Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৮ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

প্রেমিক ও তার বন্ধুদের বিরুদ্ধে গণধর্ষণের অভিযোগ

মোবাইলে আলাপ। তা থেকে প্রেম নিবেদন প্রেমিকের। সেই সূত্রেই প্রেমিকের সঙ্গে দেখা করতে এসেছিলেন মহিলা। কিন্তু প্রেমিক ও তার দুই বন্ধুর কাছে গণধ

নিজস্ব সংবাদদাতা
হাসনাবাদ ১৪ নভেম্বর ২০১৪ ০১:২৭
Save
Something isn't right! Please refresh.
Popup Close

মোবাইলে আলাপ। তা থেকে প্রেম নিবেদন প্রেমিকের। সেই সূত্রেই প্রেমিকের সঙ্গে দেখা করতে এসেছিলেন মহিলা। কিন্তু প্রেমিক ও তার দুই বন্ধুর কাছে গণধর্ষণের শিকার হলেন তিনি। পুলিশের কাছে প্রেমিকের বিরুদ্ধে এমনই অভিযোগ করেছেন মহিলা। মঙ্গলবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর ২৪ পরগনার হাসনাবাদ তালপুকুরের কুলডাঙা গ্রামে। প্রেমিক মারুফ গাজি এবং তার দুই বন্ধু কওসর গাজি ও বাপি মোল্লার বিরুদ্ধে হাসনাবাদ থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন ওই মহিলা। পুলিশ জানিয়েছে, অভিযুক্তরা এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যাওয়ায় কাউকে গ্রেফতার করা যায়নি। তবে তাদের খোঁজে তল্লাশি শুরু হয়েছে। বৃহস্পতিবার বসিরহাট আদালতে বিচারকের কাছে ওই মহিলা জবানবন্দি দিয়েছেন। টাকি হাসপাতালে মহিলার মেডিক্যাল পরীক্ষার ব্যবস্থা করেছে পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, সন্দেশখালি সরবেড়িয়া গ্রামে বাপের বাড়িতে থাকেন বছর ২৬ এর ওই বিবাহিত মহিলা। স্বামীর সঙ্গে বনিবনা না হওয়ায় এখন খোরপোশের মামলা চলছে। পুলিশকে ওই মহিলা জানান, কয়েক মাস আগে তাঁর মোবাইলে একদিন একটি মিসড্ কল আসে। পরিচিত কেউ মনে করে তিনি ওই নম্বরে পাল্টা ফোন করেন। তখন অপর প্রান্তে থাকা যুবক নিজেকে মারুফ গাজি বলে পরিচয় দেয়। তারপর থেকে প্রায়ই ফোন করতে থাকে মারুফ। এর মধ্যে সে ফোনেই একদিন প্রেম নিবেদন করে। পুলিশকে মহিলা জানিয়েছেন, গত মঙ্গলবার সকালে ফোন করে মারুফ তাঁর সঙ্গে দেখা করার জন্য পীড়াপিড়ি করতে থাকে। অনুরোধ এড়াতে না পেরে তিনি মারুফের কথা মতো বিকেলে হাসনাবাদের তালপুকুর বাজারে আসেন।

পুলিশের বক্তব্য মহিলা তাঁদের জানিয়েছেন, তালপুকুর বাজারের একটি দোকানে বেশ কিছক্ষণ অপেক্ষা করার পর সন্ধ্যা নাগাদ মারুফের সঙ্গে তাঁর দেখা হয়। দু’জনে কিছু সময় বাজারে কাটানোর পর রাত সাড়ে ৮টা নাগাদ মারুফ তাঁকে কাছেই একটি আমবাগানে নিয়ে যায় এবং ভয় দেখিয়ে ধর্ষণ করে। প্রতিবাদ করলে তাঁকে বিয়ের প্রতিশ্রুতিও দেয় মারুফ। এরপর তাঁকে বাড়ি পৌঁছে দেওয়ার নাম করে মারুফ তার দুই বন্ধুর সঙ্গে আলাপ করায়। এরপর ওই এলাকার একটি পার্কের পাশে জলাজমিতে নিয়ে গিয়ে ফের তিনজনে তাঁকে ধর্ষণ করে। তিনি চিত্‌কার করলে মারুফ ও কার বন্ধুরা তাঁকে খুনের হুমকি দেয় বলেও অভিযোগ। সারারাত ধরে তারা নাগাড়ে অত্যাচার চালিয়েছে বলে মহলা পুলিশকে জানান। অত্যাচারের ফলে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে তাঁকে জলকাদার মধ্যে ফেলে রেখে তাকা পালিয়ে যায়। সকালে মহিলা কোনওরকমে সেখান থেকে স্থানীয় বাজারে এসে লোকজনদের সব জানালে তাঁরাই তাঁকে হাসনাবাদ থানায় নিয়ে যায়।

Advertisement

কিন্তু শুধু ফোনের আলাপের সূত্রে একজনের ডাকে বাড়ি ছেড়ে এতদূরে চলে এলেন কেন জানতে চাইলে মহিলা বলেন, “একবার প্রতারিত হয়েছি। মারুফের সঙ্গে হঠাত্‌ই মোবাইলে পরিচয় হওয়ার পর মনে হয়েছিল নতুন সঙ্গী পেলাম। ভেবেছিলাম ওর সঙ্গেই নতুন জীবন শুরু করব। স্বপ্নেও ভাবতে পারেনি, আমাকে ডেকে নিয়ে এসে বন্ধুদের সঙ্গে নিয়ে এ ভাবে অত্যাচার করবে। ওদের চরম শাস্তি চাই আমি।”



Something isn't right! Please refresh.

আরও পড়ুন

Advertisement