৫ পৌষ ১৪২১ রবিবার ২১ ডিসেম্বর ২০১৪ | কলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ weather forecast সর্বোচ্চ : ২৬.৫°C     সর্বনিম্ন : ১৪.৪°C

সারদায় ফেঁসে বাধা সংস্কারে: জেটলি

প্রধানমন্ত্রী হওয়ার সাত মাস পরে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা হল নরেন্দ্র মোদীর। এবং সেখানে দু’জনের কথা হল কি না স্বাস্থ্য নিয়ে! শুক্রবার রাতে রাষ্ট্রপতি ভবনের ভোজসভায় মুখোমুখি হয়ে প্রাথমিক কুশল জিজ্ঞাসার পরেই মমতার কাছে প্রধানমন্ত্রী জানতে চেয়েছিলেন, আপনার শরীর কেমন আছে? ভোজসভার এই সৌহার্দ্য ভোজবাজির মতো উড়ে গেল ২৪ ঘণ্টা কাটার আগেই! বরং ফের যুদ্ধং দেহি মূর্তিতে অবতীর্ণ দুই শিবির! আজ বণিকসভা ফিকি-র মঞ্চে দাঁড়িয়ে সংস্কার প্রশ্নে তৃণমূলকে নিশানা করে তোপ দাগলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি।

নিজস্ব সংবাদদাতা
২১ ডিসেম্বর, ২০১৪

বন্দি, তবু মদনের কেবিন খোলা হাট

নিজস্ব সংবাদদাতা

২১ ডিসেম্বর, ২০১৪

পাড়ুইয়ে সিবিআই চেয়ে সুপ্রিম কোর্টে পরিবার

নিজস্ব প্রতিবেদন

পাড়ুই-কাণ্ডে সিবিআই তদন্তের আর্জি নিয়ে শেষমেশ সুপ্রিম কোর্টেরই দ্বারস্থ হল নিহত সাগর ঘোষের পরিবার। শুক্রবার সাগরবাবুর স্ত্রী সরস্বতী ঘোষ, ছেলে হৃদয় ঘোষ এবং পুত্রবধূ শিবানী ঘোষ সিবিআই তদন্তের আর্জি জানিয়ে শীর্ষ আদালতে তিনটি পৃথক আবেদন দাখিল করেছেন। হৃদয়বাবু শনিবার বলেন, “বাবার খুনিদের শাস্তির জন্য বহু দিন ধরে লড়ছি। সহজে হাল ছাড়ব না। আশা করি, শীর্ষ আদালতে বিচার পাব।”

২১ ডিসেম্বর, ২০১৪

খাগড়াগড়ে তৈরি আইইডি অসমে মজুত, শুরু তল্লাশি

নিজস্ব সংবাদদাতা

২১ ডিসেম্বর, ২০১৪

মদন-ধর্নার ইতি, হাঁফ ছাড়লেন নেতা-কর্মীরা

নিজস্ব সংবাদদাতা

২১ ডিসেম্বর, ২০১৪

ক্ষমা চাওয়া কল্যাণের মুখে আবার সেই কুকথা

নিজস্ব সংবাদদাতা

দিন কয়েক আগেই সংসদে ক্ষমা চেয়েছিলেন তিনি। তা যে নিছকই ‘নিয়মরক্ষা’র, শনিবার তা প্রমাণ করে ছাড়লেন তৃণমূল সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। ঘটনা হল, শনিবারও হুগলির মশাট বাজারে কল্যাণের লক্ষ্য সেই সিদ্ধার্থনাথ সিংহই। বিজেপি-র কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষকের বিরুদ্ধে এ বার কল্যাণের তোপ, ‘কুলাঙ্গার’। এ নিয়ে যদিও অনুতাপ নেই শ্রীরামপুরের সাংসদের। তাঁর দাবি, কলকাতায় প্রকাশ্য সমাবেশে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ‘ভাগ মমতা ভাগ’ বলাতেই তাঁর এই ক্ষোভ প্রকাশ।

২১ ডিসেম্বর, ২০১৪

জমি বঞ্চনার পথ-পাঁচালি

শিল্পের প্রসার ও জীবনযাত্রার উন্নতি— সড়ক যোগাযোগের ভূমিকা দু’টি ক্ষেত্রেই অসীম গুরুত্বপূর্ণ। অথচ এ রাজ্যে তা দীর্ঘ অবহেলিত। হাল ফেরাতে পশ্চিমবঙ্গে পাঁচটি জাতীয় সড়ককে চার লেনে সম্প্রসারিত করার জন্য দিল্লি বছর দশেক আগে রাজ্যকে প্রস্তাব পাঠিয়েছিল। টাকা কেন্দ্রই দেবে, রাজ্যের দায়িত্ব শুধু জমি জোগাড় করা।

