Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২০ অগস্ট ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

ফল প্রকাশে গোলমাল, পুলিশের পরে হাজির মন্ত্রীও

আনুষ্ঠানিক ভাবে ফল প্রকাশের আগেই উচ্চ মাধ্যমিকের মেধা-তালিকা ফাঁস হয়ে যাওয়ার নজির আছে। তা নিয়ে বিতর্কও হয়েছে বিস্তর। আর সেই বিতর্ক ঠেকাতে গি

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ৩১ মে ২০১৪ ০৩:৩৭
Save
Something isn't right! Please refresh.
শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদের সভানেত্রী মহুয়া দাস। ছবি: শৌভিক দে।

শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদের সভানেত্রী মহুয়া দাস। ছবি: শৌভিক দে।

Popup Close

আনুষ্ঠানিক ভাবে ফল প্রকাশের আগেই উচ্চ মাধ্যমিকের মেধা-তালিকা ফাঁস হয়ে যাওয়ার নজির আছে। তা নিয়ে বিতর্কও হয়েছে বিস্তর। আর সেই বিতর্ক ঠেকাতে গিয়েই শুক্রবার, ফল ঘোষণার দিনে নতুন বিতর্কে জড়িয়ে পড়ল উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ।

ফলাফলের নির্যাস থেকে মেধা-তালিকা সংসদের তরফে প্রকাশিত এই সব তথ্য সাংবাদিক বৈঠকে বিলির সময়েই এ দিন কার্যত বেনজির গোলমাল বেধে যায়। এতটাই যে, চলে আসে পুলিশ। পরে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় সংসদের দফতরে গিয়ে কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বৈঠক করেন। কেন এই গোলমাল, তা খতিয়ে দেখার আশ্বাস দেন। পরীক্ষার ফল নিয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখিও হন তিনি। স্বশাসিত সংস্থা উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদে এ ভাবে শিক্ষামন্ত্রীর হাজির হওয়ার রেওয়াজ নেই। বিশেষত ফল প্রকাশের দিনে কোনও মন্ত্রীর সংসদে যাওয়ার নজির নেই এ রাজ্যে। শিক্ষামন্ত্রী অবশ্য জানান, তিনি এমনিই গিয়েছিলেন সংসদে।

গোলমাল কেন? এ দিন সকাল সাড়ে ৯টায় আনুষ্ঠানিক ভাবে ফল প্রকাশ করার কথা ছিল সংসদের। সেই অনুযায়ী সাংবাদিক বৈঠক শুরু করেন কর্তৃপক্ষ। সংসদের সভানেত্রী মহুয়া দাস ফল ঘোষণা শুরু করেন। আর তখনই পাশের একটি টেবিল থেকে ফলাফলের নির্যাস বিলি শুরু করে দেন সংসদ-কর্মীরা। রেওয়াজ হল, সাংবাদিক বৈঠকে সাংবাদিকদের হাতে হাতে সেগুলি দিয়ে দেওয়া। কিন্তু এ দিন তা না-হওয়ায় ওই টেবিল থেকে তা নেওয়ার জন্য সাংবাদিকদের মধ্যে হুড়োহুড়ি শুরু হয়ে যায়। ফল ঘোষণায় বিঘ্ন ঘটে। দ্বিতীয় দফায় গোলমাল শুরু হয় মেধা-তালিকা ঘোষণার পরে।

Advertisement

গোলমালের জেরে অপ্রস্তুত সংসদ-কর্তৃপক্ষ পুলিশে খবর দেন। বেলা সওয়া ১০টা নাগাদ পুলিশ আসে। তার কিছু পরে হাজির হন পার্থবাবু। ফি-বছর ফল প্রকাশ এবং ফলের নির্যাস, মেধা-তালিকা সংবাদমাধ্যমের হাতে তুলে দেয় সংসদ। কিন্তু সেই কাজে এ বারের মতো গোলমাল ও তার জেরে অপ্রস্তুত অবস্থা কখনও হয়নি বলে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন সংসদ-কর্মীদেরই একাংশ। গত বছর সেপ্টেম্বরে সংসদের সভানেত্রীর দায়িত্ব নিয়েছেন মহুয়াদেবী। এ বছরই প্রথম বার তিনি ফল প্রকাশ করলেন। কিন্তু সংসদের কর্মী-অফিসারদের মধ্যে যাঁরা দীর্ঘদিন এ কাজে যুক্ত থেকেছেন, তাঁরাই বা এই গোলমাল এড়াতে পারলেন না কেন, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।



মহুয়াদেবী জানান, মেধা-তালিকা যাতে ফাঁস না-হয়, সে-দিকে কড়া নজর রাখার নির্দেশ ছিল রাজ্য সরকারের। ঘোষণার আগে তিনি নিজেও মেধা-তালিকা দেখেননি বলে জানান মহুয়াদেবী। শেষ মুহূর্তে মেধা-তালিকা খোলায় তার বেশ কিছু প্রতিলিপি তৈরি করে বিলি করতে বিলম্ব হয়েছে বলে তিনি জানান।

কিন্তু গোপনতা রক্ষা করে ফল প্রকাশের কাজ করাই সংসদের কাছে প্রত্যাশিত। এক-আধ বার বিচ্যুতি ঘটলেও সাধারণ ভাবে সংসদ-কর্মীরা তা করেও থাকেন। এ বার তা হলে এই ধরনের জটিলতার সৃষ্টি হল কেন?

সংসদ-কর্মীদের একাংশের মতে, পালাবদলের পরে অনেক অভিজ্ঞ কর্মীকে বদলি করে দেওয়া হয়েছে। সমস্যার বীজ সেখানেই।

গোলমালের কারণ যাচাই করা হবে বলে জানান শিক্ষামন্ত্রী। সংসদ সূত্রের খবর, পার্থবাবু বৃহস্পতিবার রাতেই মহুয়াদেবীকে টেলিফোনে জানান, শুক্রবার, ফল প্রকাশের দিন তিনি সংসদের সদর দফতর বিদ্যাসাগর ভবনে যাবেন। এ দিন প্রায় ৪৫ মিনিট সভানেত্রীর সঙ্গে আলোচনার পরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন শিক্ষামন্ত্রী। সফল ছাত্রছাত্রীদের অভিনন্দন জানান তিনি, অসফল পড়ুয়াদের ভেঙে না-পড়ার পরামর্শও দেন। সেই সঙ্গেই পার্থবাবু জানান, মেধা-তালিকায় থাকা ছাত্রছাত্রীদের অভিনন্দন জানাতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজেই তাঁদের সঙ্গে যোগাযোগ করছেন।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement