Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৮ অক্টোবর ২০২১ ই-পেপার

স্কুল ছাত্রীর বিয়ে আটকালো প্রশাসন

নিজস্ব সংবাদদাতা
পাড়া ২৩ এপ্রিল ২০১৪ ০১:০৮

বিয়ের আসরে পৌঁছে নাবালিকার বিয়ে রুখল প্রশাসন। পুরুলিয়ার পাড়া ব্লকের বাগালমারি গ্রামের ঘটনা। সোমবার সন্ধ্যায় গ্রামে গিয়ে এক দশম শ্রেণির ছাত্রীর বিয়ে বন্ধ করেন পাড়ার বিডিও সমীরণ বারিক ও পাড়া থানার ওসি নীলকান্ত ঘোষ।

প্রশাসন ও স্থানীয় সূত্রের খবর, কোটশিলা থানা এলাকার বাসিন্দা যুবক রাজীব ঘোষের সাথে বছর ষোলোর ওই নাবালিকার বিয়ে স্থির হয়েছিল। সোমবার ছিল বিয়ের দিন। সমস্ত আয়োজন সেরে ফেলেছিলেন মেয়েটির বাবা। স্থানীয় সূত্রে বিডিও-র কাছে নাবালিকার বিয়ের তোড়জোড়ের খবর এসেছিল। সন্ধ্যার দিকে পুলিশকে নিয়ে গ্রামে যান বিডিও। বিয়ের প্যান্ডেল তখন বাঁধা হয়ে গিয়েছে। পাত্রপক্ষের আসার সময়ও হয়ে এসেছিল। ফলে মেয়ের বিয়ে বন্ধ করতে প্রথমে রাজি হয়নি পরিবার। কিন্তু, প্রশাসনিক কর্তারা নাবালিকার বিয়ে দিলে কী কী ক্ষতি হতে পারে এবং আইনগত দিক দিয়ে কী শাস্তি হতে পারে, এই বিষয়গুলি বোঝানোর পরেই বিয়ে বন্ধ রাখতে রাজি হন মেয়েটির বাড়ির লোকেরা।

বিডিও বলেন, “বিয়ের সমস্ত আয়োজন সম্পূর্ণ হয়ে যাওয়ায় প্রথম দিকে পরিবার বিয়ে বন্ধ করতে রাজি ছিল না। আমরা ওঁদের কম বয়সে বিয়ের ক্ষতিকারক দিকগুলি দীর্ঘক্ষণ ধরে বোঝানোর পরে কাজ হয়।” রাতেই পাত্রপক্ষকে জানিয়ে দেওয়া হয়, বিয়ে বন্ধ করা হয়েছে। ফলে তাঁরা আর কোটশিলা থেকে বাগালমারিতে আসেননি। মেয়েটির বাবা, পেশায় ঝাড়খণ্ডের চাষ এলাকার একটি হোটেলের কর্মী বলেন, “ভাল পাত্র পেয়ে বিয়ের সম্বন্ধ করেছিলাম। বিডিও, ওসি মিলে বোঝানোর পরে বিয়ে বন্ধ করে দিয়েছি। ঘটনাটি পাত্রপক্ষকেও জানিয়ে দিয়েছি”। অন্যদিকে স্থানীয় স্কুল থেকে মাধ্যমিক পরীক্ষা দেওয়া সারদা বিডিওকে জানিয়েছে সে পড়তে চায়,বিডিও বলেন “মেয়েটি পড়তে চায় কিন্তু পরিবারের বিরুদ্ধে গিয়ে বিয়ে না করার মত সাহস দেখাতে পারেনি। আমরা ওকে প্রয়োজনীয় সাহায্য করব।”

Advertisement

আরও পড়ুন

Advertisement