×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৯ জুন ২০২১ ই-পেপার

প্রচারে প্রার্থীদের হাতিয়ার পর্যটন

নিজস্ব সংবাদদাতা
কালনা ২৯ মার্চ ২০১৪ ০৩:১৫

ভোটের প্রচারে উঠে আসছে পর্যটন।

জেলার কাটোয়া, কালনা, পূর্বস্থলীতে নামী-অনামী অজস্র পুরাকীর্তি রয়েছে। কোনওটা পুরাতত্ব সর্বেক্ষণের দেখভালে যত্নে রয়েছে আবার কোনওটা সংরক্ষণের অভাবে অবহেলায় পড়ে রয়েছে। দোগাছিয়ার গোপীনাথ জিউ মন্দির, জাহান্নগরের কপিল মুনির আশ্রম, মাধাইপুরের শ্রী শঙ্করাচার্য তপোবন মঠ, কালনার লালজি মন্দির, গোপাল বাড়ি, মসজিদ-ই-মজলিস ইত্যাদি জায়গায় সারা বছরই পর্যটকদের ভিড় দেখা যায়। ভিন জেলার পর্যটকদের কাছে স্থাপত্যগুলি তুলে ধরতে এ বার থেকে কালনার রাজবাড়ি মাঠে পর্যটন উৎসবও শুরু হয়েছে। এ বার সেই পর্যটনকে প্রচারের হাতিয়ার করেছে রাজনৈতিক দলগুলিও।

কাটোয়া কালনার একটা বিস্তীর্ণ অংশ বর্ধমান পূর্ব লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত। গ্রামেগঞ্জে প্রচারে গিয়ে অনেক প্রার্থীই ওই প্রাচীন নিদর্শনগুলির কথা বলছেন। দিনকয়েক আগে কোলডাঙা ও নতুনতর এলাকায় প্রচারে গিয়ে ওই কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী সুনীল মণ্ডল বলেন, “এই নিদর্শনগুলির প্রতি সাধারণ মানুষের একটা টান রয়েছে। পর্যটকদের কাছে এগুলির আকর্ষণ বাড়াতে আরও অর্থ বরাদ্দ করা দরকার। এ ধরনের খাতে কেন্দ্রীয় সরকারের অনেক অর্থ বরাদ্দ থাকে। জিতলে এই তিন এলাকার জন্য টাকা আনার চেষ্টা করব।” তবে অনেক নিদর্শন অবহেলায় পড়ে থাকার কথা স্বীকার করেছেন সিসিএম প্রার্থী ঈশ্বরচন্দ্র দাসও। তিনি বলেন, “কাটোয়ার জগদানন্দপুর-সহ বহু এলাকাই অবহেলার স্বীকার। আমরা কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের দুর্নীতির পাশাপাশি এগুলির জন্যও লড়াই চালাব।” তবে পর্যটনকে উন্নত করতে তৃণমূলের অর্থ আনার চেষ্টাকে নির্বাচনী চমক বলে দাবি করেছে সিপিএম। তৃণমূল অবশ্য অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে।

Advertisement
Advertisement