×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৪ এপ্রিল ২০২১ ই-পেপার

পূর্বের জেলা সম্মেলনে প্রধান বক্তা বুদ্ধদেব

নিজস্ব সংবাদদাতা
তমলুক ১২ ডিসেম্বর ২০১৪ ০০:৩৮

রাজ্য সরকারের অসহযোগিতায় সারদা-কাণ্ডে সিবিআই তদন্ত বিলম্বিত হচ্ছে বলে অভিযোগ করলেন সিপিএমের রাজ্য সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য রবীন দেব। বৃহস্পতিবার পূর্ব মেদিনীপুর জেলা সিপিএমের কার্যালয়ে জেলা কমিটির বৈঠকের পর সাংবাদিক বৈঠকে তিনি অভিযোগ করেন, “রাজ্যের অসহযোগিতায় সারদা কাণ্ডের সিবিআই তদন্ত শুরু হতে দেরি হয়েছে। আর এখন রাজ্যের অসহযোগিতাতেই সিবিআই তদন্ত বিলম্বিত হচ্ছে।”

আগামী বছরের ফেব্রুয়ারিতে হলদিয়ায় সুবর্ণ জয়ন্তী ভবনে দলের জেলা সম্মেলনের প্রস্তুতি নিয়ে আলোচনা করতে এ দিন এসেছিলেন রবীনবাবু। বৈঠকও হয়। সেখানে ছিলেন জেলা সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য তাপস সিংহ-সহ জেলা নেতৃত্ব। সাংবাদিক বৈঠকে সিপিএমের জেলা সম্পাদক প্রশান্ত প্রধান বলেন, “১৪ থেকে ১৬ ফেব্রুয়ারি সুতাহাটায় সুবর্ণজয়ন্তী ভবনে জেলা সম্মেলন হবে। প্রকাশ্য সমাবেশে বক্তা হিসেবে থাকবেন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য। সমাবেশে লক্ষাধিক মানুষকে আনার লক্ষ্যমাত্রা নেওয়া হয়েছে।” থাকবেন বিমান বসু, সূর্যকান্ত মিশ্রেরা।

কেন সিবিআই রবীনবাবুকে ডেকেছিল, সাংবাদিক বৈঠকে তার ব্যাখ্যাও দেন তিনি। সিপিএমের এই নেতার কথায়, “সিবিআই সাক্ষী হিসেবে ডেকেছিল। সাক্ষ্য দেওয়ার পরে সিবিআই কর্তারা বলে দিয়েছেন, আর আসার প্রয়োজন নেই।” নন্দীগ্রাম-কাণ্ডের পর জেলায় দলের সাংগঠনিক ক্ষমতা দুর্বল হলেও বর্তমানে তা ফের বৃদ্ধি পাচ্ছে বলে দাবি রবীনবাবুর। কিন্তু ঘটনা হল, জেলায় সিপিএম এ বার শাখা সম্মেলনের পরিবর্তে বিশেষ অধিবেশন ডেকে লোকাল কমিটির সম্মেলনের প্রতিনিধি নির্বাচন করছে। তা মানছেন জেলা নেতৃত্বও।

Advertisement

এ দিন রবীনবাবু জানান, দল বিরোধী কাজের অভিযোগে জেলায় ১৬৬ জন পার্টি সদস্যকে বহিষ্কার করা হয়েছে। এঁদের মধ্যে ২৫ জন জেলা কমিটির সদস্য। দলীয় সূত্রে খবর, এঁদের বেশির ভাগই বহিষ্কৃত লক্ষ্মণ শেঠের অনুগামী।

গ্রেফতার যুবক। পুলিশের ভুয়ো পরিচয় দিয়ে টাকা আদায়ের অভিযোগে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার রাতে কাঁথি থানার মহিষাগোটের এই ঘটনায় ধৃত যুবকের নাম অমৃতকুমার জানা। তিনি রামনগর থানার উত্তর সিমুলিয়া গ্রামের বাসিন্দা। পুলিশ জানিয়েছে, নিজেকে কাঁথি থানার পুলিশ অফিসার পরিচয় দিয়ে দিঘা-কলকাতা সড়কে দাঁড়িয়ে রাস্তায় যাতায়াতকারী বিভিন্ন গাড়ি থামিয়ে টাকা আদায় করছিল ওই যুবক। স্থানীয় কয়েকজনের সন্দেহ হওয়ায় তারা অমৃতকে ধরে আসল পরিচয় জানতে চায়। এরপর ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ ওই যুবককে গ্রেফতার করে।

Advertisement