×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

০৫ অগস্ট ২০২১ ই-পেপার

Cyclone Yaas: ইয়াস-এর তাণ্ডবের মধ্যেই গ্রামে বাঘ ঢুকে পড়ার গুজব রটল কুলতলিতে

নিজস্ব সংবাদদাতা
কুলতলি ২৬ মে ২০২১ ২১:৫৫
গ্রামে বাঘ ঢোকা আটকাতে দুর্যোগের মধ্যেই জাল মেরামতের প্রস্তুতি বনকর্মীদের।

গ্রামে বাঘ ঢোকা আটকাতে দুর্যোগের মধ্যেই জাল মেরামতের প্রস্তুতি বনকর্মীদের।
ছবি: পশ্চিমবঙ্গ বন দফতর সূত্রে পাওয়া।

অতি শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় ইয়াস-এর জেরে বিপর্যস্ত দক্ষিণ ২৪ পরগনার সুন্দরবনের বিস্তীর্ণ এলাকা। তার মধ্যেই জঙ্গল থেকে বাঘ বেরিয়ে আসার গুজব রটল কুলতলির মৈপিঠ উপকূল থানা এলাকায়।

বুধবার সকালে লোকালয়ে বাঘ দেখতে পান স্থানীয় এক মৎস্যজীবী। এরপর আতঙ্ক ছড়ায় এলাকায়। খবর পেয়ে প্রস্তুতি শুরু করেন কুলতলি বিট অফিসের বনকর্মীরা। যদিও পরে জানা যায়, সেখানে কোনও বাঘ লোকালয়ের কাছেই আসেনি। রাজ্যের প্রধান মুখ্য বনপাল বিনোদকুমার যাদব জানান, সম্ভবত বাঘরোল (ফিশিং ক্যাট) দেখেই বাঘের গুজব রটেছিল।

ইয়াস-এর জেরে প্রবল জলোচ্ছ্বাসে কুলতলি বিধানসভার ৭-৮ জায়গায় নদীবাঁধে ফাটল ধরেছে। ফলে বুধবার জল ঢুকেছে বেশ কিছু গ্রামের অন্দরে। রাতের জোয়ারে আরও কিছু এলাকায় বাঁধ ভেঙে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা বন দফতরের। কুলতলির তৃণমূল বিধায়ক গণেশ মণ্ডল বলেন, ‘‘সবাইকে আমরা সতর্ক থাকতে বলেছি। এলাকার বাসিন্দাদের নিকটবর্তী সাইক্লোন সেন্টারে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।’’

Advertisement

সুন্দরবনে গ্রাম লাগোয়া জঙ্গল থেকে বাঘ ঢুকে পড়া আটকাতে সীমানা বরাবর জাল বসানো হয়েছে বেশ কয়েক বছর আগেই। দক্ষিণ ২৪ পরগনার বিভাগীর বনাধিকারিক (ডিএফও) মিলন মণ্ডল জানিয়েছেন, ইয়াসে মোট ২০০ মিটার এলাকায় জাল ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। দ্রুত সেগুলি সারানোর কাজও শুরু হয়েছে। পাশাপাশি বনবিভাগের কিছু কার্যালয় বনকর্মীদের বেশ কিছু ক্যাম্প জল প্লাবিত হয়েছে।

Advertisement