Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৯ জুন ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

অসুস্থ বড়মা, নেতাদের ভিড় হাসপাতালে 

জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে ভর্তি করানো হয়েছিল শতায়ু বড়মাকে। রাতে তাঁকে আইসিইউ-তে স্থানান্তরিত করা হয়। শুক্রবারও তিনি সেখানেই

নিজস্ব সংবাদদাতা 
কল্যাণী ০২ মার্চ ২০১৯ ০৩:২০
Save
Something isn't right! Please refresh.
শয্যাশায়ী: হাসপাতালে বড়মা। সঙ্গে সাংসদ মমতা ঠাকুর। নিজস্ব চিত্র

শয্যাশায়ী: হাসপাতালে বড়মা। সঙ্গে সাংসদ মমতা ঠাকুর। নিজস্ব চিত্র

Popup Close

এক বছরের মধ্যে এই নিয়ে দ্বিতীয় বার বয়সজনিত সমস্যা নিয়ে কল্যাণীর জওহরলাল নেহরু মেমোরিয়াল মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন মতুয়া মহাসঙ্ঘের ‘বড়মা’ বীণাপাণি দেবী।

জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে ভর্তি করানো হয়েছিল শতায়ু বড়মাকে। রাতে তাঁকে আইসিইউ-তে স্থানান্তরিত করা হয়। শুক্রবারও তিনি সেখানেই ছিলেন। তাঁর চিকিৎসার জন্য ১১ সদস্যের মেডিক্যাল বোর্ড গড়া হয়েছে। চিকিৎসকেরা জানান, তাঁর অবস্থা গুরুতর হলেও স্থিতিশীল। জেএনএম হাসপাতালের সুপার অভিজিৎ মুখোপাধ্যায় বলেন, ‘‘উনি চিকিৎসায় ভাল সাড়া দিচ্ছেন।’’

এ দিন বিকেল সাড়ে ৪টে নাগাদ বড়মাকে দেখতে হাসপাতালে আসেন রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। ঘণ্টাখানেক পরে আসেন পুত্রবধূ তথা বনগাঁর তৃণমূল সাংসদ মমতাবালা ঠাকুর। সন্ধ্যায় দেখে যান তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়ও। তবে তৃণমূলের থেকে মতুয়া ভোট কাড়তে উৎসাহী বিজেপির কাউকে এ দিন হাসপাতালে দেখা যায়নি। মাস আটেক আগেও এক বার এই হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন বড়মা। তখন পরিবারের লোকজন ছাড়া সে ভাবে রাজনৈতিক নেতাদের দেখা যায়নি। তবে এ বারের পরিস্থিতি আলাদা। আর দিন কয়েকের মধ্যেই লোকসভা ভোটের নির্ঘণ্ট ঘোষণা হতে চলেছে। বনগাঁ বা রানাঘাটের মতো মতুয়া-অধ্যুষিত কেন্দ্রে ভোটার টানতে তৃণমূল ও বিজেপি দুই পক্ষই এখন বড়মার আশীবর্দ পেতে মরিয়া। যে কারণে কিছু দিন আগে উত্তর ২৪ পরগনার ঠাকুরনগরে সভা করতে এসে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও তাঁর বাড়িতে গিয়ে দেখা করেছিলেন।

Advertisement

প্রত্যাশিত ভাবেই, হাসপাতালে বড়মাকে দেখতে তৃণমূল নেতাদের এখন আনাগোনা লেগেই রয়েছে। এক দিনের মধ্যে অন্তত এক ডজন নেতা ঘুরে গিয়েছেন জেএনএমে। তার মধ্যে রাজ্যের মন্ত্রী তথা চাকদহের বিধায়ক রত্না ঘোষ কর যেমন ছিলেন, কল্যাণী-গয়েশপুরের বহু স্থানীয় নেতাদেরও দেখা গিয়েছে। ঘটনা হল, গত পঞ্চায়েত ভোটে নদিয়ার বেশ কিছু এলাকায় বিজেপি আগের তুলনায় ভাল ফল করেছে। বেথুয়াডহরি, তেহট্ট, করিমপুর, কৃষ্ণনগর-১ ব্লকের মতো বেশ কিছু জায়গায় তারা আগের তুলনায় বেশি ভোট পেয়েছে। তবে তাদের নেতাদের এখনও হাসপাতালে দেখা গেল না কেন? নেতাদের দাবি, কল্কে পাবে না বুঝেই বিজেপি এমুখো হচ্ছে না। তবে দলের দক্ষিণ সাংগঠনিক জেলার স্বাস্থ্য সেলের নেতা কৃষ্ণ মাহাতো বলেন, ‘‘বড়মাকে দেখতে যাওয়ার কথা আমাদেরও আছে। তৃণমূল নেতাদের মধ্যে আমরা ভিড় বাড়াতে চাইনি বলেই যাইনি।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement