Login
  • প্রথম পাতা
  • কলকাতা
  • দেশ
  • বিদেশ
  • বিনোদন
  • ভিডিয়ো
  • পাত্রপাত্রী

  • Download the latest Anandabazar app
     

    © 2021 ABP Pvt. Ltd.
    Search
    প্রথম পাতা কলকাতা পশ্চিমবঙ্গ দেশ খেলা বিদেশ সম্পাদকের পাতা বিনোদন জীবন+ধারা জীবনরেখা ব্যবসা ভিডিয়ো অন্যান্য পাত্রপাত্রী

    Actress Pallavi Death: ‘পল্লবীর সঙ্গে জয়েন্ট অ্যাকাউন্টে ১৫ লক্ষ টাকা! গাড়ি-বাড়ি কিনতেও টাকা নেন সাগ্নিক’

    পল্লবীর মাসির দাবি, জয়েন্ট অ্যাকাউন্টের কথা অভিনেত্রীর মৃত্যুর পরই জানতে পেরেছেন তিনি। ইদানীং দু’জনের ঝগড়া হত বলেও শুনেছেন।

    নিজস্ব সংবাদদাতা
    কলকাতা ১৬ মে ২০২২ ১৩:০৮

    কেন চরম পদক্ষেপ করলেন পল্লবী?
    ছবি: ইনস্টাগ্রাম

    এই বিজ্ঞাপনের পরে আরও খবর

    অভিনেত্রী পল্লবী দে-র উপর আর্থিক দিক দিয়ে অনেকটাই নির্ভর করতেন তাঁর লিভ-ইন সঙ্গী সাগ্নিক চক্রবর্তী। একাধিক বার নিজের প্রয়োজনে পল্লবীর থেকে টাকা নিয়েছেন তিনি। এমনকি, ইদানীং পল্লবীর সঙ্গে আর্থিক বিষয় নিয়ে মাঝে মধ্যেই অশান্তিও হত তাঁর। এমনটাই দাবি করেছে অভিনেত্রীর পরিবার।

    পল্লবীর পরিবারের অভিযোগ, অভিনেত্রীর থেকে টাকা নিয়ে নিউটাউনের ৮০ লক্ষ টাকা দামের ফ্ল্যাটটি কিনেছিলেন সাগ্নিক। যদিও সেই ফ্ল্যাটে পল্লবীর মালিকানা ছিল না। মালিক হিসেবে নাম রয়েছে সাগ্নিক এবং তাঁর বাবার। পল্লবীর থেকে অর্থসাহায্য নিয়ে সাগ্নিক একটি দামি গাড়িও কিনেছিলেন বলে অভিযোগ পরিবারের।

    Advertisement

    সোমবার সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে পল্লবীর মাসি সংঘমিত্রা ভট্টাচার্য জানান, অভিনেত্রীর মৃত্যুর পরই তাঁরা জানতে পেরেছেন যে, একাধিক ব্যাঙ্কে পল্লবীর সঙ্গে জয়েন্ট অ্যাকাউন্ট ছিল সাগ্নিকের। সেই সব অ্যাকাউন্টে এখন প্রায় ১৫ লক্ষ টাকার ফিক্সড ডিপোজিট রয়েছে। যদিও পুলিশের জেরায় এ ব্যাপারে সাগ্নিক কোনও কথা জানাননি। সাগ্নিকের পরিবারও কোনও পাল্টা দাবি করেনি।

    গত কয়েক মাস ধরে পল্লবী আর্থিক সমস্যায় ভুগছিলেন বলেও দাবি করেছেন সংঘমিত্রা। তিনি জানিয়েছেন, এই খবর তিনি পল্লবীদের পরিচারিকার থেকে পেয়েছেন। গড়ফার ওই ফ্ল্যাটে যে পরিচারিকা কাজ করতেন, তাঁর সঙ্গে পূর্ব পরিচয় ছিল পল্লবীর মাসির।তিনিই ওই পরিচারিকার সন্ধান দেন। সংবাদমাধ্যমকে সংঘমিত্রা জানিয়েছেন, ওই পরিচারিকাই তাঁকে জানিয়েছিলেন, পল্লবী এবং সাগ্নিকের অশান্তির কথা। তিনি বলেছিলেন, ‘‘টাকা নিয়ে প্রায়ই অশান্তি করেন দাদা-দিদি। সেই অশান্তি মারাত্মক আকার নেয় মাঝে মধ্যে।’’

    Advertisement

    Tags:
    এই বিজ্ঞাপনের পরে আরও খবর

    আরও পড়ুন