• রূম্পা দাস
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

দোল-স্পেশ্যাল রকমারি: গুলাবজামুন

এসে গেল দোল। বছরের এই সময়টা মানেই রং খেলা, খাওয়া-দাওয়া, ভাঙের নেশা আর দেদার আনন্দ। কী রাখছেন এ বারের দোলের মেনুতে? আপনাদের জন্য রইল জটজলদি রকমারি কিছু রেসিপি।

sweet

গুলাবজামুন খেতে ভালবাসে না, এমন মানুষ কমই আছেন। ছোটবেলায় দেখেছি ঠাকুমা রাঙা আলু দিয়ে এই মিষ্টি তৈরি করতেন। কিন্তু আজকের রেসিপিতে গুলাবজামুন বানানো হচ্ছে একটু অন্য রকম ভাবে। আর এই দোলে বরফ-ঠান্ডা আইসক্রিমের সঙ্গে গরম গরম গুলাবজামুন পরিবেশন করেই এক বার দেখুন।

তৈরি হবে প্রায় ১২টি

 

 

 

উপকরণ:

গুঁড়ো দুধ— ১ কাপ

ময়দা— ১/৪ কাপ

ঘি— ১ টেবিল চামচ

নুন— এক চিমটে

বেকিং সোডা— এক চিমটে

দই— ২ চেবিল চামচ

পেস্তা— ১ চা চামচ

আমন্ড— ১ চা চামচ

নকুল দানা— ১২ টি

এলাচ দানা— ১২ টি

গাওয়া ঘি— ভাজার জন্য

চিনির সিরা তৈরিতে লাগবে:

জল— ২কাপ

চিনি— ১ কাপ

এলাচ— ৪টি

কেশর— ৩-৪টি

গোলাপ জল— ১ টেবিল চামচ

প্রণালী:

কড়াইয়ে জল আর চিনি দিয়ে ফুটতে দিন। ফুটে রস ঘন হয়ে এলে এলাচ গুঁড়ো, কেশর দিয়ে আরও কিছুক্ষণ রাখুন। রস ফুটে ঘন হয়ে এলে নাময়ে গোলাপ জল ছড়ান। অন্য একটি পাত্রে ময়দা, গুঁড়ো দুধ ও ঘি মেশান। এক চিমটে নুন ও বেকিং সোডা দিন। এক চামচ দই দিয়ে ভালো করে মেশাতে থাকুন। ধীরে ধীরে সামান্য দই মেশাতে থাকুন। মণ্ড তৈরি হয়ে গেল ছোট ছোট করে করে কেটে বলের আকার দিন। প্রতিটি বলের ভিতরে একটি করে নকুল দানা ও একটি করে এলাচের দানা ঢুকিয়ে দিন সযত্নে। কড়াইয়ে ঘি গরম করে বলগুলো ভাজতে থাকুন। সোনালি রং ধরতে শুরু করলে নামিয়ে চিনির সিরায় দিন। অন্য একটি পাত্রে জল গরম করুন। ফুটন্ত জলে বাদামগুলো দিয়ে মিনিট দুয়েক রেখেই তুলে নিন। বাদামগুলো এ বার ভালো করে কুচি করে নিন। এ বার রসে মাখা গরম গরম গুলাবজামুনের উপর বাদামকুচি ছড়িয়ে পরিবেশন করুন।

 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন