 

কোনও MCQ ছেড়ে আসবে না। অযথা বেশি লিখবে না। অ্যাকাউনটেন্সি: (১) পেন্সিল দিয়ে ছক যথাযথভাবে টানবে। ছকের মাথায় In the books of... লিখতে ভুলবে না। (২) ছকে  Name of A/C, Date, Particulars, Amount, Dr.-Cr., Rs. লিখবে। (৩) কোনও অঙ্কে কোনও বিষয় স্পষ্ট করে উল্লেখ না থাকলে, তোমার অনুমানটিকে অবশ্যই অঙ্কের শেষে ‘Note’ আকারে দেবে। যেমন, P/L Appropriation A/C-এ Profit Sharing Ratio বলা না থাকলে ‘অংশীদারি আইন অনুসারে লাভ/ক্ষতি সমান হারে বণ্টন করা হল’ লিখে নোট দেবে। বিজ়নেস স্টাডিজ়: (১) পয়েন্ট আকারে উত্তর দেবে। (২) জানা প্রশ্নের উত্তরগুলি আগে লিখবে। (৩) ৪ নম্বরের উত্তর ২০০ শব্দের মধ্যে এবং ৬ নম্বরের এর উত্তর ৩০০ শব্দের মধ্যে দেবে। কস্ট: (১) Store Ledger-এর পদ্ধতি উল্লেখ করবে। Remarks Column-এ Opening Stock, Shortage, Closing Stock উল্লেখ করবে। (২) মজুরির পরিমাণের আগে Rs. লিখবে। ট্যাক্স: (১) থিয়োরি প্রশ্নের উত্তরেও ধারা লিখবে। (২) অঙ্কের হেডিং দেবে। (৩) Deduction/Exemption-এর ধারা লিখে অঙ্ক করবে।

শম্ভু চরণ ভৌমিক

উত্তরপাড়া রাষ্ট্রীয় উচ্চ বিদ্যালয়