Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৩ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

রাত-জাগা উল্লাস শহরের জার্মানদের

মঙ্গলবার রাতভর ঘুম ছিল না সারিটা আর জোয়েলের। বার্লিনের জোয়েল ডুনান্ড আর হানোফারের সারিটা ক্লুগেল থাকেন দক্ষিণ কলকাতার দু’টি ফ্ল্যাটে। কেবল ও

অশোক সেনগুপ্ত
১০ জুলাই ২০১৪ ০২:০০
Save
Something isn't right! Please refresh.
Popup Close

মঙ্গলবার রাতভর ঘুম ছিল না সারিটা আর জোয়েলের। বার্লিনের জোয়েল ডুনান্ড আর হানোফারের সারিটা ক্লুগেল থাকেন দক্ষিণ কলকাতার দু’টি ফ্ল্যাটে। কেবল ওঁরা দু’জনই নন, কলকাতার জার্মানদের প্রায় সকলেই টানটান উত্তেজনার মধ্যে কাটিয়েছেন ওই রাত। শেষ রাতেও কারও কারও ঘুম আসেনি উত্তেজনা আর উল্লাসে।

চিকিৎসাবিদ্যার ছাত্রী সারিটা বছরখানেক ধরে আছেন কসবার একটি ফ্ল্যাটে। স্বামী মৃগাঙ্ক ঝাড়খণ্ডের সাবেক বাসিন্দা। কর্মসূত্রে এখন এ শহরে। বিশ্বকাপে জার্মানির প্রতিটা খেলাই দেখছেন সারিটা। ব্রাজিলের সঙ্গে স্বদেশের খেলোয়ারদের নৈপুণ্য দেখে কখনও ‘জের গুট’, ‘জের গুট’ অর্থাৎ ‘খুব ভাল’ বলে চেঁচিয়ে উঠেছেন। কখনও লাফিয়ে উঠেছেন ‘ভির ক্লিশ টোল’ (ভাবা যায় না) বলে। প্রিয় ফুটবলার ক্লোজে। সারিটার ধারণা, ফাইনাল হবে জার্মানির-আর্জেন্টিনার। চ্যাম্পিয়ন হবে জার্মানিই।

হানোফার থেকে ২৯০ কিলোমিটার দূরের শহর বার্লিনের জোয়েল থাকেন বালিগঞ্জের আয়রন সাইড রোডে। কলকাতার সঙ্গে প্রায় আট বছরের সম্পর্ক চুকিয়ে মাসকয়েক বাদেই ফিরে যাচ্ছেন স্বদেশে। জার্মানির খেলাগুলো কখনও দেখছেন আলিপুরে জার্মান দূতাবাসে। কখনও কোনও স্বদেশির ফ্ল্যাটে। মঙ্গলবার রাতে জোয়েলের সঙ্গী ছিলেন স্ত্রী সুনয়না। লাফালাফি করে ক্লান্ত সুনয়না অবশ্য ঘুমিয়ে পড়েছিলেন জার্মানির সপ্তম গোলটার আগেই। রাতভর জেগে সকালে কাজে যেতে অসুবিধা হচ্ছে না? ৩২ বছরের জোয়েলের জবাব, “না, নিজের সফটওয়্যারের ব্যবসা। ন’টার মধ্যে অফিসে বুঝতে হবে এমন বাধ্যবাধকতা নেই। খেলা দেখাটাই টপ প্রায়োরিটি।” ওঁরও বিশ্বাস বিশ্বকাপে বিজয়ী হবে জার্মানিই। প্রতিপক্ষ নেদারল্যান্ড হারবে ২-১ গোলে।

Advertisement

কলকাতার জার্মান কনসাল জেনারেল এবং ম্যাক্স ম্যুলার ভবনের অধিকর্তা— খেলা দেখেছেন এঁরাও। তবে, দু’জনেই আপাতত এ দেশের বাইরে। হইহই করে রাতভর খেলা দেখেছেন দূতাবাসের জার্মান কর্মীরাও। যদিও দূতাবাসের তরফে

বলা হয়, ‘কূটনৈতিক কারণে’ ওঁদের তরফে প্রতিক্রিয়া জানানো যাচ্ছে না। এ দিনটা অবশ্য কর্তৃপক্ষ ব্যস্ত ছিলেন রবিবারের বিশ্বকাপের ফাইনাল একসঙ্গে দেখার প্রস্তুতিপর্বে।

বার্লিনের ইলসে হেলমচেম ভারতে এসেছেন ঠিক তিন দশক আগে। বিয়ের পর পদবী বদল করে হয়েছে দাস মহাপাত্র। ম্যাক্স ম্যুলার ভবন থেকে অবসর নেওয়া ইলসে মঙ্গলবার খেলা দেখেছেন রাতভর। খুব ভাল লাগে এমস্টাইগারের খেলা। কোয়ার্টার ফাইনালটা যে জার্মানির অনুকূলে এত একপেশে হয়ে যাবে ভাবতেও পারেননি। ওঁর ধারণা, ফাইনালেও কেল্লা ফতে করবে জার্মানি।



Something isn't right! Please refresh.

আরও পড়ুন

Advertisement