Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৫ ডিসেম্বর ২০২১ ই-পেপার

মাধ্যমিকের দ্বিতীয় দিনেও নকল, মালদহে হামলা পুলিশের উপর

নিজস্ব প্রতিবেদন
২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ ০২:৫৭
অভিযুক্তদের কান ধরে ওঠ-বস করাল পুলিশ। ছবি: মনোজ মুখোপাধ্যায়।

অভিযুক্তদের কান ধরে ওঠ-বস করাল পুলিশ। ছবি: মনোজ মুখোপাধ্যায়।

পরীক্ষার দ্বিতীয় দিনে পরীক্ষা কেন্দ্রে বহিরাগতদের নকল সরবারহের অভিযোগ উঠল মালদহ এবং উত্তর দিনাজপুরে। নকল সরবারহে বাধা দিতে গিয়ে পুলিশের উপরেই হামলার অভিযোগ উঠেছে মালদহে। এই জেলাতেই এক স্কুলে পুলিশের সামনে বহিরাগতদের অবাধে নকল সরবরাহ করতে দেখা গিয়েছে বলে অভিযোগ।

এ দিন পুলিশের উপর হামলার অভিযোগ উঠেছে মানিকচকের এনায়েতপুরের ইএ হাইস্কুলে। গত সোমবার পরীক্ষার প্রথম দিনেই টোকাটুকির অভিযোগ ওঠে। বাইরে থেকে দেদার নকল সরবরাহের অভিযোগ ওঠে ওই স্কুলে। ঘটনাটি সংবাদমাধ্যমে প্রকাশ্যে আসতেই স্কুল কর্তৃপক্ষ বাড়তি নিরপত্তা চেয়ে থানায় আবেদন করেছিলেন স্কুল কর্তৃপক্ষ। যদিও, এ দিন দুপুরে পরীক্ষা শুরুর পরেই কয়েকজন যুবককে পাঁচিলের উপরে উঠে ক্লাসঘরের জানলা লক্ষ্য করে কাগজ ছোঁড়া শুরু হয় বলে অভিযোগ। ঘটনাটি দেখে পুলিশ বাধা দিতে এলে, বাইরে জড়ো হয়ে থাকা একাংশ ব্যক্তি পুলিশকে লক্ষ্য করে ইঁট ছোঁড়া শুরু হয় বলে অভিযোগ। ঘটনাস্থলে র্যাফ নিয়ে পৌঁছে যান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অভিষেক মোদী। পাল্টা লাঠিও চালায় পুলিশ। কয়েকজন যুবককে মাঠের মধ্যেই কান ধরে ওঠবস করায় পুলিশ কর্মীরা। যদিও লাঠি চালানোর বিষয়টি পুলিশ অস্বীকার করেছে। নকল সরবারহের চেষ্টায় এলাকা থেকে ১৮জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

এ দিন শহরের বাইরে স্কুলগুলিতে দেদার নকল সরবরাহের অভিযোগ উঠেছে। ইংরেজবাজারের শান্তা দেবী হাই স্কুলে জানলা দিয়ে নকল সরবরাহ করার অভিযোগ ওঠে একাংশ অভিভাবকের বিরুদ্ধে। একই অভিযোগ উঠেছে রায়গ্রাম হাই স্কুলে। এ দিকে, পুলিশের সামনেই পাঁচিল বেয়ে উঠে পরীক্ষার্থীদের নকল সরবরাহ করার অভিযোগ উঠেছে মালদহের রতুয়ার আরএনজি বালিকা বিদ্যাপীঠে। এ দিন পরীক্ষা শুরু হওয়ার আধঘন্টা পর থেকেই নকল সরবারহ শুরু হয়ে যায় বলে অভিযোগ। যদিও ঘটনার কথা অস্বীকার করেছে জেলা বিদ্যালয় পরিদর্শকের দফতর(মাধ্যমিক)।

