১২ শ্রাবণ ১৪২১ সোমবার ২৮ জুলাই ২০১৪ | কলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ weather forecast সর্বোচ্চ : ৩২.১ °C     সর্বনিম্ন : ২৭.৩ °C

জল ফেলে রেখে শুয়োর ধরতে দৌড়

মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশের গুরুত্ব সবচেয়ে বেশি। তাই পানীয় জল ছেড়ে শুয়োর নিয়েই বেশি ব্যস্ত প্রশাসন। পরিস্রুত পানীয় জল সরবরাহের পরিকল্পনাকে পিছনে সরিয়ে অগ্রাধিকার পাচ্ছে শুয়োর ধরার অভিযান! উত্তরবঙ্গের তিন জেলায় যে রোগটি এখন দাপিয়ে বেড়াচ্ছে, তাতে আক্রান্তদের ৩০ শতাংশের শরীরে জাপানি এনসেফ্যালাইটিস ধরা পড়েছে (রাজ্যের স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্যের হিসেব অনুযায়ী, জুলাইয়ে মৃত ৭১ জনের মধ্যে জাপানি এনসেফ্যালাইটিস মিলেছে ২১ জনের রক্তে)। বাকি ৭০ ভাগের দেহে এনসেফ্যালাইটিসের উপসর্গ থাকা রোগ, যার উৎস হিসেবে জলদূষণকেই দায়ী করেছেন নয়াদিল্লি ও পুণে থেকে আসা জীবাণু-বিজ্ঞানীরা। সংক্রমণ ঠেকাতে আক্রান্ত সমস্ত জায়গায় পরিস্রুত পানীয় জল সরবরাহ নিশ্চিত করার পরামর্শ দিয়ে গিয়েছেন তাঁরা।

নিজস্ব সংবাদদাতা
২৮ জুলাই, ২০১৪

এক দিনেই মৃতের সংখ্যা
নিয়ে সুর বদলালেন সুপার

নিজস্ব সংবাদদাতা

এনসেফ্যালাইটিসে মৃত্যু নিয়ে ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই অবস্থান বদলে ফেললেন উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের নতুন সুপার সব্যসাচী দাস! কিন্ত তাতেও মৃতের সংখ্যা নিয়ে ধন্দ কাটছে না। শনিবার উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে দার্জিলিঙের সাংসদ সুরেন্দ্র সিংহ অহলুওয়ালিয়ার সামনে বসে সব্যসাচীবাবু বলেছিলেন, জানুয়ারি থেকে ২৬ জুলাই পর্যন্ত এনসেফ্যালাইটিসের উপসর্গ থাকা রোগে ২০৩ জন মারা গিয়েছেন।

২৮ জুলাই, ২০১৪

শুশ্রূষা হবে কি,পরিস্রুত জলই নেই হাসপাতালে

নিজস্ব সংবাদদাতা

শুধু মশা নয়। মারণ রোগটা যে জলকেও বাহন করেছে, হুঁশিয়ার করে দিয়ে গিয়েছেন জীবাণুবিজ্ঞানীরা। কিন্তু উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে এখনও পরিস্রুত পানীয় জলের ব্যবস্থাই নেই! অথচ উত্তরবঙ্গের তিনটি জেলার এনসেফ্যালাইটিস রোগীদের মূল চিকিৎসা হচ্ছে ওই হাসপাতালেই। এবং বিজ্ঞানীরা ওই হাসপাতালে দাঁড়িয়েই বলেছিলেন, পানীয় জল থেকে ছড়ানো দূষণের জেরে অধিকাংশ ক্ষেত্রে এসেফ্যালাইটিসের উপসর্গযুক্ত জ্বর ছড়াচ্ছে।

২৮ জুলাই, ২০১৪

শহরে ঘুরছে শুয়োরের পাল, আতঙ্কে জঙ্গিপুর

নিজস্ব সংবাদদাতা

২৮ জুলাই, ২০১৪

সদর হাসপাতাল চত্বরেই শুয়োর

নিজস্ব সংবাদদাতা

২৮ জুলাই, ২০১৪

রোগ প্রতিরোধে পৃথক ওয়ার্ড, অভিযান পুরসভার

নিজস্ব সংবাদদাতা

২৮ জুলাই, ২০১৪

হাওড়ায় মেয়র-পারিষদের সঙ্গে লুকোচুরি শুয়োরদের

নিজস্ব সংবাদদাতা

নির্দেশ খোদ মুখ্যমন্ত্রীর। তাই বেরিয়েছিলেন শুয়োর ধরতে। কিন্তু পরিকাঠামোর অভাবে এলাকায় মশা মারার তেল ছড়িয়ে ফিরে আসতে বাধ্য হলেন হাওড়া পুরসভার জঞ্জাল অপসারণ দফতরের মেয়র-পারিষদ গৌতম চৌধুরী। ৪-৫ জন পুরকর্মীকে নিয়ে গৌতমবাবু রবিবার বেলা ১১টা নাগাদ শুয়োর ধরার জন্য লিলুয়া বেলগাছিয়া ভাগাড়ে পৌঁছে যান। ওখানে হাওড়া পুরসভার জঞ্জাল ফেলা হয়। আর অবাধে চরে বেড়ায় শ’পাঁচেক শুয়োর। তাদের ধরতে যে এ ভাবে নাস্তানাবুদ হতে হবে, বুঝতে পারেননি গৌতমবাবুরা। ধরতে গেলেই জঞ্জালের পাহাড়ে উঠে যাচ্ছে শুয়োরের দল। এই ধরপাকড় খেলা দেখতে ভিড় জমে যায়। প্রায় আধ ঘণ্টা ধরে শুয়োরের পিছনে দৌড়ে ঘেমেনেয়ে একটিকেও বাগে আনতে না-পেরে এলাকায় মশা মারার তেল ছড়িয়ে ফিরে যান মেয়র-পারিষদ!

২৮ জুলাই, ২০১৪

পোলিও-মুক্ত ভারতকে মডেল করতে চায় হু

সোমা মুখোপাধ্যায়

দু’লক্ষ থেকে শূন্য। অনেক বাধা-বিপত্তি এড়িয়ে এই দীর্ঘ পথ পেরিয়ে আসার পরে ভারতকে গোটা বিশ্বের কাছে মডেল হিসেবে তুলে ধরতে চায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু)। যেখানে একটা সময়ে বছরে প্রায় দু’লক্ষ পোলিও আক্রান্তের সন্ধান মিলত, সেখানে এখন এক জনও নেই। কী ভাবে একটা দেশ ঘুরে দাঁড়াতে পারে, তার নজির হিসেবে পোলিও-মুক্ত ভারতকে অন্যান্য দেশের সামনে তুলে ধরা হবে। রবিবার দিল্লিতে এক অনুষ্ঠানে এই সেরার শিরোপাই পেল ভারত। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষবর্ধন এবং নিজস্ব অননুকরণীয় ভঙ্গিতে ‘দো বুন্দ জিন্দেগি কা’-র স্লোগানে যিনি পোলিওর প্রচারকে ঘরে ঘরে পৌঁছে দিয়েছেন সেই অমিতাভ বচ্চনও ছিলেন অনুষ্ঠানে।

২৮ জুলাই, ২০১৪

ছানি কাটাতে গিয়ে দৃষ্টি বিপন্ন ৮ জনের

নিজস্ব সংবাদদাতা

ছানির অস্ত্রোপচারের পরে ৮ জন বয়স্ক রোগী তাঁদের এক চোখে দৃষ্টিশক্তি প্রায় হারাতে বসেছেন। বৃহস্পতিবার তাঁদের ছানি অপারেশন হয় কোচবিহার জেলা হাসপাতালে। শুক্রবার চোখ পরীক্ষা করতে গিয়ে দেখা যায়, তাঁরা সংক্রমণের শিকার হয়েছেন। এক দিন পর্যবেক্ষণে রাখার পরে শনিবার ৭ জনকে উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজে ‘রেফার’ করে দেওয়া হয়। তাঁদের পাঠানোর ব্যবস্থাও করা হয়। যদিও সে দিন বিকেলে তাঁদের জলপাইগুড়ি সদর হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়েছে। রবিবার তাঁদের মধ্যে ৩ জনকে জলপাইগুড়ি থেকে উত্তরবঙ্গ মেডিক্যালে পাঠানো হয়।

