সাত দিন পরে বাড়ল টাকা, উঠল বাজারও


অবশেষে একটু স্বস্তি। শুক্রবার ডলারের সাপেক্ষে কিছুটা ঘুরে দাঁড়াল টাকার দাম। টানা সাত দিন ধরে নজিরবিহীন ভাবে মোট ১৮৯ পয়সা পড়ার পরে। দিনের শেষে ডলার ২৬ পয়সা বেড়ে হল ৭১.৭৩ টাকা।

মূলত টাকার উত্থানের জ্বালানিতেই এ দিন ফের বেড়েছে শেয়ার বাজার। সেনসেক্স ১৪৭.০১ পয়েন্ট বেড়ে থিতু হয়েছে ৩৮,৩৮৯.৮২ পয়েন্টে। এর আগে বৃহস্পতিবারও সূচক উঠেছিল। ফলে খানিকটা নিশ্চিন্ত হয়েছেন লগ্নিকারীরা। বিশেষত তার আগের ছ’টি লেনদেনেই যেখানে সেনসেক্সের মোট ৮৭৮ পয়েন্ট পতন দেখেছেন তাঁরা। নিফ্‌টি-ও শুক্রবার ৫২.২০ বেড়ে দাঁড়ায় ১১,৫৮৯.১০-তে।

সম্প্রতি টাকার পতন নিয়ে অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি বলেছিলেন, এর দায় সম্পূর্ণ ভাবে বিশ্ব বাজারের। দেশীয় অর্থনীতির ভিত যেহেতু পোক্ত তাই আতঙ্কিত হওয়ার কোনও কারণ নেই। একই সঙ্গে তাঁর আশ্বাস ছিল, পরিস্থিতি সামলাতে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করছে। শুক্রবার বিদেশি মুদ্রার বাজার সূত্রে খবর, টাকার নাগাড়ে পতনে রুখতে এ দিন সত্যিই মাঠে নেমেছে শীর্ষ ব্যাঙ্ক। দিনভর ডলার বেচেছে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলিও। ফলে জোগান বাড়ে মার্কিন মুদ্রার। মাথা নামায় দাম।

বিশেষজ্ঞদের দাবি, টাকার দাম বাড়ার পাশাপাশি এ দিন শেয়ার বাজার ওঠার পেছনে হাত ছিল আরও কয়েকটি বিষয়ের। এগুলি হল—

• লগ্নিকারীদের মধ্যে শেয়ার কেনার হিড়িক। কারণ, গত দুই দিন সূচক কিছুটা উঠলেও, তার আগে কিছু দিন ধরে তা টানা পড়েছে।

• বিশ্ব বাজারে অশোধিত তেলের দাম কমা।

• বৈদ্যুতিক গাড়িতে কেন্দ্র পারমিট ছাড়ের মতো কিছু সুবিধা দিতে চাওয়ায়, গাড়ি শিল্পের শেয়ারের চাহিদা বৃদ্ধি।