২১ ডিসেম্বর, ২০১৪

বন্ধুত্বের বার্তা নিয়ে ওয়েবকুটার মঞ্চে পার্থ

নিজস্ব সংবাদদাতা

২১ ডিসেম্বর, ২০১৪

নবীন বরণে মোচ্ছব, কড়া বার্তা শিক্ষামন্ত্রীর

নিজস্ব সংবাদদাতা

উৎসবের নামে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে চটুল মোচ্ছবে আপত্তি জানিয়েছিলেন আগেই। এ বার নাম না করে নিজের দলের ছাত্র সংগঠনকেই কড়া বার্তা দিলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। জানালেন, নবীন বরণ জাতীয় উৎসবের নামে এমন কিছু করা চলবে না, যা এ রাজ্যের সংস্কৃতিতে বেমানান। পাশাপাশি, শিক্ষক-শিক্ষিকাদেরও এ ব্যাপারে সতর্ক থাকার অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি।

২১ ডিসেম্বর, ২০১৪

কোরপান খুনে দুই ক্যান্টিন কর্মী ধৃত

নিজস্ব সংবাদদাতা

২১ ডিসেম্বর, ২০১৪

বুদ্ধদেবের হাতেই দলের চাবিকাঠি, জানালেন গৌতম

নিজস্ব সংবাদদাতা

২১ ডিসেম্বর, ২০১৪

বিশ্বাসে ভর, জালন্ধরের আলুবীজ এনেই ভরাডুবি

গৌতম বন্দ্যোপাধ্যায়

২১ ডিসেম্বর, ২০১৪

বুকে ব্যথা নিয়ে রাতেই পিজিতে

নিজস্ব সংবাদদাতা

সিবিআই তাঁকে আর নিজেদের হেফাজতে রাখতে চায়নি। তদন্তকারীদের জেরা থেকে মুক্তি চাইছিলেন তিনি নিজেও। সাত দিন ধরে সিবিআই জেরার পরে দৃশ্যতই বিধ্বস্ত, ক্লান্ত মদন মিত্রকে শুক্রবার আদালতের নির্দেশে নিয়ে যাওয়া হল আলিপুর জেলে। আর্থিক কেলেঙ্কারির মামলায় অভিযুক্ত হয়ে মন্ত্রিত্বে থাকাকালীনই রাজ্যে এই প্রথম কোনও নেতা জেলে গেলেন। পরিবহণ ও ক্রীড়ামন্ত্রীকে আপাতত ১৪ দিনের জন্য জেল হেফাজতে রাখার নির্দেশ দিয়েছে আলিপুর আদালত।

২০ ডিসেম্বর, ২০১৪

মন্ত্রী চোখে আঁধার দেখলেও স্বস্তিতে অনুগামীরা

নিজস্ব সংবাদদাতা

চোখে অন্ধকার দেখছেন তিনি। দম আটকে আসছে, বুক ধড়ফড় করছে, কাঁপছে হাত-পা। শুক্রবার সন্ধ্যায় এসএসকেএমের চিকিৎসকদের এমনটাই বলেছেন পরিবহণ মন্ত্রী মদন মিত্র। মন্ত্রী চোখে অন্ধকার দেখলেও সমর্থকেরা কিন্তু এ দিন অনেকটাই স্বস্তিতে। অন্য দিন পরিবহণ মন্ত্রী আলিপুর আদালত চত্বর থেকে বের হওয়ার সময়ে মনমরা হয়ে থাকতেন তাঁরা।

২০ ডিসেম্বর, ২০১৪

ছুটি পেতাম জামিন হলে, হতাশ ধর্নামঞ্চ

নিজস্ব সংবাদদাতা

২০ ডিসেম্বর, ২০১৪

আল কায়দার জঙ্গি-জোট ফাঁস খাগড়াগড়ে

সুরবেক বিশ্বাস

অগ্রভাগে জামাতুল মুজাহিদিন বাংলাদেশ (জেএমবি)। অনেকটা বড় শরিকের ভূমিকায়। কিন্তু কেন্দ্রীয় গোয়েন্দারা জেনেছেন, বর্ধমানের খাগড়াগড় বিস্ফোরণের সূত্রে হদিস মেলা জঙ্গি চক্রটি আসলে পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশের কয়েকটি জঙ্গি গোষ্ঠী ও কট্টর মৌলবাদী সংগঠনের সমষ্টি। গোয়েন্দারা দাবি করছেন, আল কায়দার নির্দেশ ও পরিকল্পনা মাফিকই হয়েছে এই মেলবন্ধন।