২৮ জুলাই, ২০১৪

চিত্র সংবাদ

২৮ জুলাই, ২০১৪

দুই কর্তার বয়ানে চূড়ান্ত অসঙ্গতি

নিজস্ব সংবাদদাতা

২৭ জুলাই, ২০১৪

অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ ঘিরে আশঙ্কা

অনির্বাণ রায়

২৭ জুলাই, ২০১৪

শহরে এনসেফ্যালাইটিস, জানে না পুরসভা

নিজস্ব সংবাদদাতা

২৭ জুলাই, ২০১৪

মোকাবিলা দলই নিধিরাম, মশার দাপট রুখবে কে

পারিজাত বন্দ্যোপাধ্যায়

উত্তরবঙ্গে এনসেফ্যালাইটিস ছড়ানোর খবর সঠিক সময়ে জানানো হয়নি বলে কড়া শাস্তি হয়েছে সেখানকার স্বাস্থ্যকর্তাদের। কিন্তু প্রশ্ন উঠেছে, গত দু’বছর ধরে লাগাতার উত্তরবঙ্গে এনসেফ্যালাইটিক ফিভারে মৃত্যু-মিছিল চলার পরেও স্বাস্থ্য ভবন কেন সেখানে রোগ মোকাবিলার পরিকাঠামো গড়ে তুলতে পারেনি? প্রতি বছর যে সেখানে মৃত্যু হচ্ছে, এটা স্বাস্থ্য দফতরের অজানা ছিল না।

২৭ জুলাই, ২০১৪

মৃত্যুর কারণ এনসেফ্যালাইটিস লেখায় বিতর্ক

নিজস্ব সংবাদদাতা

রক্ত পরীক্ষার রিপোর্ট আসার আগেই সরকারি হাসপাতালে এক বালকের ‘ডেথ সার্টিফিকেটে’ মৃত্যুর কারণ হিসাবে ‘মেনিঙ্গো এনসেফ্যালাইটিস’ লেখায় চাপানউতোর শুরু হয় স্বাস্থ্য দফতরে। প্রশ্ন উঠেছে, উত্তরবঙ্গের পর দক্ষিণবঙ্গেও কি এনসেফ্যালাইটিস ছড়াল? স্বাস্থ্য দফতরের কর্তারা এই সন্দেহকে ‘গুজব’ বলেছেন।

২৭ জুলাই, ২০১৪

প্রসূতিকে মারধরে অভিযুক্ত চিকিৎসক

নিজস্ব সংবাদদাতা

২৭ জুলাই, ২০১৪

শহুরে শুয়োরে সমস্যা: মমতা

নিজস্ব সংবাদদাতা

এসেছিলেন জাপানি এনসেফ্যালাইটিস নিয়ন্ত্রণে সরকারি পদক্ষেপের কথা জানাতে। বলে গেলেন স্বাস্থ্যকর উপায়ে শুয়োর চাষ এবং শুয়োর হটাও অভিযানের এ দিক-সে দিক নানা কথা। উত্তরবঙ্গে মারণ রোগে আক্রান্ত প্রায় ৪০০ মানুষ। এ দিকে স্বাস্থ্যকর্মীর সংখ্যা কম। কী ভাবে আক্রান্তদের জীবন বাঁচবে, রোগ নির্ণয়ের পরিকাঠামো বাড়বে কি না, জাপানি এনসেফ্যালাইটিসের প্রকোপ কমাতে অভিজ্ঞ চিকিৎসকদের কাজে লাগানোর ব্যবস্থা করা হবে কি না সে সব ব্যাপারে তেমন কোনও দিক-নির্দেশ পাওয়া গেল না মুখ্যমন্ত্রী তথা স্বাস্থ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছ থেকে।

