Advertisement
০৫ ডিসেম্বর ২০২২

তৃণমূল যুব নেতার বিরুদ্ধে নালিশ প্রাক্তন বিধায়কের

যুব তৃণমূলের এক নেতা-সহ কয়েকজনের বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে তাঁকে খুনের চেষ্টার অভিযোগ দায়ের করলেন বাগদার প্রাক্তন তৃণমূল বিধায়ক দুলাল বর।

নিজস্ব সংবাদদাতা
বাগদা শেষ আপডেট: ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৫ ০৩:২৯
Share: Save:

যুব তৃণমূলের এক নেতা-সহ কয়েকজনের বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে তাঁকে খুনের চেষ্টার অভিযোগ দায়ের করলেন বাগদার প্রাক্তন তৃণমূল বিধায়ক দুলাল বর।

Advertisement

পুলিশ জানিয়েছে, হিবজুল রহমান মণ্ডল নামে অভিযুক্ত ওই যুব নেতা পলাতক। তবে তিনি যাঁর অনুগামী, বাগদার সেই তৃণমূল বিধায়ক তথা রাজ্যের মন্ত্রী উপেন বিশ্বাস দাবি করেছেন, ‘‘আক্রান্ত হওয়া বা হিবজুলের বিরুদ্ধে খুনের চেষ্টার অভিযোগ করা—সবই দুলালবাবুর নাটক।’’ এমনকী, দুলালবাবু ‘দলের কেউ নন’ বলেও মন্তব্য উপেনের।

উত্তর ২৪ পরগনা জেলা তৃণমূলের সভাপতি তথা রাজ্যের আর এক মন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক অবশ্য দুলালবাবুর সঙ্গে তৃণমূলের সম্পর্ক বা ‘হামলা’র ব্যাপারে মন্তব্য করেননি। শুক্রবার তিনি বলেন, ‘‘পুলিশকে তদন্ত করে দোষীদের ধরতে বলা হয়েছে।’’ পুলিশ জানিয়েছে, হিবজুলের খোঁজ চলছে।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বাগদায় মোটরবাইকে চেপে বাড়ি ফেরার পথে দুলালবাবুকে লক্ষ করে গুলি ছোড়ে দুষ্কৃতীরা। প্রাক্তন বিধায়কের কপাল ছুঁয়ে বেরিয়ে গিয়েছে সেই গুলি। তবে কয়েকটি সেলাই পড়েছে। মোটরবাইক থেকে পড়ে গিয়েও চোট পান দুলালবাবু। জখম দুলালকে দেখতে বৃহস্পতিবার রাতে কলকাতার একটি নার্সিংহোমে যান তৃণমূল নেতা মুকুল রায়। তবে এ নিয়ে মন্তব্য করেননি মুকুলবাবু।

Advertisement

স্থানীয় সূত্রের খবর, এমনিতেই বাগদায় তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব বহুদিনের। তার উপরে যোগ হয়েছে দলে মুকুল-ঘনিষ্ঠ বনাম মুকুল-বিরোধীদের বিরোধ। সম্প্রতি গাদপুকুরিয়াতে একটি মাদ্রাসায় পরিচালন সমিতির ভোটকে কেন্দ্র করে দুলাল এবং হিবজুলের ঘনিষ্ঠদের মধ্যে মারপিট বাধে। ওই ঘটনায় বাগদা ব্লকের যুব তৃণমূল সভাপতি হিবজুল দুলালবাবু-সহ কয়েক জনের বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে অভিযোগ জানিয়েছিলেন। ইতিমধ্যে বাগদায় নিজের বাড়িতে ইফতার পার্টিতে দুলালবাবু ঘোষণা করেন, মুকুল রায় যদি নতুন দল গড়েন, তা হলে সেখানেই যোগ দেবেন তিনি। সব মিলিয়ে রাজনৈতিক উত্তেজনার ক্ষেত্র তৈরিই ছিল।

হিবজুলকে গ্রেফতারের দাবিতে এ দিন বাগদায় মিছিল করেন দুলাল-অনুগামীরা। বাগদা বাজার ও হেলেঞ্চায় পথ অবরোধও করা হয়। পক্ষান্তরে, মন্ত্রী উপেনবাবুর দাবি, ‘‘পুলিশ নিরপেক্ষ ভাবে কাজ করছে না। ওরা সেটা করলেই খুশি হব।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.