তিন বছর আগে ইরাকে অপহৃত ৩৯ জন ভারতীয় মসুলের জেলে আটক থাকতে পারেন বলে ধারণা বিদেশ মন্ত্রকের। আজ ওই নিখোঁজ ভারতীয়দের আত্মীয়স্বজনের একটি দলকে এ কথা জানিয়েছেন বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ।

বছর তিনেক আগে ইরাকে আইএসের হাতে বন্দি হন ৪০ জন ভারতীয়। পরে তাঁদের মধ্যে হরজিৎ মাসিহ নামে এক জনের খোঁজ মেলে। তিনি দাবি করেন, বাকি ৩৯ জনকে আইএস জঙ্গিরা খুন করেছে। কিন্তু নরেন্দ্র মোদী সরকার সে কথা মানতে রাজি হয়নি। বরং নানা সূত্রে ওই ভারতীয়দের বেঁচে থাকার খবরই পাওয়া গিয়েছে বলে বার বার দাবি করেছে বিদেশ মন্ত্রক। ২০১৫ সালে রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়ের পশ্চিম এশিয়া সফরের সময়ে প্যালেস্তাইনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসও তাঁকে এমন খবরই জানিয়েছিলেন বলে বিদেশ মন্ত্রক সূত্রে খবর।

সম্প্রতি ইরাকের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ শহর মসুল দখল করেছে ইরাকি সেনা। তার পরে ইরাকে যান বিদেশ প্রতিমন্ত্রী ভি কে সিংহ। আজ নিখোঁজদের আত্মীয়দের সঙ্গে বৈঠকে সুষমা জানিয়েছেন, ইরাকি সরকারের শীর্ষ কর্তাদের সঙ্গে বিদেশ প্রতিমন্ত্রীর কথা হয়েছে। জানা গিয়েছে, ওই ভারতীয়দের প্রথমে একটি হাসপাতাল তৈরির কাজে লাগানো হয়েছিল। পরে তাঁদের একটি খামারে নিয়ে যাওয়া হয়। তারপরে পাঠানো হয় পশ্চিম মসুলের বাদুশ এলাকার একটি জেলে। সুষমা জানিয়েছেন, পূর্ব মসুল ইরাকি সেনা দখল করেছে। সেখানে এখনও বাড়়িঘর থেকে বিস্ফোরক সরানোর কাজ চলছে। পশ্চিম মসুলে লড়াই চলছে। ফলে, এখনও ওই ভারতীয়দের সম্পর্কে আরও তথ্য পাওয়া যায়নি।

আগামী ২৪ জুলাই ভারতে আসছেন ইরাকের বিদেশ প্রতিমন্ত্রী ইব্রাহিম আল জাফরি। বিদেশমন্ত্রীর আশা, জাফরি ওই ভারতীয়দের সম্পর্কে আরও তথ্য জানাতে পারেন। ওই অঞ্চলের অন্য কয়েকটি দেশের বিদেশমন্ত্রীর সঙ্গেও কথা বলেছেন তিনি। অপহৃত ভারতীয়দের খুঁজতে তাঁরাও সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছেন।

 আরও পড়ুন: ভিসা নিয়েই পাকিস্তান যাচ্ছে জঙ্গিরা