তিনি একই সঙ্গে গায়ক, নায়ক আবার স্বঘোষিত ধর্মগুরু। টুইটারে তাঁর পরিচয় আরও দীর্ঘ— দার্শনিক, খেলোয়াড়, নায়ক, চিত্রপরিচালক, শিল্প নির্দেশক, সঙ্গীত পরিচালক, লেখক, সুরকার, জীবনীকার... আরও কত কী! নিজস্ব ওয়েবসাইটে তিনি, ‘সাধু চিকিৎসক গুরমিত রাম রহিম সিংহ জি ইনসান’। আর ফিল্মে তিনি ভগবানের দূত, ‘মেসেঞ্জার অব গড’। আজ আদালত বলল, তিনি ধর্ষকও।

তিনি ধর্মীয় সংগঠন ডেরা সচ্চা সৌদার প্রধান গুরমিত রাম রহিম, যার ধর্ষণ মামলায় দোষী সাব্যস্ত হওয়া নিয়ে জ্বলছে পঞ্জাব, হরিয়ানা দুই রাজ্য। তাঁর সমর্থকদের তাণ্ডবের আঁচ পড়েছে রাজধানীতেও।

এ হেন ধর্মগুরুর বিরুদ্ধে প্রথম ব্যভিচারের অভিযোগ আনেন এক সাংবাদিক রামচন্দ্র ছত্রপতি। পরে এক সাধ্বীর গোপন চিঠি পেয়ে ২০০২ সালে সিবিআই স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে গুরমিতের বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলা শুরু করে। এর পরেই ডেরা সচ্চা সৌদার ম্যানেজার রঞ্জিত সিংহ খুন হয়ে যান। ওই বছরই অক্টোবরে দুষ্কৃতীদের গুলিতে খুন হন ‘পুরা সচ্‌’-র সম্পাদক ছত্রপতিও। দু’টি খুনের মামলাই এখনও চলছে।

কখনও খুন হতে হয়েছে, তো কখনও তাঁর বিরুদ্ধে মুখ খোলার পরে নিখোঁজ হয়ে গিয়েছেন তাঁর গাড়ির চালক। অভিযোগ, চারশো ভক্তকে জোর করে লিঙ্গচ্ছেদ করিয়েছিলেন এই স্বঘোষিত ধর্মগুরু। সে সময়ে ব্যাখ্যা দেওয়া হয়েছিল, এতে মেয়েরা সুরক্ষিত হবেন ও ভগবানের আরও কাছাকাছি পৌঁছতে পারবেন সাধকেরা। এত অভিযোগের পরেও পৃথিবী জুড়ে ডেরা সচ্চার ভক্ত সংখ্যা ৬ কোটি। আর তাঁদের দানে, সম্পত্তির পরিমাণও লক্ষ কোটি ছুঁইছুঁই।