২০ ডিসেম্বর, ২০১৪

সব প্রত্যক্ষদর্শী বিগড়ে যাওয়ায় ফ্যাসাদে পুলিশ

নিজস্ব সংবাদদাতা

বড় ভরসারাই হাতছাড়া! এনআরএস ছাত্রাবাসে পিটিয়ে খুনের কিনারা করার জন্য পুলিশ যাঁদের উপরে সবচেয়ে বেশি নির্ভর করে ছিল, সেই পাঁচ প্রত্যক্ষদর্শী বেঁকে বসায় তদন্তকারীরা অথৈ জলে পড়ে গিয়েছেন। অন্য দিকে ঘটনার যথাযথ ও নিরপেক্ষ তদন্ত চেয়ে শুক্রবার কলকাতা হাইকোর্টে মামলা দায়ের করেছেন নিহতের স্ত্রী।

২০ ডিসেম্বর, ২০১৪

সমাবর্তনের চিঁড়ে ভেজাতে আর্জির পথে পার্থ

নিজস্ব সংবাদদাতা

২০ ডিসেম্বর, ২০১৪

উঁচু পদে নিন ভূমিপুত্রদেরই, সওয়াল মন্ত্রীর

নিজস্ব সংবাদদাতা

নতুন শিল্প তো মরীচিকা হয়ে দাঁড়িয়েছে। যেগুলো আছে, একে একে পাততাড়ি গোটাচ্ছে সেগুলোও। এই পরিস্থিতিতে রাজ্যে বেসরকারি সংস্থায় ‘হাই-এন্ড জবস’ বা উঁচু পদের চাকরিতে বাংলারই ছেলেমেয়েদের যাতে নিয়োগ করা হয়, তার জন্য আবার সওয়াল করলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। শিক্ষামন্ত্রীর বক্তব্য, এ রাজ্যে দক্ষ কর্মী পাওয়া সহজ। স্বল্প বেতনে দক্ষ শ্রমিক নিয়োগ করা হয় এখানে। অথচ উঁচু পদে চাকরির জন্য এখানকার ছেলেমেয়েদের পাড়ি দিতে হয় গুড়গাঁও, বেঙ্গালুরু, পুণে ইত্যাদি শহরে।

২০ ডিসেম্বর, ২০১৪

স্নাতকের ফলাফল আটকে, সংশয়ে ছাত্রভোট

নিজস্ব সংবাদদাতা

দেশজোড়া এক ভোটের জন্য পরীক্ষা পিছিয়ে দিতে হয়েছিল। পরে সেই পরীক্ষা হলেও তার ফল না-বেরোনোয় অন্য এক ভোট নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে। লোকসভা নির্বাচনের ধাক্কায় পরীক্ষা পিছিয়ে গিয়েছিল এক মাসেরও বেশি। তার জেরে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিএ, বিএসসি, বিকম পার্ট ওয়ান জেনারেল পরীক্ষার ফল এখনও বেরোয়নি। আগামী জানুয়ারির দ্বিতীয় সপ্তাহের আগে তা বেরোনোর সম্ভাবনা খুবই কম বলে জানিয়ে দিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়-কর্তৃপক্ষ।

২০ ডিসেম্বর, ২০১৪

টয় ট্রেন বাহনে সান্তা এ বার দার্জিলিঙে

নিজস্ব সংবাদদাতা

২০ ডিসেম্বর, ২০১৪

বিল আসেনি, কীসের সই, প্রশ্ন রাজ্যপালের

নিজস্ব সংবাদদাতা

বিলে দ্রুত সই করার জন্য রাজ্যপালের কাছে তদ্বির করতে গেলেন মন্ত্রীরা। রাজভবন জানাল, সেই বিল তাদের কাছে পৌঁছয়ইনি! বিড়ম্বনা এড়াতে আর ওই নিয়ে বিশেষ উচ্চবাচ্য হল না! মুখ্যমন্ত্রীর পরামর্শ মেনে শুক্রবার রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠীর সঙ্গে দেখা করতে যান রাজ্যের পাঁচ মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়, সুব্রত মুখোপাধ্যায়, মণীশ গুপ্ত, চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য ও শশী পাঁজা।

২০ ডিসেম্বর, ২০১৪

মাওবাদীরাও ছিল নন্দীগ্রামে

জগন্নাথ চট্টোপাধ্যায়

হাটে হাঁড়ি ভেঙে দিল নিজেরই পুলিশ। বাম জমানার সেই নন্দীগ্রাম আন্দোলনে তৃণমূল-মাওবাদী যোগসাজসের তত্ত্বকে কার্যত মান্যতা দিয়ে দিল্লিকে রিপোর্ট দিল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকারেরই গোয়েন্দা বিভাগ। বিদায়ের আগে বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের সরকার বারবার বলেছিল, নন্দীগ্রামে তৃণমূলের সঙ্গে রয়েছে মাওবাদীরা। পরে বিজেপির মুখেও একই নালিশ শোনা গিয়েছে।

