Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৪ ডিসেম্বর ২০২১ ই-পেপার

জাতীয় সড়ক সংস্কারের যন্ত্র চুরি

নিজস্ব সংবাদদাতা
রায়গঞ্জ ২৬ মার্চ ২০১৪ ০২:৩৫

জাতীয় সড়কের বেহাল দশা নিয়ে বাসিন্দাদের ক্ষোভ দীর্ঘদিনের। রাজনৈতিক তরজাতেও উঠে এসেছে জাতীয় সড়ক সংস্কার নিয়ে চাপানউতোরের প্রসঙ্গ। এ বার সেই ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়ক সংস্কারের কাজে ব্যবহৃত যন্ত্র চুরির অভিযোগ উঠল রায়গঞ্জে। ঠিকাদার সংস্থার হুমকি, অবিলম্বে দুষ্কৃতীদের ধরা না হলে কাজ বন্ধ করে দেবেন তাঁরা।

রায়গঞ্জের বারোদুয়ারি এলাকার ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কের পাশেই রয়েছে হিন্দুস্থান কনষ্ট্রাকশন কোম্পানি (এইচসিসি) নামে ওই ঠিকাদার সংস্থার দফতর। মঙ্গলবার ভোররাতে তার সামনে থেকে পাথরকুচি ও পিচ মেশানোর একটি নতুন যন্ত্র দুষ্কৃতীরা চুরি করে পালায় বলে অভিযোগ। এ দিন দুপুরে ওই সংস্থার জমি অধিগ্রহণ আধিকারিক ও প্রশাসক স্বপনকুমার ভদ্র রায়গঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। সপ্তাহখানেক আগে দিল্লি থেকে প্রায় ৪৫ হাজার টাকা খরচ করে মেশিনটি কিনে আনা হয়েছিল বলে সংস্থার দাবি।

জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে বরাত পেয়ে প্রায় তিন বছর আগে উত্তর দিনাজপুরের রূপাহার থেকে পূর্ণিয়া মোড় পর্যন্ত প্রায় ৬০ কিলোমিটার রাস্তা সম্প্রসারণের কাজ শুরু করে ওই সংস্থা। গত চার মাস ধরে ইটাহার থেকে ডালখোলা পর্যন্ত প্রায় ৭৫ কিলোমিটার বেহাল সড়ক মেরামতির কাজও শুরু হয়েছে। স্বপনবাবুর অভিযোগ, তিন বছরে দুষ্কৃতীরা ২০-২৫ বার বিভিন্ন যন্ত্র চুরি করে পালিয়েছে। প্রতিটি ঘটনার পরে পুলিশে অভিযোগ জানানো হয়েছে। কিন্তু দুষ্কৃতীরা গ্রেফতার হয়নি। তাঁর ক্ষোভ, “চুরি চলতে থাকায় লোকসান হচ্ছে। মেরামতির কাজ ৭০% শেষ। বাকি কাজও শীঘ্রই শেষ হয়ে যাবে। কিন্তু চুরি বন্ধ না হলে সম্প্রসারণের কাজ বন্ধ করে দিতে হবে।”

Advertisement

রাস্তার কাজে নজরদারির জন্য ওই সংস্থার ৩০ জন আধিকারিক ও কর্মী অস্থায়ী দফতর তৈরি করে থাকেন। সামনে ফাঁকা জায়গায় বিভিন্ন নির্মাণসামগ্রী ও যন্ত্র রাখা হয়। তবে জাতীয় সড়ক সংস্থার কর্মী, আধিকারিক ও নিরাপত্তারক্ষীরা রাজ্যে ও দেশের বিভিন্ন এলাকার বাসিন্দা হওয়ায় তাঁরা নিয়মিত দফতরে থাকেন না। নজরদারির জন্য ঠিকাদার সংস্থার তরফে পাঁচ নিরাপত্তারক্ষী রয়েছেন। তবে তা সত্ত্বেও চুরি ঠেকানো যায়নি।

আরও পড়ুন

Advertisement