Advertisement
০১ ডিসেম্বর ২০২২

জেলা নেতাদের দিয়ে পাড়া প্রচারে জোর বিজেপির

রাজ্যস্তরের নেতা নয়, আপাতত স্থানীয় নেতাদের দিয়েই পাড়ায় পাড়ায় প্রচারে জোর দিচ্ছে বিজেপি। মঙ্গলবার বিকেলে খড়্গপুরের গোলখুলি দুর্গামন্দিরে বিজেপির পক্ষ থেকে ভোটের প্রস্তুতি বৈঠক ডাকা হয়। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন বিজেপির রাজ্য সাধারণ সম্পাদক (সংগঠন) দিলীপ ঘোষ, দলের রাজ্য সহ-সভানেত্রী কৃষ্ণা ভট্টাচার্য, বিজেপির পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা সভাপতি তুষার মুখোপাধ্যায়, জাতীয় পরিষদের সদস্য প্রদীপ পট্টনায়েক প্রমুখ।

নিজস্ব সংবাদদাতা
খড়্গপুর শেষ আপডেট: ০১ এপ্রিল ২০১৫ ০২:০১
Share: Save:

রাজ্যস্তরের নেতা নয়, আপাতত স্থানীয় নেতাদের দিয়েই পাড়ায় পাড়ায় প্রচারে জোর দিচ্ছে বিজেপি। মঙ্গলবার বিকেলে খড়্গপুরের গোলখুলি দুর্গামন্দিরে বিজেপির পক্ষ থেকে ভোটের প্রস্তুতি বৈঠক ডাকা হয়। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন বিজেপির রাজ্য সাধারণ সম্পাদক (সংগঠন) দিলীপ ঘোষ, দলের রাজ্য সহ-সভানেত্রী কৃষ্ণা ভট্টাচার্য, বিজেপির পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা সভাপতি তুষার মুখোপাধ্যায়, জাতীয় পরিষদের সদস্য প্রদীপ পট্টনায়েক প্রমুখ।

Advertisement

গত লোকসভা ভোটে খড়্গপুর বিধানসভা কেন্দ্রে প্রথম স্থানে ছিল বিজেপি। লোকসভার ধারা পুরভোটেও বজায় থাকা নিয়ে আশাবাদী বিজেপি নেতৃত্ব। ইতিমধ্যেই রেলশহরের ৩৫টি ওয়ার্ডের জন্য দলের জেলা যুব সভাপতি শুভজিৎ রায়, জেলা যুব নেতা বিশ্বনাথ দাস-সহ ৬ জনকে পর্যবেক্ষকের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। বিজেপি সূত্রে জানা গিয়েছে, এ দিনের বৈঠকে ওই পর্যবেক্ষকদের সঙ্গেই উপস্থিত বিভিন্ন ওয়ার্ডের নেতারা। তাঁদের থেকে প্রতিটি ওয়ার্ডের সমস্যা সম্পর্কে শোনেন দলীয় নেতৃত্ব। তার ভিত্তিতে একটি ইস্তাহারও তৈরি করা হয়। আপাতত প্রচারের স্বার্থে সেই খসড়া ইস্তাহারে শহরের পানীয় জলের সঙ্কট মোচন, রেল বস্তি এলাকায় বিদ্যুদয়ন, পুর পরিষেবার সুষ্ঠু বণ্টন ও রাস্তার মানোন্নয়নে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।

সাধারণ নাগরিক পরিষেবার পাশাপাশি স্বচ্ছ পুরসভা গঠনের প্রতিশ্রুতি দিয়ে প্রচারে ঝড় তুলতে চাইছে গেরুয়া শিবির। তারই প্রথম পর্যায়ে বাড়ি বাড়ি প্রচার চালিয়ে প্রতিটি ওয়ার্ডে একাধিক পথসভা করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সেই সভাগুলিতে আপাতত দলের জেলা ও শহর নেতৃত্বের উপস্থিত থাকার সিদ্ধান্ত হয়েছে। তবে এপ্রিলের শুরুতে প্রচারের প্রথম পর্ব এ ভাবে কাটলেও পরবর্তীকালে প্রচারের রূপরেখা কী হবে, তা নিয়েও আলোচনা হয় এ দিনের বৈঠকে।

এপ্রিলের মাঝামাঝি সময় থেকে ভোট প্রচারে রাজ্য নেতৃত্বকে বিভিন্ন এলাকায় বড় সভায় আনার কথা ভাবা হচ্ছে। সেই তালিকায় দলের রাজ্য সভাপতি রাহুল সিংহ, রাজ্য নেতা শমীক ভট্টাচার্যের মতো নেতারা রয়েছেন। এ ছাড়াও রাজ্য থেকে জয়ী দলের দুই সাংসদ বাবুল সুপ্রিয় ও এসএস অহলুওয়ালিয়াকেও আনার জন্য চেষ্টা করা হবে বলে দল সূত্রে খবর। খড়্গপুরে অনেক তেলুগু সম্প্রদায়ের মানুষেরও বাস। সে ক্ষেত্রে তেলুগু ভোটারদের মন কাড়তে দক্ষিণী চিত্র তারকাদের ভোট প্রচারে আনার বিষয়েও চিন্তাভাবনা চলছে বলে জানা গিয়েছে।

Advertisement

এ দিন কর্মী বৈঠক শেষে দলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক দিলীপ ঘোষ বলেন, “বৈঠকে প্রচারের একটা রূপরেখা তৈরি হয়েছে। সেখানে একটা খসড়া ইস্তাহারকে সামনে রেখে এখন আপাতত এলাকা ভিত্তিক প্রচারে জোর দেওয়া হবে। প্রচারের শেষ লগ্নে দলের রাজ্য নেতৃত্ব আসবেন।’’ তাঁর বক্তব্য, ‘‘এই শহরে অবাঙালি মানুষের সংখ্যা বেশি। তাই কয়েকজন দক্ষিণী চিত্র তারকাকে প্রচারে আনার বিষয়ে ভাবা হচ্ছে। তবে মানুষের সমর্থন আমরা পাব, এই বিশ্বাস থেকেই তারকা প্রচারকে আমরা বড় করে দেখছি না।”

প্রার্থী তালিকা নিয়ে দলের একাংশ কর্মীর অসন্তোষ প্রসঙ্গে দিলীপবাবু বলেন, ‘‘সকলকে প্রার্থী করা যায় না। তাই ক্ষোভে কেউ নির্দল প্রার্থী হয়েছেন। কিন্তু তাঁদের অনেকেই আমাদের দক্ষ সংগঠক। তাই এখনও তাঁদের বোঝানো হচ্ছে যাতে সব ভুলে তাঁরা প্রতিদ্বন্দ্বিতা থেকে সরে আসেন। আমার আশা, তাঁরা বিজেপির হয়েই প্রচার করবেন।”

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.