Advertisement

আড়াইডাঙ্গা আরএনজি বিদ্যাপীঠে এবার পরীক্ষার আসন পড়েছে সুলতাননগর হাই স্কুল ও প্রমীলাবালা হাই স্কুলের ছাত্রীদের। অভিযোগ, পরীক্ষা শুরু হওয়ার কিছু পরেই বহিরাগত কিছু যুবক পাঁচিলে উঠে পরীক্ষীর্থীদের হাতে হাতে নকল ছুঁড়তে শুরু করে। ওই কেন্দ্রে মাত্র দু’জন পুলিশকর্মী ছিলেন বলে জানা গিয়েছে। অভিযোগ, দুই পুলিশকর্মী সারাক্ষণই স্কুলের ভিতরেই ছিলেন। পরীক্ষা শেষ হওয়া পর্যন্ত নকল সরবারহ চলছিল বলে অভিযোগ। ওই কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত সচিব মানব কুমারও দাবি করেছেন, এমন ধরণের কোনও ঘটনা ঘটেনি।

মালদহের পুলিশ সুপার প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “মানিকচকে একটি পরীক্ষা কেন্দ্রের বাইরে সামান্য গোলমাল হয়েছিল। নকল দেওয়ার অভিযোগে ১৮জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। জেলার বিভিন্ন পরীক্ষা কেন্দ্রে নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে।”

এদিন ইংরেজি পরীক্ষা চলাকালীন পুলিশের সামনেই ইটাহার হাইস্কুল ও ইটাহার গার্লস হাইস্কুলের মাঠে বসে পরীক্ষার্থীদের পরিচিতদের একাংশকে একাধিক কাগজে উত্তর লিখতে দেখা যায় বলে অভিযোগ। পরে কয়েকজন যুবককে দু’টি স্কুলের পাঁচিলে উঠে পরীক্ষাকেন্দ্রের ভিতরে নকল ছুঁড়ে দিতে দেখা যায় বলেও অভিযোগ। পরীক্ষা শুরু হওয়ার পর মাঠে বসেই তিনজন যুবক সাদাকাগজে বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর লিখছিল বলে অভিযোগ। ওই ঘটনা দেখেও পুলিশ কোনও পদক্ষেপ করেনি বলে অভিযোগ। কয়েকজন যুবক পুলিশের সামনেই দু’টি স্কুলের পাঁচিলে উঠে দোতলার ঘরে নকলের কাগজ ছোঁড়ার চেষ্টা করে বলে অভিযোগ। হাতে কাগজ নিয়ে দীর্ঘক্ষণ মোবাইলে কথা বলতেও বহিরাগতদের দেখা গিয়েছে বলে অভিভাবকদের অভিযোগ।

তবে এ দিনও পরীক্ষা চলাকালীন রায়গঞ্জ শহরের বিভিন্ন এলাকায় একাধিক জেরক্সের দোকান খোলা থাকার অভিযোগ পেয়ে অভিযান চালায় পুলিশ। কসবামোড় থেকে শিলিগুড়ি মোড় পর্যন্ত ১০টি জেরক্সের দোকান বন্ধ করে দেয় পুলিশ।

মাধ্যমিক পরীক্ষায় বিধিভঙ্গের অভিযোগ উঠেছে চাকুলিয়া ও করণদিঘি এলাকাতেও। অভিযোগে ৬ জনকে ধরেছে পুলিশ। চাকুলিয়ার তরিয়াল হাইস্কুল, গন্ডাল ও চাকুলিয়া হাইস্কুলে বহিরাগতদের কেউ হাতে বই নিয়ে, কেউ বা নোট খাতা নিয়ে স্কুলের পেছন দিক দিয়ে ঢোকার চেষ্টা করছিল বলে অভিযোগ। পুলিশ বাধা দিলে, বচসাও হয় বলে জানা গিয়েছে। কয়েকজন পুলিশকর্মীকে ঠেলে ভিতরে ঢোকার চেষ্টাও বহিরাগতরা করে বলে অভিযোগ। এরপরেই পুলিশ তাদের গ্রেফতার করে বলে জানিয়েছে। ধৃতেরা চাকুলিয়া, নিজামপুর এলাকার বাসিন্দা বলে পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে। নকল সরবরাহ করতে গিয়ে করণদিঘি থানার রসাখোয়া এলাকাতেও এক যুবক ধরা পড়েছে। ধৃতদের আজ, বুধবার ইসলামপুর আদালতে তোলা হবে।

আরও পড়ুন

Advertisement