Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৯ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

মহানগরে ভোট

প্রচারে সিপিএমকে টক্কর তৃণমূলের

ভোটের আর দু’সপ্তাহও বাকি নেই। কিন্তু রবিবার ছুটির দিনকে কাজে লাগাতে তৃণমূল যে ভাবে পথে নামল, সিপিএমের প্রচার সে ভাবে চোখে পড়ল না। এ দিন সকা

নিজস্ব সংবাদদাতা
২১ সেপ্টেম্বর ২০১৫ ০২:২২

ভোটের আর দু’সপ্তাহও বাকি নেই। কিন্তু রবিবার ছুটির দিনকে কাজে লাগাতে তৃণমূল যে ভাবে পথে নামল, সিপিএমের প্রচার সে ভাবে চোখে পড়ল না।

এ দিন সকালে ১৬টি ওয়ার্ডেই প্রচার করেন শাসকদলের প্রার্থীরা। বিকেলে বালিতে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এসে বৈঠক করে যান রাজ্যের মন্ত্রী তথা তৃণমূলের জেলা সভাপতি অরূপ রায়, সাংসদ প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায় ও মেয়র রথীন চক্রবর্তী।

তবে এলাকায় সিপিএমের বিশেষ কোনও মিটিং কিংবা মিছিল সে ভাবে চোখে পড়েনি। যদিও স্থানীয় সিপিএম নেতাদের দাবি, মহাদেব কর্মকার, পিন্টু খামারু, সন্দীপ কর, আব্দুল হামিদ-সহ বালি, বেলুড় এবং লিলুয়ায় কয়েকটি ওয়ার্ডে তাঁদের প্রার্থীরা সকালের দিকে প্রচার সেরেছেন।

Advertisement

বামেদের লাল দুর্গ বলে পরিচিত বালিতে তেমন ভাবে দেওয়াল লিখন বা প্রচার হচ্ছে না কেন? সিপিএমের হাওড়া জেলা সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য শঙ্কর মৈত্র বলেন, ‘‘বিভিন্ন বাধা আসছে। সব কিছুকে উপেক্ষা করেই আমরা লড়াইয়ের ময়দানে আছি। দলের শীর্ষ নেতাদের নিয়ে আগামী দিনে বিভিন্ন কর্মসূচিও রয়েছে।’’ যদিও অরূপবাবুর দাবি, দীর্ঘদিন ক্ষমতায় থেকেও বালির উন্নয়ন না করায় সিপিএমের ভোট চাওয়ার মতো কোনও মুখ নেই। তিনি আরও বলেন, ‘‘কংগ্রেস ও বিজেপিরও অস্তিত্ব খুঁজে পাওয়া মুশকিল। তাই বালিতে আমাদের মাটি তৈরি। উন্নয়নকে সামনে রেখে খুব সহজেই ১৬টি আসনে জয়ও নিশ্চিত।’’

এ দিন বালিতে শাসকদলের প্রার্থী বলরাম ভট্টাচার্য, প্রাণকৃষ্ণ মজুমদার, পল্টু বণিক, তপজিল আহমেদ, প্রবীর রায়চৌধুরী-সহ প্রায় সকলেই প্রচারে বেরিয়েছিলেন। কেউ কেউ এলাকায় কর্মিসভাও করেছেন। সিপিএমকে টেক্কা দিতে প্রচারের শেষ দিনে ঘুসুড়ির জায়সবাল হাসপাতাল থেকে বালি খাল পর্যন্ত মহামিছিলেরও ডাক দিয়েছেন অরূপবাবু।

আরও পড়ুন

Advertisement