১৯ ডিসেম্বর, ২০১৪

সংসদের ভিতরে নরম, বাইরে গরম মমতা

নিজস্ব সংবাদদাতা

ভিতরে সৌজন্যের প্রতিমূর্তি। বাইরে রণংদেহি। দু’রকম মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আজ দেখল সংসদ ভবন! সেন্ট্রাল হলে যে মমতা হাসিমুখে কথা বলেছেন বিজেপি সাংসদদের সঙ্গে, কেন্দ্রের সঙ্গে সহযোগিতা করার কথা বলেছেন, সেই মমতাই সংসদ ভবনের বাইরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তোপ দেগেছেন কেন্দ্রের শাসক দলের বিরুদ্ধে। সারদা কেলেঙ্কারিতে সিবিআই তদন্ত নিয়ে। যা দেখে রাজধানীর রাজনীতিকরা মিটিমিটি হেসে বলছেন, মান বাঁচাতে কোণঠাসা তৃণমূল নেত্রীর আর কী-ই বা করার ছিল!

১৯ ডিসেম্বর, ২০১৪

পণ্য-পরিষেবা কর নিয়ে সুর চড়াতে নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রীর

নিজস্ব সংবাদদাতা

এ বার পণ্য-পরিষেবা কর নিয়ে নরেন্দ্র মোদী সরকারের সঙ্গে সংঘাতে যাচ্ছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পশ্চিমবঙ্গের দাবি-দাওয়া না-মেনে কেন্দ্রীয় সরকার পণ্য-পরিষেবা কর (জিএসটি) চালু করতে চাইলেও মমতা তা মানতে নারাজ। দলের সাংসদদের তৃণমূল নেত্রী নির্দেশ দিয়েছেন, লোকসভা ও রাজ্যসভায় এর বিরুদ্ধে সরব হতে। মমতার বক্তব্য, “যে-ভাবে পশ্চিমবঙ্গকে অগ্রাহ্য করে পণ্য-পরিষেবা কর চালুর চেষ্টা হচ্ছে, তা ডেথ অব ফেডারেল ডেমোক্র্যাসি।”

১৯ ডিসেম্বর, ২০১৪

সমাবর্তন বয়কট করলেই শংসাপত্রে দাগ: আচার্য

নিজস্ব সংবাদদাতা

যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তন কোথায় হবে, অনেক টানাপড়েনের পরে তা ঠিক করে দিয়েছেন তিনিই। এ বার ছাত্রছাত্রীদের বয়কটের সিদ্ধান্তে সেই সমাবর্তন অনুষ্ঠানে যাতে কোনও রকম ব্যাঘাত না-ঘটে, তার জন্য কড়া পদক্ষেপ করতে চাইছেন আচার্য-রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠী। কী সেই পদক্ষেপ?

১৯ ডিসেম্বর, ২০১৪

কতটুকু করেছেন মমতা, শ্বেতপত্র চান সংখ্যালঘুরা

নিজস্ব সংবাদদাতা

তৃণমূল সরকারের দাবি আর সংখ্যালঘুদের অভিজ্ঞতা মোটেই মিলছে না। ভোটের আগে তাঁরা রাজ্যের সংখ্যালঘুদের উন্নয়নে জন্য যে-সব প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, সরকার গঠনের ১০০ দিনের মধ্যে তার ৯০ শতাংশই পূরণ করে ফেলেছেন বলে অসংখ্য বার দাবি করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু রাজ্যের বিভিন্ন সংখ্যালঘু সংগঠনের নেতাদের অভিযোগ, মুখ্যমন্ত্রী যে-দাবি করছেন, বাস্তবে তার কিছুই হচ্ছে না।

১৯ ডিসেম্বর, ২০১৪

সুর নরম রাজ্যপালের

আচার্য-রাজ্যপাল চেয়েছিলেন, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীরা সমাবর্তন বয়কট করলে তাঁদের শংসাপত্রে স্ট্যাম্প লাগিয়ে সে কথা লিখে দেওয়া হোক। কিন্তু তাতে বিস্তর বিতর্ক তৈরি হয়। শনিবার রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠী নিজেই জানালেন, শংসাপত্রে স্ট্যাম্প লাগানোটা ছিল তাঁর প্রস্তাব। ছাত্রছাত্রীরা কী করবেন, সেটা তাঁদের ব্যক্তিগত ব্যাপার।

পড়ুন