Advertisement
২৯ জানুয়ারি ২০২৩
Visva Bharti

Visva-Bharati University: ৮৪ ঘণ্টা পর পুলিশের হস্তক্ষেপে ঘেরাও মুক্ত বিশ্বভারতীর রেজিস্ট্রার, আন্দোলন অব্যাহত

বিক্ষোভকারী পড়ুয়াদের পক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়া প্রিতম দাস ও মীনাক্ষী ভট্টাচার্য বলেন, ‘‘পুলিশ প্রশাসন এসে রেজিস্টারকে বের করে নিয়ে গেলেন। গুরুদেবের মাটিতে ভাবে পুলিশের প্রবেশ নিন্দাজনক। এত দিন ধরে বিক্ষোভ চললেও ছাত্র-ছাত্রীদের সাথে আলোচনা না করে বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ কী ভাবে আদালতে গেলেন?’’

নিজস্ব চিত্র।

নিজস্ব সংবাদদাতা
শান্তিনিকেতন শেষ আপডেট: ০৪ মার্চ ২০২২ ০০:৩১
Share: Save:

পুলিশের হস্তক্ষেপে ৮৪ ঘণ্টা পর ঘেরাও মুক্ত হলেন বিশ্বভারতীর রেজিস্ট্রার, জনসংযোগ আধিকারিক ও প্রাক্তন ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার। যদিও পড়ুয়াদের আন্দোলন অব্যাহত।

সোমবার সকাল থেকেই বিশ্বভারতীর কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার আশিস অগ্রবাল, জনসংযোগ আধিকারিক অতীক ঘোষ ও প্রাক্তন ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার অশোক মাহাতকে ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন পড়ুয়ারা। দীর্ঘ ৮৪ ঘণ্টা ঘেরাও থাকার পর বৃহস্পতিবার রাত এগারোটা নাগাদ ঘেরাও মুক্ত হলেন তাঁরা।

Advertisement

ছাত্রাবাস খোলা, অনলাইনে পরীক্ষা, উচ্চমাধ্যমিক ও মাধ্যমিক পরীক্ষার দিন পরিবর্তন-সহ একাধিক দাবিতে বিক্ষোভ দেখাচ্ছিলেন পড়ুয়ারা। এর প্রেক্ষিতে বুধবার কলকাতা হাইকোর্টে একটি রিট পিটিশন দাখিল করা হয় বিশ্বভারতীর তরফে। হাই কোর্ট রায় দেয়, ঘেরাও মুক্ত করতে হবে আধিকারিকদের, পাশাপাশি স্বাভাবিক পঠন-পাঠন শুরু করতে হবে। তবে শান্তিপূর্ণ আন্দোলন চলতে পারে।

আদালতের রায়ের পর শান্তিনিকেতন থানার ভারপ্রাপ্ত আধিকারিক দেবাশিস পণ্ডিত আন্দোলনরত পড়ুয়াদের সঙ্গে আলোচনা শুরু করেন। তার পর পুলিশের হস্তক্ষেপে ঘেরাও মুক্ত হন রেজিস্ট্রার-সহ আধিকারিকরা। রেজিস্ট্রার বেরোনোর সময় ছাত্র-ছাত্রীরা রেজিস্টারকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখান। দেওয়া হয় গো ব্যাক স্লোগানও।

বিক্ষোভকারী পড়ুয়াদের পক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়া মীনাক্ষী ভট্টাচার্য বলেন, ‘‘পুলিশ প্রশাসন এসে রেজিস্টারকে বের করে নিয়ে গেলেন। গুরুদেবের মাটিতে ভাবে পুলিশের প্রবেশ নিন্দাজনক। এত দিন ধরে বিক্ষোভ চললেও ছাত্র-ছাত্রীদের সাথে আলোচনা না করে বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ কী ভাবে আদালতে গেলেন?’’ পড়ুয়াদের সাফ কথা, আন্দোলন চলবে। যে ছাত্রছাত্রীরা হস্টেল না খোলায় সমস্যায় পড়েছেন তাঁরা সকলে কেন্দ্রীয় কার্যালয়েই থাকবেন বলেও আন্দোলনকারীরা জানিয়েছেন।

Advertisement
(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.