Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২০ সেপ্টেম্বর ২০২১ ই-পেপার

মার্কিন মুলুকে অন্য ছবি বানাচ্ছেন ঋত্বিকের নাতনি

রোশনি কুহু চক্রবর্তী
১৯ জুন ২০১৮ ২০:৩৩
নবরূপা ভট্টাচার্য।নিজস্ব চিত্র ।

নবরূপা ভট্টাচার্য।নিজস্ব চিত্র ।

বেড়ে ওঠা কলকাতার সল্টলেকে। তারপর ফটোগ্রাফি নিয়ে পড়াশোনার জন্য মুম্বই। উচ্চশিক্ষার জন্য পাড়ি দিয়েছেন লন্ডন কলেজ অফ কমিউনিকেশন। লিখেছেন বইও। তবে ছবি তোলাই তাঁর সবচেয়ে পছন্দের। ইনি নবরূপা ভট্টাচার্য।হিউস্টনের শিল্পী জন রোজ পারমারের ‘এসকেপিজম আর্ট মুভমেন্ট’-এ নির্বাচিত হওয়া একমাত্র ভারতীয় শিল্পী কলকাতার মেয়ে নবরূপা। এসকেপিজম আর্ট মুভমেন্টে সামিল হতে নবরূপা এই বছরের ২ মে থেকে টেক্সাসেই থাকছেন শিল্পীর বাড়িতে। তাঁর সঙ্গী, তাঁর প্রিয় পোষ্য-সহ শিল্পীর সারাদিনের সব মুহূর্ত ক্যামেরাবন্দি করছেন সরাসরি। কথা বলছেন। রেকর্ড করছেন। একে নবরূপা বলছেন, ‘‘ফটোবায়োগ্রাফি’’ বা অন্য ছবি।

জনকে নিয়েই তৈরি হচ্ছে নবরূপার নতুন ফটোবুক। মার্কিন সমালোচকরা বলছেন ভারতীয় এই শিল্পীর কথা। আমেরিকার পত্রপত্রিকায় প্রকাশিত হচ্ছে নবরূপার কথা। কলকাতার ট্রাম নিয়ে নবরূপার কাজ মুগ্ধ করেছে মার্কিন মুলুকের বাসিন্দাদেরও।

নবরূপা বলেন, ‘‘আমেরিকার সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য ‘অ্যাবস্ট্রাক্ট পেইন্টার’ জন রোজ পারমার। অসম্ভব ভাল একজন লেখকও জন। তাঁকে রীতিমতো ‘ফলো’ করতাম আমি। একদিন সেই সূত্রেই একটা চিঠি লিখলাম। বললাম আমার ছবির কথা। উনি বললেন, ওঁর কাছে এসে কাজ করতে। উনি নতুন প্রজন্মের প্রতিটি শিল্পীকে যেভাবে সাহায্য করেন তা সত্যিই দেখার মতো। একেবারে শিশুর মতো সারল্য রয়েছে জনের কাজে। সেটাই তুলে ধরার চেষ্টা করছি।’’

Advertisement



নবরূপার তোলা ছবি। নিজস্ব চিত্র।

চিঠির উত্তর এসেছিল।

‘এসকেপিস্ট মেন্টরশিপ প্রোগ্রাম’-এ একমাত্র ভারতীয় শিল্পী হিসাবে তারপর ডাকা হয় তাঁকে, পরিবারসূত্রে যিনি প্রবাদপ্রতিম পরিচালক ঋত্বিক ঘটকের নাতনি।

আরও খবর: এবার গরমে কেন এত কষ্ট, কারণ জানেন?

মার্কিন সেনার নতুন শাখা, মহাকাশ বাহিনী গড়ছেন ট্রাম্প

সম্প্রতি ঋত্বিকের সংগ্রহশালার কাজ শুরু করেছেন নবরূপা। তবে তারও আগে সুরমার সঙ্গে ঋত্বিকের যৌথজীবন নিয়ে একটি বইও প্রকাশ করেছেন। ২০১৬ সালে গোয়ার আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে এই ফটোবুকটি প্রকাশ করেন সি সেন্থিল রাজন।

এসকেপিজম আর্ট মুভমেন্ট শুরু করেছিলেন জন রোজ নিজেই। শিল্পীর প্রতিটি মুহূর্তে বেঁচে থাকার যে সংঘাত, দ্বন্দ্ব প্রকাশ পায় জীবনযাপনে। নিজের লেন্সে সেটাই তুলে ধরতে চেষ্টা করছেন নবরূপা। লিখছেন নানা প্রবন্ধও। ‘‘ছবির মাধ্যমেই সবকিছু বলে যেতে চাই। তথাকথিত শিল্পের ধারণাকে একেবারে ভেঙেচুরে নতুন করে গড়ার চেষ্টাই করছি’’, বলছেন মুম্বইয়ের সারি অ্যাকাডেমির ছাত্রী। অন্য ছবি বানাচ্ছেন তিনি।

নবরূপার কাজ মূলত একটা মানুষের নানান দিক পর্যবেক্ষণ করা। তার ছোটবেলার ছবি দেখে, কথা পড়ে তা আর্কাইভ করা। শিল্পীর বিভিন্ন সময়কে ধরা। শিল্পীর ‘মুড’ কে ধরে রাখা। বিভিন্ন কথোপকথনের মাধ্যমে তা তুলে ধরা। এভাবেই কলকাতার মেয়ে তৈরি করছেন মার্কিন শিল্পীর অন্য ছবি।

আরও পড়ুন

More from My Kolkata
Advertisement