Advertisement
২৭ নভেম্বর ২০২২

নেতা আর নির্বাচিতদের কাজ কী, নির্দিষ্ট করে দেবে তৃণমূল

পঞ্চায়েত ভোটের বিশ্লেষণে  ফাঁকফোকর চিহ্নিত করে তা পূরণ করতে কোর কমিটির বৈঠকে সমান্তরাল দুই অংশের ‘করণীয়’ নির্দিষ্ট করে দিতে চলেছে তৃণমূল। এ সম্পর্কে লিখিত ‘গাইডলাইন’ তৈরি করে দেওয়ার কথা ভেবেছেন দলীয় নেতৃত্ব। লোকসভা ভোটের আগে দল ও জনপ্রতিনিধিদের মধ্যে সমন্বয় তৈরি করেই এই আশঙ্কা দূর করতে চান দলীয় নেতৃত্ব।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ১৫ জুন ২০১৮ ০১:৫৫
Share: Save:

নির্বাচিত প্রতিনিধি আর নেতা-কর্মীদের মধ্যে সমন্বয়ের অভাবই চিন্তার কারণ। পঞ্চায়েত ভোটের পরে একাদিক জায়গায় সেই সম্ভাবনা মাথা তুলতে শুরু করায় উদ্বিগ্ন তৃণমূল নেতৃত্ব। তাই তিন স্তরেই নতুন বোর্ড কাজ শুরুর আগে দলের এই দুই পক্ষের ‘অবস্থান’ স্পষ্ট করতে উদ্যোগী হলেন শীর্ষনেতারা। আগামী ২১ তারিখ তৃণমূলের বর্ধিত কোর কমিটির বৈঠকে সাংসদ, বিধায়ক ছাড়াও পঞ্চায়েতের দুই স্তরে ( গ্রাম পঞ্চায়েত বাদে) নির্বাচিত দলীয় প্রতিনিধি ও পুরসভার চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান এবং কাউন্সিলরদের সঙ্গে জেলা থেকে ব্লক পর্যন্ত দলের পদাধিকারীদেরও ডাকা হয়েছে।

Advertisement

পঞ্চায়েত ভোটের বিশ্লেষণে ফাঁকফোকর চিহ্নিত করে তা পূরণ করতে কোর কমিটির বৈঠকে সমান্তরাল দুই অংশের ‘করণীয়’ নির্দিষ্ট করে দিতে চলেছে তৃণমূল। এ সম্পর্কে লিখিত ‘গাইডলাইন’ তৈরি করে দেওয়ার কথা ভেবেছেন দলীয় নেতৃত্ব। লোকসভা ভোটের আগে দল ও জনপ্রতিনিধিদের মধ্যে সমন্বয় তৈরি করেই এই আশঙ্কা দূর করতে চান দলীয় নেতৃত্ব। এবার পঞ্চায়েতের তিন স্তরেই প্রচুর নতুন মুখ নির্বাচিত হয়েছেন। আর সরে গিয়েছেন অনেকেই। এই দুই অংশের মধ্যে সুসম্পর্ক রক্ষা করে কাজ করাই চ্যালেঞ্জ শাসকদলের কাছে। তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের কথায়, ‘‘দলের নেতা-কর্মী ও নির্বাচিত প্রতিনিধিরা আলাদা ভাবে কাজ করেন। তবে দু’তরফের লক্ষ্য এক। কীভাবে তা হবে তা নির্দিষ্ট করে দেওয়া হবে।’’

পঞ্চায়েতের বিজয়ীরা নতুন বোর্ডে কাজ করবেন অগস্টে। নির্বাচিতদের শপথ বাকি অন্তত একমাস। তার আগেই তিন স্তরে পদের জন্য তদ্বিরও শুরু হয়ে গিয়েছে। বিশেষ করে জেলা পরিষদ ও পঞ্চায়েত সমিতির গুরুত্বপূর্ণ পদের জন্য নির্বাচিতদের অনেকেই দরবার শুরু করেছেন সংশ্লিষ্ট জেলার দলীয় পর্যবেক্ষক ও রাজ্য নেতাদের কাছে। তাই পদ সংক্রান্ত প্রাপ্তি-অপ্রাপ্তি নিয়ে অভন্যন্তরীণ বিরোধ-বিবাদ তার আগেই মেটাতে চায় তৃণমূল। দল আর জনপ্রতিনিধি—কার কী কাজ কোর কমিটির এই বৈঠকেই স্পষ্ট করে সকলকেই গুরুত্বপূর্ণ করে তোলার ফর্মুলা তৈরি করছে শাসকদল। সেই সঙ্গে নির্বাচিতরা কীসের ভিত্তিতে পদ পাবেন, আর পাবেন না—তার ব্যাখ্যাও স্পষ্ট হবে এই বৈঠকে। এই উদ্যোগ সম্পর্কে পার্থ বলেন, ‘‘দল বা জনপ্রতিনিধিদের কেউ যেন কারও কাজে বাধা হয়ে না ওঠেন তা নিশ্চিত করতে হবে।’’

Advertisement
(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.