Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৬ অক্টোবর ২০২১ ই-পেপার

বিচার চেয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে চার পাতার চিঠি অর্জুনের

নিজস্ব প্রতিবেদন
০৭ জুন ২০১৪ ০৩:১২
ভাটপাড়ার বাড়িতে অর্জুন সিংহ।— নিজস্ব চিত্র।

ভাটপাড়ার বাড়িতে অর্জুন সিংহ।— নিজস্ব চিত্র।

অর্জুন সিংহ, শুভেন্দু অধিকারীদের নিয়ে তৃণমূলের অন্দরে জটিলতা অব্যাহত।

এক দিকে তাঁকে পুলিশি হেনস্থার অভিযোগের বিচার চেয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে চিঠি পাঠালেন ভাটপাড়ার তৃণমূল বিধায়ক অর্জুন। মুখ্যমন্ত্রী অবশ্য এখনও উত্তরবঙ্গে। অর্জুনের সঙ্গে তাঁর সরাসরি কথা হয়নি, বিধায়কের পাঠানো এসএমএসের জবাবও আসেনি। সরকার পক্ষের মুখ্য সচেতক শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়ের মাধ্যমে মুখ্যমন্ত্রীর কাছে চার পাতার চিঠি পাঠিয়েছেন অর্জুন। অন্য দিকে, পূর্ব মেদিনীপুরে ঘটেছে এমন কিছু ঘটনা, যার সঙ্গে জেলার গোষ্ঠী-কোন্দলের সম্পর্ক দেখছে তৃণমূলেরই একাংশ।

অর্জুনের সঙ্গে শুক্রবার কথা বলেন তৃণমূলের শীর্ষ নেতারা। যদিও ক্ষুব্ধ বিধায়ক ‘বিচার’ পাওয়ার আগে সুর নরম করতে রাজি নন। প্রয়োজনে পুলিশের বিরুদ্ধে মামলা করার হুঁশিয়ারি থেকেও তিনি সরেননি। আর পূর্ব মেদিনীপুরের হলদিয়া শিল্পাঞ্চলে তৃণমূল সাংসদ শুভেন্দুর অনুগামী বলে পরিচিত শ্রমিক-নেতা শ্যামল আদকের বাড়িতে হামলা, ভাঙচুর হয়েছে। তাঁকে লক্ষ করে গুলি চালানোরও অভিযোগ উঠেছে। অধিকারী-শিবির বনাম তার বিপরীত গোষ্ঠীর বিবাদের জেরেই এমন ঘটনা বলে তৃণমূলের একাংশের দাবি। তবে শুভেন্দুর ঘনিষ্ঠ সূত্রে এর সঙ্গে রাজনীতির যোগ অস্বীকার করা হয়েছে। আইএনটিটিইউসি-র জেলা সভাপতি তুষার মণ্ডল আবার বলেছেন, “দলের কেউ হামলা চালালে তা দল-বিরোধী কাজ হয়েছে। সে ক্ষেত্রে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

Advertisement

বিধানসভার দফাওয়াড়ি বাজেট অধিবেশনের প্রথম দিন শোকপ্রস্তাব হয়ে মুলতবি হয়ে যাওয়ার পরে এ দিন তৃণমূল পরিষদীয় দলের বৈঠক ছিল। সেখানে অর্জুন উপস্থিত থাকলেও তাঁর অভিযোগ প্রসঙ্গে তিনি নিজে বা অন্য কেউ কোনও প্রশ্ন তোলেননি ঠিকই। কিন্তু ওই বৈঠকেই দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক মুকুল রায় বিধায়কদের পরামর্শ দিয়েছেন, বিধানসভায় প্রশ্ন বা বক্তৃতা করার সময়ে মাথায় রাখতে হবে যে দল সরকারে আছে। সরকার বা শাসক দলের পক্ষে অস্বস্তিকর প্রশ্ন ঠেকাতেই এমন পরামর্শ বলে তৃণমূল বিধায়কদের একাংশ মনে করছেন।

অধিবেশন শুরু হওয়ার আগেই শোভনদেববাবুর কাছে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর উদ্দেশে লেখা তাঁর অভিযোগপত্র দিয়ে এসেছেন অর্জুন। স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছেও তিনি লিখিত ভাবে অভিযোগ জানাবেন সোমবার। পরিষদীয় দলের বৈঠকের পরে অর্জুনের সঙ্গে সে দিনের ঘটনা নিয়ে কথা বলেছেন বলে জানান মুকুলবাবু। অর্জুনকে সে দিনের ঘটনার কথা লিখিত ভাবে দলকে জানাতে বলেছেন মুকুলবাবু ও পার্থবাবু। অর্জুন অবশ্য ঘনিষ্ঠ মহলে জানিয়েছেন, মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি দেওয়ার পরে তিনি আর আলাদা ভাবে দলকে চিঠি দেবেন না। ভাটপাড়ার দোর্দণ্ডপ্রতাপ বিধায়কের ঘনিষ্ঠ সূত্রের আরও বক্তব্য, আরও দু-এক দিন অপেক্ষা করার পরেও দোষী পুলিশের বিরুদ্ধে সরকার শাস্তিমূলক কোনও ব্যবস্থা না-নিলে তিনি আদালতে যাবেন। বিধায়ক পরিচয় দেওয়ার পরেও এসিপি কল্যাণ সরকার ও তাঁর বাহিনী অভব্য আচরণ করেছেন বলে অর্জুনের দাবি। তিনি এখন প্রাণহানির আশঙ্কাও করছেন।

অর্জুন-শিবিরের একাংশের ব্যাখ্যা, ব্যারাকপুর শিল্পাঞ্চলে একাধিক পুরসভাকে মিলিয়ে দিয়ে নতুন যে পুর-নিগম গড়ার প্রস্তাব সরকারি স্তরে এসেছে, ছেলে শুভ্রাংশুকে তার চেয়ারম্যান করতে সক্রিয় মুকুলবাবু। আর তা নিয়েই সমস্যা। শুভ্রাংশু অবশ্য কোনও সমস্যার কথা মানতে নারাজ।

জটিলতা চলছে পূর্ব মেদিনীপুরেও। শুভেন্দু এখন দিল্লিতে। এরই মধ্যে এ দিন জেলা পরিষদের শিশু ও নারী উন্নয়ন স্থায়ী সমিতির কর্মাধ্যক্ষ পদে ফের নির্বাচিত হয়েছেন শুভেন্দু-বিরোধী শিবিরের অপর্ণা ভট্টাচার্য। শিশু ও নারী উন্নয়ন স্থায়ী সমিতির ৮ সদস্যের মধ্যে অপর্ণাদেবী-সহ চার জন হাজির ছিলেন। তার মধ্যে এক জন বাম সদস্য। উল্লেখযোগ্য ভাবে, গরহাজির ছিলেন জেলা পরিষদের সভাধিপতি মধুরিমা মণ্ডল, সহ-সভাধিপতি শেখ সুফিয়ান-সহ শুভেন্দু-ঘনিষ্ঠ চার সদস্য। শুভেন্দুকে যুব সভাপতির পদ থেকে সরানোর পরে জেলায় অখিল-অনুগামীদের সক্রিয়তা বাড়ছে এবং কর্মাধ্যক্ষ নির্বাচনে তারই প্রতিফলন হয়েছে বলে দলের একাংশের ধারণা।

আরও পড়ুন

Advertisement