Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৬ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

কোথাও ছিঃ, কোথাও স্বাগত, মেদিনীপুরে শুভেন্দুর ব্যানারে বৈপরীত্যের ছবি

ওই ফ্লেক্সগুলিতে ফুটে উঠেছে সেই বার্তা। লেখা হয়েছে, ‘প্রকৃত জননেতা হলে বিজেপি নয়, নতুন দল করতেন। আমরা অনুগামী ছিলাম’।  

নিজস্ব সংবাদদাতা  
মেদিনীপুর ১৯ ডিসেম্বর ২০২০ ১২:৩২
শুভেন্দু অধিকারীকে ঘিরে দু’রকম ব্যানার। —নিজস্ব চিত্র

শুভেন্দু অধিকারীকে ঘিরে দু’রকম ব্যানার। —নিজস্ব চিত্র

কলেজ মাঠে অমিত শাহের সভার আগে মেদিনীপুর শহরে ফ্লেক্স-ব্যানারে বৈপরীত্যের ছবি। সব কিছু ঠিক থাকলে আজ শনিবারের এই সভাতেই বিজেপিতে যোগ দিতে চলেছেন শুভেন্দু অধিকারী। কিন্তু তার আগে এক দিকে যেমন শুভেন্দুকে ‘স্বাগতম’ জানানো হয়েছে, তেমনই ধিক্কার জানিয়ে পোস্টারও পড়েছে।

অমিত শাহের সভা ঘিরে গত কয়েক দিন ধরেই তেতে রয়েছে মেদিনীপুর। শহরের প্রায় সর্বত্র অমিত শাহ, দিলীপ ঘোষ, মুকুল রায়দের ছবিতে ছয়লাপ। তার সঙ্গেই পড়েছে শুভেন্দুর দু’রকম পোস্টারও। তার মধ্যে নজর কেড়েছে শুভেন্দু নতুন দল গঠন না করায় তাঁকে ধিক্কার জানানো ফ্লেক্স। শুভেন্দুর সঙ্গে তৃণমূলের সম্পর্কে টানাপড়েন শুরু হওয়ার পর থেকে জল্পনা ছিল, নতুন দল গড়তে পারেন তিনি। ওই ফ্লেক্সগুলিতে ফুটে উঠেছে সেই বার্তা। লেখা হয়েছে, ‘প্রকৃত জননেতা হলে বিজেপি নয়, নতুন দল করতেন। আমরা অনুগামী ছিলাম’।

সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে আজ শনিবারই মেদিনীপুরের সভায় বিজেপিতে যোগ দেবেন শুভেন্দু। কিন্তু তিনি নতুন দল গঠন না করায় তাঁর অনুগামীদের একাংশ যে ক্ষুব্ধ, সেই বার্তাই ছড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা হয়েছে। যদিও শুভেন্দু ঘনিষ্ঠ অন্য অংশ এই গোষ্ঠীকে ‘দাদার অনুগামী’ বলে মানতে নারাজ। শুক্রবারই তৃণমূল ছেড়েছেন শুভেন্দু অনুগামী স্নেহাশিস ভৌমিক। তিনি বলেন, ‘‘এটা অনুগামীদের কাজ নয়।’’

Advertisement

আরও পড়ুন: অমিত সভায় বক্তৃতা করবেন মুকুল, দিলীপ এবং ‘শ্রী…’

আরও পড়ুন: গভীর রাতে বাড়ি ফিরে রাতভর ঘুঁটি সাজালেন শুভেন্দু অধিকারী

আবার শাহদের পোস্টারের পাশাপাশি তাঁদের বিরোধী পোস্টারও নজরে এসেছে মেদিনীপুর শহরে। ‘কৃষক বিরোধী অমিত শাহ মেদিনীপুর ছাড়ো’— এমন পোস্টারের নীচে লেখা, ‘পশ্চিম মেদিনীপুর কৃষক সমাজ’। যদিও এই ধরনের কোনও সংগঠনের অস্তিত্ব বিজেপি বা তৃণমূল কোনও পক্ষেরই জানা নেই বলেই জানাচ্ছেন দলের নেতারা। তবে শনিবার সকাল হতেই সেই সব পোস্টার সরিয়ে ফেলা হয়েছে। কিন্তু বিজেপির অভিযোগের তির রাজ্যের শাসক দলের দিকেই। বিজেপির জেলা সভাপতি শমিত দাশ বলেন, ‘‘মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৭ ডিসেম্বর পশ্চিম মেদিনীপুরে এসেছিলেন। তখন সৌজন্য দেখিয়ে বিজেপি কোনও পতাকা লাগায়নি। আর এখন অসৌজন্য দেখাচ্ছে তৃণমূল।’’ তৃণমূলের জেলা সভাপতি অজিত মাইতির দাবি, ‘‘দল থেকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, অমিত শাহের সফরের রাস্তায় কোনও ভাবে দলের পতাকা না লাগাতে। দল থেকে কোনও পোস্টার লাগানো হয়নি। কারা লাগিয়েছে, তা জানা নেই।’’

আরও পড়ুন

Advertisement