২৬ জুলাই, ২০১৪

গাফিলতির অভিযোগে সাসপেন্ড ৩ স্বাস্থ্যকর্তা

নিজস্ব সংবাদদাতা

২৬ জুলাই, ২০১৪

কর্তাদের শাস্তিতে প্রশ্ন, সেবাকেন্দ্র তৃণমূলের

নিজস্ব সংবাদদাতা

জানুয়ারি মাস থেকে রোগটা ছড়াচ্ছে উত্তরবঙ্গে। শুধু উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজেই গত সাত মাসে জাপানি এনসেফ্যালাইটিস ও তার উপসর্গ থাকা রোগে (জলবাহিত হয়ে যার জীবাণু মানুষের শরীরে ঢুকছে বলে মনে করছেন অনেক চিকিৎসক) মৃত্যু হয়েছে ১২৪ জনের। বহরমপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালেও শুক্রবার রাতে এক বালকের মৃত্যু হয়েছে এনসেফ্যালাইটিসে। শুক্রবারই প্রথম নবান্ন থেকে রোগ সংক্রমণের ব্যাপকতার কথা মেনে নেওয়া হয়েছে।

২৬ জুলাই, ২০১৪

ডাকেইনি রাজ্য, দুই চিকিৎসকের গলায় আক্ষেপ

নিজস্ব সংবাদদাতা

কারও আছে ঝুলি ভরা অভিজ্ঞতা। কারও কাছে আবার তৈরি পরিকাঠামো। কিন্তু সে সব নেওয়ার লোক কোথায়? ওঁদের সাহায্য নেওয়ার জন্য রাজ্য সরকারের তরফে কোনও উদ্যোগই চোখে পড়েনি। অন্তত শুক্রবার পর্যন্ত।অথচ এনসেফ্যালাইটিসে আক্রান্ত উত্তরবঙ্গ এখন কার্যত ‘নেই রাজ্য’। এনসেফ্যালাইটিস রোগ, তার চিকিৎসা পদ্ধতি, রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থার সঙ্গে পরিচিত অভিজ্ঞ চিকিৎসক প্রায় নেই, যাঁরা স্থানীয় চিকিৎসক ও চিকিৎসাকর্মীদের সঠিক পথে পরিচালিত করতে পারবেন।

২৬ জুলাই, ২০১৪

এনসেফ্যালাইটিসের কিট নেই মালদহ মেডিক্যালে

নিজস্ব সংবাদদাতা

২৬ জুলাই, ২০১৪

জেলা হাসপাতালেও অমিল ইউএসজি পরিষেবা

নিজস্ব সংবাদদাতা

২৬ জুলাই, ২০১৪

ইএসআই হাসপাতালে নতুন পাঠ্যক্রম চালু করার সিদ্ধান্ত

রাজ্য সরকার আসানসোলের ইএসআই হাসপাতালে ল্যাবরেটরি টেকনিসয়ান সংক্রান্ত একটি পাঠ্যক্রম শুরুর সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানালেন শ্রমমন্ত্রী তথা স্থানীয় বিধায়ক মলয় ঘটক। এই পাঠ্যক্রম পাশ করার পরে ছাত্রছাত্রীরা সরকারি ও বেসরকারি স্তরে বিভিন্ন রোগনির্ণয় কেন্দ্রে নিয়োগের সুযোগ পাবেন। আসানসোলে শনিবার শ্রম দফতর আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এ কথা জানিয়ে শ্রমমন্ত্রী বলেন, “আসানসোলে সরকারি স্তরে কোথাও এই পাঠ্যক্রম পড়ানো হয় না। অথচ, এই পাঠ্যক্রমের চাহিদা আছে। আমরা তাই শিল্পাঞ্চলের বেকারদের সামনে আয়ের পথ সুগম করতে এই পাঠ্যক্রম শুরুর সিদ্ধান্ত নিয়েছি।” তবে কবে থেকে শুরু হতে পারে তার কোনও দিনক্ষণ জানাতে পারেননি মন্ত্রী।

পড়ুন