Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৯ ডিসেম্বর ২০২১ ই-পেপার

প্রচারে বিশৃঙ্খলা, চোট পেলেন ‘বাহা’

নিজস্ব সংবাদদাতা
মুরারই ২৭ এপ্রিল ২০১৪ ০২:২৬

সিনেমা-টিভির নায়ক-নায়িকাদের দেখতে দুপুর থেকে ভিড় করেছিলেন মুরারইয়ের মানুষ। চার ঘণ্টা পরে সেই তারকারা যখন এলেন, তখন বাঁধ ভাঙল ভিড়ের। দর্শকদের একাংশ উঠে পড়লেন মঞ্চে, ছিন্ন হল বিদ্যুৎ সংযোগ। পড়ে গিয়ে অল্প চোটও পেলেন ‘বাহা’ রণিতা দাশ। যাঁর জন্য প্রচার সভা, সেই তৃণমূল প্রার্থী শতাব্দী রায় গোলমালে উঠতেই পারলেন না মঞ্চে।

তৃণমূল সূত্রের খবর, এ দিন বীরভূমের মুরারই, নলহাটি ১ ব্লকের কয়থা ও রামপুরহাট ২ ব্লকের মাড়গ্রামে বীরভূম কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী শতাব্দী রায়ের সভা করার কথা ছিল। সভাগুলিতে প্রসেনজিৎ, শ্রাবন্তী, সোহমের সঙ্গে রণিতা-সহ কয়েক জনের থাকার কথা ঘোষণা করা হয়েছিল। দুপুর তিনটেয় মুরারইয়ে তাঁরা আসছেন বলে সকাল থেকে এলাকায় মুখে মুখে প্রচার চলছিল। দুপুর থেকে তাই তৃণমূলের সভাস্থলে ভিড় করেছিলেন কয়েক হাজার বাসিন্দা। বিকেল গড়িয়ে সন্ধ্যার মুখেও তাঁরা হাল ছাড়েননি।

সন্ধ্যা সাতটা নাগাদ সোহম, রণিতা ও অন্যান্যরা মঞ্চে ওঠেন। রণিতা সাঁওতালি ভাষায় ‘ইষ্টিকুটুম’ ধারাবাহিকের কিছু সংলাপ বলেন। সোহমও কিছু সিনেমার সংলাপ বলেন। হাততালিতে ফেটে পড়ে সভাস্থল। তৃণমূল প্রার্থীদের ভোট দিতে আবেদন জানান তারকারা।

Advertisement

সভা শেষের মুখে বিশৃঙ্খলা শুরু হয়। হইহই করে মঞ্চের দিকে ছোটেন দর্শকরা। পিছন থেকে ধাক্কা খেয়ে মঞ্চের কাছে-বসা মহিলারা প্রাণ বাঁচাতে মঞ্চে উঠে পড়েন। তাঁদের ধাক্কাধাক্কিতে পড়ে গিয়ে পায়ে চোট পেলেন রণিতা। মঞ্চে থাকা অভিনেতা-অভিনেত্রী, তৃণমূলের নেতারা, কে কোথায় যাবেন ভেবে পাচ্ছিলেন না। নেতাদের কেউ মাইক্রোফোন হাতে দর্শকদের শান্ত হতে ঘোষণা করতে গিয়ে দেখেন, তার কেটে গিয়েছে। হঠাৎ ঝুপ করে মঞ্চ অন্ধকার হয়ে যায়। আতঙ্কে শোরগোল পড়ে যায়। শেষে কোনও রকমে পুলিশ কর্মীরা মঞ্চ থেকে তারকাদের উদ্ধার করেন। তৃণমূলের জেলা সাধারণ সম্পাদক ত্রিদিব ভট্টাচার্য জানান, রণিতা অজ্ঞান হয়ে পড়েন। প্রাথমিক ভাবে তাঁর চিকিৎসা করা হয়। পরে রণিতা অবশ্য ফোনে বলেন, “কিছু হয়নি। আমি ফিরে এসেছি।”

এ দিন বিশৃঙ্খলার জেরে শতাব্দী মঞ্চে উঠতে পারেননি। পরে তাঁকে ফোন করার চেষ্টা করেও পাওয়া যায়নি। এ দিন নলহাটি ১ ব্লকের কয়থাতেও শতাব্দীর প্রচার সভা ছিল ওই তারকাদের নিয়ে। তাঁদের দেরি দেখে দর্শক ক্ষিপ্ত হয়ে মঞ্চে থাকা তৃণমূল নেতাদের ঢিলও ছোড়ে। শতাব্দী অবশ্য তখন সেখানে ছিলেন না। সাড়ে আটটায় সেখানে আসেন শুধু সোহম। তাঁকে দেখে ভিড় অনেকটা শান্ত হয়। সভা শেষ হয় নির্বিঘ্নেই। ত্রিদিববাবু এ দিনের বিশৃঙ্খলার জন্য দায়ী করেছেন বিরোধীদেরই। তিনি বলেন, “ভিড়ের সুযোগ নিয়ে বিরোধীরা গণ্ডগোল করেছে।”

রামপুরহাটের এসডিপিও কোটেশ্বর রাও বলেন, “তারকাদের দেখার জন্য বিশৃঙ্খলা তৈরি হয়। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে তাঁদের উদ্ধার করেছে।”



বিশেষ নির্বাচনী পর্যবেক্ষক সুধীরকুমার রাকেশের সফরের পরের দিন শনিবার আধাসেনা এল বীরভূমে।
রামপুরহাট স্টেশনে অনির্বাণ সেনের তোলা ছবি।

আরও পড়ুন

Advertisement