বয়সটা নিতান্তই সংখ্যা তাঁর কাছে। ৩৬ হোক বা ৫৬ বা ৭৬, তাতে কী-ই বা যায় আসে? পারফেক্ট বডি শেপ, তরতাজা লুকস, টানটান ত্বকে গুনে গুনে দশ গোল দেবেন হাঁটুর বয়সী তরুণীদেরও।

পশ্চিম অস্ট্রেলিয়ার পারথের বাসিন্দা ক্যারোলিন হার্টজ। তিন সন্তানের মা তিনি। তাঁকে দেখে যে কেউ চোখ বুজে বলবে বড়জোড় পঁয়ত্রিশের কোটা পেড়িয়েছেন ক্যারোলিন। এবং ভুল করবেন। জীবনশক্তিতে ভরপুর ক্যারোলিনের আসল বয়স ৭০ বছর! আর নিজের আদর্শ বিকিনি বডিতেই সোশ্যাল মিডিয়ায় কার্যত ঝড় তুলেছেন ক্যারোলিন।

তাঁর এই সৌন্দর্যের গোপন রহস্য কী? ক্যারোলিন জানালেন, ছোট্ট একটা আত্মত্যাগ। তাতেই বাজিমাত করেছেন তিনি। গত ২৮ বছর চিনি স্পর্শও করেননি ক্যারোলিন। শুধু চিনিই নয়, কোনও রকম মিষ্টি জাতীয় খাবারই খান না তিনি।

আরও পড়ুন: এই দু’জনের সম্পর্ক জানলে অবাক হবেন

 

আদর্শ বিকিনি বডিতেই সোশ্যাল মিডিয়ায় কার্যত ঝড় তুলেছেন ক্যারোলিন। ছবি: ইনস্টাগ্রামের সৌজন্যে

বয়স যখন ত্রিশের কোঠায় তখনই ডায়বেটিস ধরা পড়েছিল ক্যারোলিনের। সেই সময় চিকিৎসকের পরামর্শে বেশির ভাগ খাবারই বাদ দিতে হয়েছিল খাদ্যতালিকা থেকে। মিষ্টি জাতীয় খাবারও সম্পূর্ণ ভাবে বাদ গিয়েছিল। সেই শুরু। এরপর থেকেই স্বাস্থ্য সচেতন হয়ে পড়েন ক্যারোলিন। ‘সুইট লাইফ’ নামে বিকল্প মিষ্টির একটা কোম্পানিও খোলেন ক্যারোলিন।

সুস্থ থাকতে বিশেষ ভাবে নজর দেন ডায়েটের উপর। অনেকই ভাবেন ৫০-এর পর শেপে থাকা প্রায় অসম্ভব। কিন্তু যদি মন থেকে কেউ চান তাঁর কাছে এটা অসম্ভব কিছু নয়, জানালেন ক্যারোলিন। সোশ্যাল মিডিয়ায় সুস্থ ও সুন্দর থাকার টিপসও দেন ক্যারোলিন।

সকাল থেকে রাত পর্যন্ত কী কী করেন? নিজের প্রতিদিনের রুটিনও সোশ্যাল মিডিয়ায় বন্ধুদের সঙ্গে শেয়ার করেন ক্যারোলিন।

রোজ নিয়ম করে যোগাভ্যাস, প্রাণায়াম করেন তিনি। হাঁটতে যান পোষ্যের সঙ্গে। পরিমিত আহারই পছন্দ ক্যারোলিনের। সকাল ৯টা থেকে সন্ধ্যে ৬:৩০ পর্যন্ত অফিসে কাজ করেন। ফিরে এসে সময় কাটান পরিবারের সঙ্গে।