Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৮ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

তোলাবাজি ঘিরে গোলমাল, যুবককে মারধরের অভিযোগ

রাত ১২টা ২০। ভবানীপুরে শম্ভুনাথ পণ্ডিত স্ট্রিটে গুরুদ্বারের পাশে দাঁড়িয়ে বালিভর্তি একটি লরি। সামনে দাঁড়িয়ে চালকের সঙ্গে কথা বলছিলেন এক যুবক।

নিজস্ব সংবাদদাতা
১৪ জুলাই ২০১৪ ০২:১৫
Save
Something isn't right! Please refresh.
Popup Close

রাত ১২টা ২০। ভবানীপুরে শম্ভুনাথ পণ্ডিত স্ট্রিটে গুরুদ্বারের পাশে দাঁড়িয়ে বালিভর্তি একটি লরি। সামনে দাঁড়িয়ে চালকের সঙ্গে কথা বলছিলেন এক যুবক। আচমকাই এসে দাঁড়াল একটি গাড়ি। নেমে এল চার যুবক। এলাকার কাজ করার জন্য তাদেরকে টাকা দিতে হবে বলে দাবি করল তাঁদের এক জন। অভিযোগ, উত্তর না পেয়ে বালির লরির সামনে দাড়িয়ে থাকা যুবককে মাটিতে ফেলে মারধর শুরু করে তারা। তাঁর সোনার চেন ও মোবাইল ছিনিয়ে নেওয়া হয়। যুবকটি মাটিতে লুটিয়ে পড়লে আবার গাড়িতে উঠে এলাকা ছাড়ে ওই চার যুবক।

পুলিশ জানিয়েছে, শুক্রবার রাতে ওই গোলমাল চলাকালীন ওই এলাকা দিয়েই বাড়ি ফিরছিলেন রাজ্যের পরিবহণ মন্ত্রী মদন মিত্র। রবিবার তিনি বলেন, “বাড়ি ফেরার পথে ওই জায়গায় একটা গোলমাল দেখতে পেয়ে গাড়ি থেকে নামি। পরে দু’দলকেই সরিয়ে দিয়ে আমি বাড়ি ফিরে যাই।”

মদনবাবু জানিয়েছেন, তিনি ওই যুবকদের চেনেন না। ঘটনার কথা পুলিশকে জানিয়ে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দিয়েছেন মন্ত্রী।

Advertisement

পুলিশ জানায়, ঘটনার পরেই আহত যুবক অসীম ঘোষকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যান স্থানীয় বাসিন্দারা। পরে ভিকি সাউ, সোমু মিস্ত্রি, অমিত রজক এবং সন্তু নামে চার যুবকের বিরুদ্ধে ভবানীপুর থানার অভিযোগ দায়ের করেন অসীম। পুলিশ জানিয়েছে, এখানেই শেষ নয়। অভিযোগ তোলার জন্য চাপ দিয়ে শনিবার ভোরে অসীমের টার্ফ রোডের বাড়িতে গিয়ে হুমকি দেয় অভিযুক্তেরা। আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে ভয় দেখানোর পাশাপাশি এক লক্ষ টাকা দাবি করে ভিকি ও তার দলবল। ওই রাতেই নতুন করে হুমকি এবং ভয় দেখানোর অভিযোগ পেয়ে পুলিশ শিয়ালদহ এলাকা থেকে অভিযুক্ত চার যুবককে গ্রেফতার করে।

স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, এলাকায় ইমারতি দ্রব্য কে সরবরাহ করবে এবং কার হাতে এলাকার রাশ থাকবে তা নিয়েই ভিকি এবং অসীমের মধ্যে গোলমালের সূত্রপাত। দুই গোষ্ঠীই শাসকদলের ঘনিষ্ঠ বলে জানিয়েছেন এলাকাবাসীরা। এর আগে নিউ টাউন, বেলেঘাটা-সহ বিভিন্ন এলাকায় শাসকদলের গোষ্ঠী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

পুলিশের দাবি, বেলেঘাটার মতো বোমাবাজির ঘটনা না ঘটলেও শাসক দলের গোষ্ঠী সংঘর্ষের জেরেই শুক্রবার রাতে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছিল ভবানীপুরের ওই এলাকা। এলাকার বাসিন্দারা শাসকদলের দুই গোষ্ঠীর বিরোধের কথা বললেও সংঘর্ষে আহত অসীম ঘোষ রবিবার নিজের বাড়িতে বসে বলেন, “ভিকি এলাকার সমাজবিরোধী। আমার কাছে তোলাবাজির জন্যই টাকা চেয়েছিল। সেই টাকা না দেওয়ায় আমার উপরে চড়াও হয়।” তাঁর দাবি, তিনি জমি-বাড়ি কেনাকাটা ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত।

পুলিশ জানিয়েছে, ধৃত ভিকির বিরুদ্ধে আগেও বহু অপরাধের অভিযোগ রয়েছে পুলিশের কাছে। তোলাবাজির অভিযোগে কয়েক বছর আগে তাকে গ্রেফতারও করেছিল ভবানীপুর থানার পুলিশ।



Something isn't right! Please refresh.

Advertisement