×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২২ জানুয়ারি ২০২১ ই-পেপার

ব্যান্ডেলে ঝাঁটা নিয়ে মিছিলের পর, মুঙ্গেরি লাঠি হাতে মিছিল করল তৃণমূল

নিজস্ব সংবাদদাতা
ব্যান্ডেল৩০ নভেম্বর ২০২০ ০১:১৬
বাসিন্দাদের উচ্ছেদের নোটিসের প্রতিবাদে চুঁচুড়ার বিধায়ক অসিত মজুমদারের নেতৃত্বে শুক্রবার মিছিল হয়। নিজস্ব চিত্র

বাসিন্দাদের উচ্ছেদের নোটিসের প্রতিবাদে চুঁচুড়ার বিধায়ক অসিত মজুমদারের নেতৃত্বে শুক্রবার মিছিল হয়। নিজস্ব চিত্র

ঝাঁটা নিয়ে মিছিল আগেই হয়েছিল। এ বার মুঙ্গেরের লাঠি হাতে মিছিল করল তৃণমূল। ব্যান্ডেল সাহেবপাড়ায় রেল কলোনির বাসিন্দাদের উচ্ছেদের নোটিসের প্রতিবাদে চুঁচুড়ার বিধায়ক অসিত মজুমদারের নেতৃত্বে শুক্রবার মিছিল হয়। তিনি হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, ‘‘দেখি কত সাহস আছে আরপিএফ বাসিন্দাদের উচ্ছেদ করুক।’’

প্রথম থেকেই এই উচ্ছেদের বিরোধিতা করে আসছে তৃণমূল। সেই কথা মনে করিয়ে দিয়েই বিধায়ক বলেন,  ‘‘দীর্ঘ ৪০-৫০ বছর ধরে বসবাসকারী মানুষদের উচ্ছেদ করতে চাইছে রেল। কোনও পুনর্বাসন দিচ্ছে না। ব্যান্ডেলের মানুষ প্রতিরোধ করেছে, তৃণমূল প্রতিবাদ করেছে। বিকল্প ব্যবস্থা না হলে একটা মানুষকে উচ্ছেদ করা যাবে না।’’ ঘটনার প্রেক্ষিতে বিজেপির পাল্টা অভিযোগ, মানুষের হাতে লাঠি তুলে দিয়ে অশান্তির সৃষ্টি করতে চাইছেন বিধায়ক। বিধায়কের যুক্তি, ‘‘গরীব মানুষের জন্য করেছি, আগামী দিনেও করব। যাদের পেটে লাথি মারছে। করোনার মধ্যে শীতের সময় উচ্ছেদ করতে চাইছে। যাঁরা দীর্ঘদিন বাস করছেন, তাঁদের বিকল্প ব্যবস্থা না করে যদি তোলা হয়, তা হলে রক্তক্ষয়ী সংগ্রাম হবে।’’

আরও পড়ুন: ‘হিন্দুধর্ম বিরোধী’ অনুরাগ বসু! ট্রেন্ড হচ্ছে টুইটারে

Advertisement

তৃণমূলের মিছিলের পর বিজেপি নেতৃত্ব সাহেবপাড়া গিয়ে বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলেন। হুগলির বিজেপি যুব সভাপতি সুরেশ সাউ বলেন, ‘‘বেআইনি বসতি উচ্ছেদের নোটিসের কথা জানার পর সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায় রেলমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেন। আপাতত রেলের জায়গায় বসবাসকারীদের উচ্ছেদ করা হবে না বলে জানিয়েছে রেল।’’ তাঁর অভিযোগ, সব কিছু জেনেও ভোটের রাজনীতি করতে মানুষকে ভুল বোঝাচ্ছেন বিধায়ক।

আরও পড়ুন: কলকাতায় ওসি স্তরে বড়সড় রদবদল, আরও বদলের সম্ভাবনা জেলাতে

Advertisement