Advertisement
০৯ ডিসেম্বর ২০২২

পাশে দাঁড়ান কর্মীদের, বুথে বুথে সংগঠন গড়ার ডাক সূর্যর

ফের ঘুরে দাঁড়াতে বুথে বুথে সংগঠন গড়ে তোলার পরামর্শ দিলেন সিপিএমের পলিটব্যুরোর সদস্য সূর্যকান্ত মিশ্র। শুক্রবার কোচবিহারে এসে দলের নেতা ও কর্মীদের নিয়ে বৈঠক করেন সূর্যবাবু।

কোচবিহারে দলীয় বৈঠক শেষে বেরিয়ে আসছেন সূর্যকান্ত মিশ্র। — নিজস্ব চিত্র

কোচবিহারে দলীয় বৈঠক শেষে বেরিয়ে আসছেন সূর্যকান্ত মিশ্র। — নিজস্ব চিত্র

নিজস্ব সংবাদদাতা
কোচবিহার শেষ আপডেট: ০৪ জুন ২০১৬ ০২:১৫
Share: Save:

ফের ঘুরে দাঁড়াতে বুথে বুথে সংগঠন গড়ে তোলার পরামর্শ দিলেন সিপিএমের পলিটব্যুরোর সদস্য সূর্যকান্ত মিশ্র। শুক্রবার কোচবিহারে এসে দলের নেতা ও কর্মীদের নিয়ে বৈঠক করেন সূর্যবাবু। দলীয় সূত্রের খবর, সেখানেই তিনি দলের কর্মীদের সক্রিয় ভাবে কাজ করার পরামর্শ দেন। দলের যে কর্মীরা আক্রান্ত হচ্ছেন, তাঁদের পাশে দাঁড়ানোর নির্দেশও দেওয়া হয়েছে।

Advertisement

তবে যে কর্মীরা তাঁদের পাশে চাইছেন না, সেখানে যাওয়ার ক্ষেত্রে নিষেধ করেছেন তিনি। সূর্যবাবু বলেন, “এমনটা হতে পারে যে, কোথাও আমরা গেলে সন্ত্রাস আরও বাড়বে। আমরা চলে আসার পরে ওই কর্মীদের উপরে আরও আক্রমণ হতে পারে। সেখানে যাওয়া যাবে না।” তিনি অভিযোগ করেন, দিনহাটায় তিনটি অফিস দখল করে নেয় তৃণমূল। ঘটনার কিছু ক্ষণ আগে একটি পার্টি অফিসে দলের দিনহাটা জোনালের সম্পাদক ছিলেন। তিনি বলেন, “তিনি একটু বেরিয়ে না এলে তাঁর প্রাণ সংশয় ছিল।” সূর্যবাবু গণমত গঠনের উপরে জোর দেন। দলের সদস্যদের পার্টি তহবিলে টাকা দেওয়ার আর্জির পাশাপাশি জনগণের কাছ থেকে অর্থ সংগ্রহে নামার পরামর্শ দেন। আক্রান্তদের পাশে দাঁড়াতে সেই সাহায্য খুব প্রয়োজন হবে বলে তিনি জানিয়েছেন।

সূর্যবাবু জানান, কংগ্রেসের ও বামেদের পরিষদীয় দলের সদস্যরা সন্ত্রাস কবলিত এলাকায় যাবেন। কোথায় কোথায় দলের কর্মীদের উপরে আক্রমণ হয়েছে সে সংক্রান্ত একটি পুস্তিকাও প্রকাশ করবেন তাঁরা। তিনি বলেন, “যে সব এলাকায় সব থেকে বেশি সন্ত্রাস হচ্ছে, তাঁর মধ্যে কোচবিহার একটি। আক্রান্তদের পাশে দলের নেতারা দাঁড়াবেন। এলাকায় এলাকায় যাবেন। বাম ও কংগ্রেসের বিধানসভার পরিষদীয় দলের সদস্যরাও যাবেন সন্ত্রাস কবলিত এলাকায়।”

সন্ত্রাসের অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন তৃণমূল নেতৃত্ব। তৃণমূলের কোচবিহার জেলা সভাপতি তথা উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ বলেন, “সন্ত্রাসের অভিযোগ ঠিক নয়। কোথাও কোনও গণ্ডগোল হচ্ছে না। তা চোখে দেখা যাচ্ছে। এসব অভিযোগ তোলার কোনও মানে হয় না।”

Advertisement
(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.