Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৭ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

প্রধানকে হেনস্থা, অধরা অভিযুক্তেরা

নিজস্ব সংবাদদাতা
কান্দি ১৭ মার্চ ২০১৫ ০১:১৭
দুষ্কৃতীদের গ্রেফতারের প্রতিবাদে বিক্ষোভ।—নিজস্ব চিত্র।

দুষ্কৃতীদের গ্রেফতারের প্রতিবাদে বিক্ষোভ।—নিজস্ব চিত্র।

পঞ্চায়েতের মহিলা প্রধানকে হেনস্থার পরেও অভিযুক্তদের গ্রেফতার করছে না পুলিশ। এর প্রতিবাদে বিডিও অফিস ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখাল কংগ্রেস। প্রায় চার ঘণ্টা ঘেরাও চলে। অভিযুক্তদের গ্রেফতারের প্রতিশ্রুতি পেলে ঘেরাও ওঠে। ভরতপুর ২ নম্বর ব্লকের সোমবারের ঘটনা। পঞ্চায়েত সূত্রে খবর, ওই বিক্ষোভে ব্লকের ছ’টি কংগ্রেস পরিচালিত পঞ্চায়েত, এলাকার পঞ্চায়েত সমিতি ও জেলা পরিষদের নির্বাচিত ৮৬ জনপ্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন।

স্থানীয় সূত্রে খবর, গত ১১ মার্চ কংগ্রেস দখলে থাকা তালিবপুর গ্রাম পঞ্চায়েতে একটি শংসাপত্র দেওয়াকে কেন্দ্র করে গোলমালের সূচনা। ওই দিন জনা কয়েক তৃণমূল সমর্থক কংগ্রেসের মহিলা প্রধান আরতি দাসকে হেনস্থা করে বলে অভিযোগ। এর কিছু পরে পঞ্চায়েতের কার্যালয়ের বাইরে কংগ্রেস ও তৃণমূলের মধ্যে ধস্তাধস্তির ঘটনাও ঘটে। ওই ঘটনার পরে পঞ্চায়েত প্রধান দুই তৃণমূল সমর্থকের বিরুদ্ধে সালার থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগ পাওয়ার পরেও পুলিশ অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা নিচ্ছে না বলে দাবি কংগ্রেস নেতৃত্বের।

এ দিন অভিযুক্ত দুই তৃণমূল সমর্থক হিরা শেখ ও আলিম ওয়াজ শেখকে গ্রেফতারের দাবিতে দুপুর বারোটা থেকে ভরতপুর ২-এর বিডিওকে ঘেরাও করে বিক্ষোভ চলে। ব্লক অফিসে তালাও ঝুলিয়ে দেয় কংগ্রেস নেতৃত্ব। পরে পুলিশ ও প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিদের কাছ থেকে অভিযুক্তদের গ্রেফতারের আশ্বাস পেয়ে ঘেরাও মুক্ত হয় ব্লক কার্যালয়। কংগ্রেসের কান্দি মহকুমার সভাপতি আজাহারউদ্দিন সিজার বলেন, “প্রশাসনের পক্ষ থেকে অভিযুক্তদের গ্রেফতারের আশ্বাস পেয়ে আমরা ঘেরাও তুলে নিয়েছি। এরপরেও অভিযুক্তদের গ্রেফতার করা না হলে বৃহত্তর আন্দোলনে নামতে বাধ্য হব।”

Advertisement

আরও পড়ুন

Advertisement